দক্ষিণ এশিয়ায় ক্লাসের পরিবর্তে কাজে যেতে হচ্ছে শিশুদের: প্রতিমন্ত্রী

মানসম্মত শিক্ষা ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করতে আরও পুঁজি বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 22 Sept 2022, 04:58 PM
Updated : 22 Sept 2022, 04:58 PM

জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে দক্ষিণ এশিয়ার শিশুদের শিক্ষা বঞ্চিত হওয়ার বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন।

তিনি বলেছেন, বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থীর আবাস ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ার ফলে তারা বাস্তুচ্যুত ও শিক্ষা বঞ্চিত হচ্ছে। নিঃস্ব পরিবারকে সহায়তা করতে তাদের ক্লাসের পরিবর্তে কাজে বের হতে হচ্ছে; যা অমানবিকই নয়, জাতিসংঘের শিশু সনদ ও আইএলও কনভেশনেরও পরিপন্থি।

বৃহস্পতিবার ভারতের বেঙ্গালুরে এশিয়ান সামিট অন এডুকেশন অ্যান্ড স্কিলসের বার্ষিক অধিবেশনে তিনি এসব কথা বলেন বলে মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

বৈশ্বিক এ সংকটে দক্ষিণ এশিয়ায় শিশুরাই সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে উল্লেখ করে জাকির হোসেন বলেন, “বিশ্বের সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ এ অঞ্চলে মানসম্মত শিক্ষা ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করতে আরও পুঁজি বিনিয়োগ করতে হবে। এজন্য দেশগুলো একটি শিক্ষা সহায়তা ফান্ড গড়ে তুলতে পারে। জাতিসংঘকে এ অঞ্চলে শিক্ষার প্রসারে আরও নিবিড়ভাবে কাজ করতে হবে।”

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোকে শিক্ষার মানোন্নয়ন, সিলেবাস প্রণয়ন, প্রযুক্তিগত কাঠামো ও কনটেন্ট নির্মাণে সমন্বিতভাবে কাজ করতে অভিন্ন প্ল্যাটফর্ম গড়ে তুলতেও আহ্বান জানান তিনি।

গত ১৮ সেপ্টেম্বরে শুরু এশিয়ান সামিট অন এডুকেশন অ্যান্ড স্কিলস শেষ হয় বৃহস্পতিবার।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক