যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা পেতে জালিয়াতি, ঢাকায় গ্রেপ্তার ৬

বুধবার রাতে ধরা পড়া এসব ব্যক্তিকে বর্তমানে পুলিশ হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 20 Jan 2023, 01:52 PM
Updated : 20 Jan 2023, 01:52 PM

যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা পাইয়ে দিতে জালিয়াতির অভিযোগে ছয়জনকে গ্রেপ্তারের কথা জানিয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম বিভাগ।

ঢাকার বিভিন্ন স্থান থেকে বুধবার রাতে তাদের গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানিয়েছেন সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম বিভাগের উপ-কমিশনার মোহাম্মদ তারেক বিন রশিদ।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন- পলাশ চন্দ্র দাস, ওয়াহিদ উদ্দিন, শফিকুল ইসলাম সুমন, মাহবুবুর রহমান খান, আবু জাফর ও আরিফুর রহমান। তাদের কাছ থেকে প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত জাল সিল এবং তিনটি পাসপোর্ট উদ্ধার করা হয়েছে।

উপ-কমিশনার তারেক জানান, যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা পাইয়ে দিতে কয়েকটি ভিসা প্রসেসিং প্রতিষ্ঠান মালদ্বীপ, মালয়েশিয়া ও কম্বোডিয়া ভ্রমণের জাল সিল দিয়ে বিভিন্নজনের পাসপোর্ট মার্কিন দূতাবাসে জমা দেয়।

বিষয়টি দূতাবাস কর্মকর্তাদের নজরে আসলে বুধবার গুলশান থানায় মামলা হয়, পরে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। বর্তমানে পুলিশ হেফাজতে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্যের বরাতে উপ কমিশনার তারেক বলেন, “তাদের ভিসা প্রসেসিং প্রতিষ্ঠান রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা পেতে আগ্রহীদের সঙ্গে ১০ থেকে ১৫ লাখ টাকায় চুক্তি করে ভিসা পাওয়ার নিশ্চয়তা দিয়ে আসছিল।

“আগ্রহীদের পাসপোর্টের গুরুত্ব বাড়াতে বিভিন্ন দেশের জাল ভিসা বসানো এবং বিভিন্ন দেশে প্রবেশ ও প্রস্থানের জাল সিল পাসপোর্টে সংযুক্ত করত তারা। পরবর্তীতে জাল ভিসা সংযুক্ত পাসপোর্ট দিয়ে মার্কিন দূতাবাসের সাক্ষাৎকারের ব্যবস্থা করে আসছিল।”

প্রতারণার মাধ্যমে চক্রটি কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে উল্লেখ করে পুলিশ কর্মকর্তা তারেক বলেন, চক্রের অন্য সদস্যদের গ্রেপ্তারের অভিযান চলছে।

ভিসা পেতে কোনো দালাল ধরার প্রয়োজন নেই জানিয়ে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মার্কিন দূতাবাস বলেছে, ভিসা আবেদন সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় তথ্য দূতাবাসের ওয়েবসাইটে দেওয়া আছে।

এই আবেদন অনলাইনে সারতে ভিসা প্রত্যাশীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে দূতাবাস বলছে, কেউ ভুল তথ্য কিংবা নথি দিলে কেবল ভিসা প্রত্যাখ্যাতই হবে না, ভবিষ্যতে যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণের জন্যও অযোগ্য হিসেবে বিবেচিত হবে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক