সেনাসমাবেশের বিরুদ্ধে রাশিয়ার দাগেস্তানে বিক্ষোভ-সংঘর্ষ

স্যোশাল মিডিয়ায় পোস্ট হওয়া ফুটেজে আঞ্চলিক রাজধানী মাখাচকালায় নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের সঙ্গে স্থানীয়দেরকে ধস্তাধস্তি করতে দেখা গেছে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 Sept 2022, 06:37 PM
Updated : 25 Sept 2022, 06:37 PM

ইউক্রেইনে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নতুন আংশিক সেনা সমাবেশের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে রাশিয়ার দাগেস্তানে বিক্ষোভে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়েছে বিক্ষোভকারীরা।

স্যোশাল মিডিয়ায় পোস্ট হওয়া ফুটেজে আঞ্চলিক রাজধানী মাখাচকালায় নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের সঙ্গে স্থানীয়দেরকে ধস্তাধস্তি করতে দেখা গেছে।

সেখানে খুবই কঠোর এবং বেপরোয়াভাবে বিক্ষোভকারীদেরকে আটক করার খবরে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে রাশিয়ার স্বতন্ত্র মানবাধিকার গোষ্ঠী ওভিডি-ইনফো।

বিবিসি জানায়, রাশিয়ার মূলত মুসলিম অধুষ্যিত দাগেস্তানে বিদ্রোহ, বিচ্ছিন্নতাবাদ এবং জাতিগত সহিংসতার ইতিহাস আছে।

তবে সম্প্রতি রাশিয়াজুড়ে বড় বড় শহরগুলোতে শুরু হওয়া বিশাল বিক্ষোভ এবং ব্যাপক ধরপাকড় অভিযানের মধ্যে (কেবল শনিবারেই আটক হয়েছে ৭০০’র বেশি মানুষ) দাগেস্তানে পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষের চিত্র কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে স্থানীয়দের বিরল সহিংসতাকেই সামনে নিয়ে এসেছে।

স্যোশাল মিডিয়ায় পোস্ট হওয়া একাধিক ভিডিওতে দেখা গেছে, মাখাচকালায় বিক্ষোভকারীরা পুলিশ এবং অন্যান্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়েছে। পুলিশ পাল্টা বিক্ষোভকারীদের ওপর স্টান গান ব্যবহার করছে এবং লাঠিচার্জ করছে বলে জানিয়েছেন ওভিডি-ইনফো।

একটি ভিডিওতে আটক এক ব্যক্তিকে মরধর করতে দেখা গেছে পুলিশকে। আরেকটি ভিডিওতে একদল বিক্ষোভকারীর হাত থেকে বাঁচতে এক পুলিশকে দৌড়ে পালাতে দেখা যায়।

রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন গত বুধবার ইউক্রেইন যুদ্ধে আংশিক সেনাসমাবেশের ঘোষণা দেন। এতে দেশটির তিন লাখ রিজার্ভ সেনা ডাকা হচ্ছে।

তাছাড়া কেউ এ নির্দেশ না মানলে, স্বেচ্ছায় আত্মসমর্পণ করলে কিংবা পালিয়ে গেলে দ্বিগুণ শাস্তির বিধান রেখে একটি আইনও পাস করেছেন পুতিন।

পুতিনের আংশিক সেনা সমাবেশের ঘোষণার পর রাশিয়ায় যাদের যুদ্ধে অংশগ্রহণে সক্ষম মনে করা হচ্ছে, তাদের বাড়িতে চিঠি পাঠানো হচ্ছে। পুতিনের এই পদক্ষেপের প্রতিবাদ জানিয়েছেন অনেকে। এর জেরেই রাশিয়ার শহরে শহরে চলছে বিক্ষোভ।

দাগেস্তানে এক বিক্ষোভকারীর উক্তি, “আপনারা আমাদের ছেলেমেয়েদের নিয়ে যাচ্ছেন কেন? কে আক্রান্ত হয়েছে? রাশিয়া আক্রান্ত হয়েছে? তারা আমাদের কাছে আসেনি। আমরাই ইউক্রেইনে হামলা করছি। রাশিয়া ইউক্রেইনে হামলা করেছে। এই যুদ্ধ থামান।”

এই দাগেস্তান থেকে এরই মধ্যে হাজার হাজার সেনা ইউক্রেইনে লড়াই করতে গেছে বলে ধারণা করা হয়। বিবিসি রাশিয়ান সার্ভিসের সর্বসাম্প্রতিক বিশ্লেষণ অনুযায়ী, ইউক্রেইনের লড়াইয়ে রাশিয়ার যে কোনও প্রদেশের তুলনায় এই দাগেস্তানেরই সবচেয়ে বেশি সেনা হতাহত হয়েছে।

এ মাসের শুরুর দিককার এক পরিসংখ্যানমতে, যুদ্ধে দাগেস্তানের অন্তত ৩০১ সেনা নিহত হয়েছে, এ সংখ্যা রাজধানী মস্কোর সেনার তুলনায় ১০ গুণ বেশি। তবে সেনা নিহতের প্রকৃত সংখ্যা আরও বেশি হওয়ারও আশঙ্কা আছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক