ইউরোপে গ্যাস সরবরাহ ফের কমাচ্ছে রাশিয়া

রাশিয়ার এ পদক্ষেপের কারণে আসছে শীতে কঠিন পরিস্থিতিতে পড়তে হতে পারে ইইউভুক্ত দেশগুলোকে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 July 2022, 04:19 AM
Updated : 26 July 2022, 04:19 AM

রাশিয়ার বৃহৎ জ্বালানি কোম্পানি গ্যাজপ্রম জানিয়েছে, রক্ষণাবেক্ষণ কাজের জন্য তারা তাদের মূল পাইপলাইন দিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নে (ইইউ) গ্যাস সরবরাহ আবারও ব্যাপকভাবে হ্রাস করতে যাচ্ছে।

গ্যাজপ্রম বলেছে, নর্ড স্ট্রিম ওয়ান পাইপলাইনের আরেকটি টারবাইন বন্ধ করার কারণে গ্যাসের দৈনিক উৎপাদন ২০ শতাংশ হ্রাস পেতে পারে, এতে বর্তমান সরবরাহ অর্ধেক হয়ে যাবে।

এতে ইইউভুক্ত দেশগুলোর জন্য শীতের আগে তাদের জ্বালানি ভাণ্ডার ফের পূরণ করা আরও কঠিন হয়ে উঠতে পারে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

নর্ড স্ট্রিম ওয়ান পাইপলাইন দিয়ে রাশিয়া থেকে জার্মানিতে গ্যাস সরবরাহ করা হয়। কয়েক সপ্তাহ ধরেই এ পাইপলাইন দিয়ে সক্ষমতার চেয়ে অনেক কম গ্যাস সরবরাহ করা হচ্ছে আর চলতি মাসের প্রথমদিকে রক্ষণাবেক্ষণের জন্য এটি ১০ দিন পুরোপুরি বন্ধ রাখা হয়েছিল।

গত বছর রাশিয়া তাদের গ্যাসের ৪০ শতাংশ ইইউকে সরবরাহ করেছে। কিন্তু এবার রাশিয়া জ্বালানিকে ‘অস্ত্র’ হিসেবে ব্যবহার করছে বলে অভিযোগ ইইউয়ের।

জার্মানির সরকার বলেছে, গ্যাস সরবরাহ সীমিত করার প্রযুক্তিগত কোনো কারণ নাই।

অপরদিকে রাশিয়া সতর্ক করে বলেছে, তারা সরবরাহ কমাতে পারে বা পুরোপুরি বন্ধও রাখতে পারে।

তাদের এ হুঁশিয়ারির পর সদস্য রাষ্ট্রগুলোকে আগামী সাত মাস ধরে গ্যাসের ব্যবহার ১৫ শতাংশ কমানোর আহ্বান জানিয়েছে ইউরোপীয় কমিশন।

এই প্রস্তাব অনুযায়ী ঐচ্ছিক এ লক্ষ্য জরুরি পরিস্থিতিতে বাধ্যতামূলক হয়ে উঠতে পারে।

ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডার লায়িন বলেছেন, রাশিয়া ইইউতে সরবরাহ পুরোপুরি বন্ধ করে দিতে পারে এ সম্ভাবনা একটি ‘সম্ভাব্য চিত্র’।

মঙ্গলবার ইইউভু্ক্ত দেশগুলোর জ্বালানিমন্ত্রীদের ব্রাসেলসে মিলিত হয়ে ওই পরিকল্পনায় স্বাক্ষর করার কথা রয়েছে।

ফেব্রুয়ারিতে রাশিয়া ইউক্রেইনে আক্রমণ শুরু করার পর গ্যাসের পাইকারি মূল্য বৃদ্ধি পেতে শুরু করে, এতে ভোক্তারা চাপের মুখে পড়েছে।

গ্যাজপ্রমের ওই ঘোষণার প্রতিক্রিয়ায় ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, “ঐক্যবদ্ধ ইউরোপের বিরুদ্ধে প্রকাশ্য গ্যাস যুদ্ধ চালাচ্ছে রাশিয়া, যা ভাবা হয়েছিল এটা ঠিক তাই।”

গ্যাজপ্রম জানিয়েছে, চলমান শেষ দুটি টারবাইনের মধ্যে একটির ‘প্রাযুক্তিক অবস্থার’ কারণে বুধবার ০৪:০০ জিএমটি থেকে সরবরাহ কমানো শুরু হবে।

কিন্তু জার্মানির অর্থনীতি মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জানিয়েছেন, তাদের কাছে থাকা তথ্য অনুযায়ী সরবরাহ কমানোর কোনো প্রাযুক্তিক কারণ নেই।

ইইউতে সাম্প্রতিক গ্যাস সরবরাহে বিঘ্নের জন্য ক্রেমলিন পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞাকে দায়ী করেছে।

নর্ড স্ট্রিম ওয়ান পাইপলাইন দিয়ে গ্যাস সরবরাহ কমতে থাকায় শীতকালে যখন গ্যাসের ব্যবহার অনেক বেড়ে যাবে তখন সংকটে পড়তে পারে ইইউয়ের সংশ্লিষ্ট দেশগুলো।

এর আগে তাদের গ্যাসের মূল্য ডলার বা ইউরোর বদলে রুবলে পরিশোধ করার ক্রেমলিনের আদেশ প্রত্যাখ্যান করায় গ্যাজপ্রম বুলগেরিয়া, ডেনমার্ক, ফিনল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস ও পোল্যান্ডে গ্যাস সরবরাহ পুরোপুরি বন্ধ করে দিয়েছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক