গুতেরেসের মন্তব্যের জের, জাতিসংঘ কর্মকর্তাদের ভিসা দিচ্ছে না ইসরায়েল

জাতিসংঘে ইসরায়েলের রাষ্ট্রদূত বলেছেন,জাতিসংঘ প্রতিনিধিদেরকে ভিসা দেবে না ইসরায়েল। জাতিসংঘের ত্রাণ বিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল মার্টিন গ্রিফিথের ভিসা এরই মধ্যে নাকচ করা হয়েছে।

নিউজ ডেস্ক
Published : 25 Oct 2023, 02:59 PM
Updated : 25 Oct 2023, 02:59 PM

ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরায়েলের নৃশংসতার বিরুদ্ধে জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের মন্তব্যের জেরে জাতিসংঘকে একটি শিক্ষা দেওয়ার অঙ্গীকার করেছেন জাতিসংঘে ইসরায়েলের রাষ্ট্রদূত গিলাদ এরডান।

তিনি গুতেরেসের পদত্যাগ দাবি করার পর জাতিসংঘ কর্মকর্তাদের ভিসা দেওয়া হবে না বলে ঘোষণা দিয়েছেন। এরই মধ্যে জাতিসংঘের ত্রাণ বিষয়ক এক শীর্ষ কর্মকর্তার ভিসা নাকচ করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন এরডান।

বুধবার তিনি বলেন, জাতিসংঘ মহাসচিব গুতেরেসের মন্তব্যের পর তার দেশ জাতিসংঘ কর্মকর্তাদেরকে ভিসা দেবে না।কারণ,গুতেরেসের মন্তব্যে ইসরায়েলে হামাসের হামলা ন্যায্যতা পেয়েছে বলেই প্রতীয়মান হয়েছে।

ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংঘাত নিয়ে মঙ্গলবার জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের উচ্চপর্যায়ের অধিবেশনের উদ্বোধনীতে বক্তব্য দেওয়ার সময় গুতেরেস ‘আপত্তিকর’ কথা বলেছেন বলে অভিযোগ করেছে ইসরায়েল।

গুতেরেস বলেছিলেন, গাজায় আন্তর্জাতিক মানবিক আইনের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন দেখতে পেয়ে তিনি গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। সংঘাতে কোনও পক্ষই আন্তর্জাতিক মানবিক আইনের ঊর্ধ্বে নয়।

ইসরায়েলে ঢুকে ফিলিস্তিনের মুক্তিকামী সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাসের হামলার প্রসঙ্গে গুতেরেস বলেছিলেন,হামাসের হামলা শূন্য থেকে হয়নি। ফিলিস্তিনের মানুষ ৫৬ বছর ধরে শ্বাসরুদ্ধকর দখলদারিত্বের শিকার হয়েছে।

তবে ফিলিস্তিনি জনগণের দুর্দশা হামাসের ভয়াবহ হামলাকে ন্যায্যতা দিতে পারে না- এমন কথাও বলেন গুতেরেস। সেইসঙ্গে এ হামলার জেরে ফিলিস্তিনি জনগণকে ঢালাওভাবে শাস্তি দেওয়াটা সমুচিত নয় বলে মন্তব্য করেছিলেন তিনি। গাজায় তিনি অবিলম্বে মানবিক যুদ্ধবিরতির আহ্বানও জানিয়েছিলেন।

জাতিসংঘ মহাসচিবের বক্তব্যে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে তাৎক্ষণিকভাবে গুতেরেসের সঙ্গে পূর্বনির্ধারিত বৈঠক বাতিল করেন ইসরায়েলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। ইসরায়েলের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বিবিসি-কে বলেন, গুতেরেস তার কথায় সন্ত্রাসবাদকে ন্যায্যতা দিয়েছেন।

ওদিকে,জাতিসংঘে ইসরায়েলের রাষ্ট্রদূত গিলাদ এরডান টুইটারে এক পোস্টে বলেন, ইসরায়েলের নাগরিকদের বিরুদ্ধে সংঘটিত ভয়াবহ হত্যাযজ্ঞের পেছনে যারা যুক্তি দেখাতে চান, তাদের সঙ্গে কথা বলার কোনো যৌক্তিকতা নেই।

অবিলম্বে গুতেরেসের পদত্যাগ দাবি করেন তিনি।এরপরই বুধবার সেনা বেতারে এরডান বলেন, “তার (গুতেরেস) মন্তব্যের কারণে আমরা জাতিসংঘ প্রতিনিধিদেরকে ভিসা দেব না। আমরা এরই মধ্যে জাতিসংঘের মানবিক ত্রাণ বিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল মার্টিন গ্রিফিথের ভিসা নাকচ করেছি। জাতিসংঘকে শিক্ষা দেওয়ার সময় হয়েছে।”

গত ৭ অক্টোবর গাজার হামাস যোদ্ধারা ইসরায়েলে হামলা চালিয়ে ১৪’র বেশি মানুষকে হত্যা করে। ইসরায়েল থেকে গাজায় ধরে নিয়ে জিম্মি করা হয় ২০০’র বেশি জনকে।

ওই দিন থেকেই গাজায় বিমান হামলা চালিয়ে যাচ্ছে ইসরায়েল। রোববার তারা গাজায় বিমান হামলা আরও জোরদারের সংকল্প নেয়।

হামাস পরিচালিত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলেছে, সোমবার যুদ্ধের সবচেয়ে মারাত্মক ২৪ ঘন্টা ছিল। এই একদিনে গাজায় ৭০৪ জন ফিলিস্তিনি নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ৩০৫ জন শিশু, ১৭৩ জন নারী এবং ৭৮ জন বয়স্ক মানুষ ছিলেন।