রামপালে তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ শিল্প স্থাপন বন্ধের দাবি

সুন্দরবন রক্ষায় অবিলম্বে রামপাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ শিল্প স্থাপন বন্ধের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) ও সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটি।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 August 2018, 07:43 PM
Updated : 27 August 2018, 07:43 PM

সোমবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয় বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

বাপা’র সহ-সভাপতি কলামনিস্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেন, “সুন্দরবনের এই প্রকল্পটি অস্বচ্ছ, দুরভিসন্ধি ও গণবিধ্বংসী। সরকার কার স্বার্থে এবং কাকে খুশি করার জন্য আত্মঘাতী প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছে তা আমার বোধগম্য নয়।”

সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক সুলতানা কামাল বলেন, “সুন্দরবন বিনাশী একের পর এক সরকারি পদক্ষেপে আমরা আজ খুবই  উদ্বিগ্ন। বর্তমানে বায়ুদূষণ এমন মাত্রায় গেছে, যার ফলে বাংলাদেশের মানুষের আয়ু কমে যাচ্ছে। কারণ সুন্দরবন হচ্ছে দক্ষিণ এশিয়ার ফুসফুস।”

সংবাদ সম্মেলনে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান বলেন, “আমরা কখনোই উন্নয়নের পরিপন্থি নই। উন্নয়নের নামে ব্যবসায়ীদের হাতে বাংলাদেশের পরিবেশ আজ জিম্মি।”

বাপা’র নির্বাহী সদস্য রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, “আমাদের আশঙ্কাই গবেষণার তথ্যে আবারও প্রমাণিত হয়েছে। আমরা বারবার বলে আসলেও সুন্দরবন বিনাশী কার্যক্রম চলছেই। বিদ্যুৎ উৎপাদনের তকমা ঝুলিয়ে সুন্দরবন ধংস করবেন না।”

সংবাদ সম্মেলন সুন্দরবন বিষয়ে ইউনেস্কো বিশ্ব ঐতিহ্য কমিটির প্রস্তাব সম্পূর্ণ বাস্তবায়ন, নির্মাণের সব কাজ অবিলম্বে বন্ধ, রামপাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ সুন্দরবনের পার্শ্ববর্তী বা অভ্যন্তরের নির্মাণাধীন ও পরিকল্পিত ৩২০টি ও সকল সরকারি-বেসরকারি প্রকল্প ও স্থাপনা অপসারণ, নির্মাণাধীন প্রকল্প অবিলম্বে বন্ধ, বরাদ্দকৃত সব প্লট অবিলম্বে বাতিলের দাবি জানানো হয়।

বাপা’র সাধারণ সম্পাদক ও সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব মো. আব্দুল মতিনের সঞ্চালনায় সংবাদ সম্মেলনে আরও বক্তব্য দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক বদরুল ইমাম, বাপা’র যুগ্ম সম্পাদক শরীফ জামিল।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক