মিত্র বদলে ফের বিহারের মুখ্যমন্ত্রীই হচ্ছেন নীতীশ

এ নিয়ে অষ্টমবার তিনি ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন। তার সঙ্গে উপ মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন রাষ্ট্রীয় জনতা দলের তেজস্বী যাদব।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 10 August 2022, 06:26 AM
Updated : 10 August 2022, 06:26 AM

বিজেপির সঙ্গ ছাড়ার পর অন্যদের নিয়ে মহাজোট গড়া জনতা দল ইউনাইটেডের (জেডিইউ) নীতিশ কুমারই ফের বিহারের মুখ্যমন্ত্রী পদে ফিরছেন।

বুধবার স্থানীয় সময় দুপুর ২টার দিকে তাকে শপথ পড়ানো হবে। এ নিয়ে অষ্টমবার তিনি ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন।

এদিন নীতিশের সঙ্গে উপ মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে রাষ্ট্রীয় জনতা দলের (আরজেডি) তেজস্বী যাদবও শপথ নেবেন বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

এ দু’জন ছাড়া বুধবার আর কারও শপথ হওয়ার সম্ভাবনা নেই বলেও জানতে পেরেছে ভারতীয় এই সংবাদমাধ্যমটি।

“৭ দলের মহাগাঁটবন্ধন, স্বতন্ত্র একজনও ঘনিষ্ঠভাবেই কাজ করবেন,” মঙ্গলবার বিহারের গভর্নরের সঙ্গে দ্বিতীয় বৈঠক শেষে বলেন নীতিশ।

প্রথম বৈঠকে জেডিইউ’র এই নেতা তার দল ও বিজেপির জোট সরকারের মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করেন। ঘণ্টাখানেকেরও কম সময়ের মধ্যে তিনি তেজস্বী যাদব ও আরও কয়েকটি দলের নেতাদের নিয়ে ফের গভর্নরের কাছে যান এবং কংগ্রেস, আরজেডি, জনতা দল ইউনাইটেডসহ ৭ দলের ‘মহাগাঁটবন্ধনকে’ সরকার গঠনে আমন্ত্রণ জানাতে বলেন।

বিহার বিধানসভায় মোট আসন ২৪২,সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণে দরকার হয় মাত্র ১২১ বিধায়কের সমর্থন।

রাজ্যটিতে এখন বিজেপি’র বিধায়কের সংখ্যা ৭৭; আরজেডি’র বিধায়ক ৭৯, কংগ্রেসের ১৯, সিপিআইএমএলের ১২ আর নীতীশের জনতা দলের (জেডিইউ) ৪৪।

এতদিন বিজেপির সমর্থন নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর পদে থাকা নীতিশ মঙ্গলবার সকালে জানান, বিধায়কদের সঙ্গে বৈঠকে তিনি জানতে পেরেছেন বিজেপি তার দলে ভাঙন ধরানোর চেষ্টা করছে।

জনতা দলের (ইউনাইটেড)বৈঠক যে সময় চলছিল, সেই একই সময়ে ৩২ বছর বয়সী তেজস্বী যাদবও রাষ্ট্রীয় জনতা দলের বিধায়কদের নিয়ে বৈঠক করেন। সেখানেই সিদ্ধান্ত হয়, বিজেপিকে ছেড়ে নীতীশ বিহারে নতুন সরকার গড়তে চাইলে আরজেডি তাতে সমর্থন দেবে।

“বিজেপি তার সব মিত্রদের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করে যাচ্ছে এবং অন্যদের ভয় দেখাচ্ছে,” নীতীশ কুমারকে পাশে নিয়ে করা সংবাদ ব্রিফিংয়ে বলেন তেজস্বী।

বিজেপি বলছে, মাঝপথে এসে মিত্র বদল করে নীতীশ কুমার ‘জনগণের রায়ের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা’ করলেন।

জেডিইউ নেতার পদক্ষেপ নিয়ে রাজ্যজুড়ে বিক্ষোভেরও ডাক দিয়েছে তারা।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক