সুইডেনে তুরস্কবিরোধী বিক্ষোভ, কোরান পোড়ানোয় ক্ষুব্ধ আঙ্কারা

ডেনিশ কট্টর-ডানপন্থি রাজনৈতিক দল হার্ড লাইনের নেতা রাসমুস প্যালুদানকে এর আগেও বিভিন্ন কর্মসূচিতে কোরান পোড়াতে দেখা গেছে। 

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 22 Jan 2023, 10:54 AM
Updated : 22 Jan 2023, 10:54 AM

সুইডেনের স্টকহোমে কোরান পুড়িয়ে তুরস্কের বিরুদ্ধে হওয়া বিক্ষোভে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে আঙ্কারা।

“আমাদের পবিত্র ধর্মগ্রন্থের ওপর জঘন্য আক্রমণের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি আমরা। বাক স্বাধীনতার নামে মুসলিমদের লক্ষ্য করে, আমাদের পবিত্র মূল্যবোধকে অপমান করছে এমন মুসলিমবিরোধী কার্যক্রমের অনুমোদন সত্যিই অগ্রহণযোগ্য,” বিবৃতিতে বলেছে তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

নর্ডিক দেশ সুইডেন মার্কিন নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট নেটোর সদস্যপদের জন্য আবেদন করেছে। কিন্তু স্টকহোম ‘সন্ত্রাসী কুর্দিদের’ আশ্রয় দিচ্ছে অভিযোগ তুলে তুরস্ক ওই সদস্যপদপ্রাপ্তি ঠেকিয়ে রেখেছে।

এ নিয়ে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা এমনিতেই ছিল, তুরস্কবিরোধী বিক্ষোভ ও কোরান পোড়ানোর ঘটনা তা আরও বাড়াল বলে ভাষ্য বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

শনিবার স্টকহোমে তুর্কি দূতাবাসের কাছে অভিবাসনবিরোধী কট্টর ডানপন্থি এক রাজনীতিক এক কপি কোরান পোড়ানোর ঘটনায় দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সুইডেনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। ইসলামোফোবিয়ার বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ নিতে বিশ্বের সব দেশকে এগিয়ে আসতেও বলেছে তারা। 

স্টকহোমে একইদিন হওয়া আরেক বিক্ষোভে কুর্দিদের প্রতি সমর্থন জানানোর পাশাপাশি সুইডেনের নেটোতে যোগ দেওয়ার আবেদনের বিরুদ্ধেও অবস্থান ব্যক্ত করা হয়েছে। দূতাবাসের কাছে তুরস্কপন্থিরাও আলাদা মিছিল করেছে।

সুইডেনের পুলিশ এ তিনটি কর্মসূচিকেই অনুমতি দিয়েছিল।

দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী টোবিয়াস বিলস্টর্ম পরে বলেন, ইসলামোফোবিক উসকানিতে তিনি স্তম্ভিত হয়ে গেছেন।

“সুইডেনে ব্যাপক বাক স্বাধীনতা আছে, কিন্তু এর মানে এই নয় যে সুইডেনের সরকার বা আমি যে ধরনের মত ব্যক্ত হয়েছে, তার সমর্থক,” টুইটারে লিখেছেন তিনি।

ডেনিশ কট্টর-ডানপন্থি রাজনৈতিক দল হার্ড লাইনের নেতা রাসমুস প্যালুদানই শনিবার তুর্কি দূতাবাসের কাছে কোরানের একটি কপি পুড়িয়েছেন। প্যালুদানের সুইডিশ নাগরিকত্বও আছে, এর আগেও অনেক কর্মসূচিতে তাকে কোরান পোড়াতে দেখা গেছে।

তাৎক্ষণিকভাবে এই উগ্র ডানপন্থির মন্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে তাকে দেওয়া পুলিশের অনুমতিপত্র বলছে, প্যালুদানের বিক্ষোভ ছিল ইডেনে বাকস্বাধীনতায় তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোয়ানের হস্তক্ষেপচেষ্টা ও ইসলামের বিরুদ্ধে।

সৌদি আরব, জর্ডান ও কুয়েতের মতো একাধিক আরব দেশও এরইমধ্যে কোরান পোড়ানোর ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে।

“সৌদি আরব সংলাপ, সহনশীলতা ও সহাবস্থানের মূল্যবোধ ছড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছে এবং ঘৃণা ও চরমপন্থা প্রত্যাখ্যান করছে,” বিবৃতিতে বলেছে সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

রাশিয়া ইউক্রেইনে সেনা পাঠানোর পর সুইডেন ও ফিনল্যান্ড নেটোর সদস্য হতে আনুষ্ঠানিক আবেদন জানায়। কিন্তু সামরিক জোটটির সদস্যপদ পেতে হলে, জোটের বিদ্যমান সকল সদস্যের অনুমোদন লাগবে।

তুরস্ক নেটোর সদস্য। তারা স্টকহোমকে বলেছে, আঙ্কারার সমর্থন পেতে হলে সুইডেনকে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে স্পষ্ট অবস্থান নিতে হবে।

তুরস্ক সন্ত্রাসী বলতে বুঝিয়েছে কুর্দি আধাসামরিক বাহিনী ও ২০১৬ সালে অভ্যুত্থানচেষ্টার পেছনে থাকা একটি গোষ্ঠীকে।

নেটোতে সুইডেনের যোগদানের বিপক্ষে হওয়া কর্মসূচিতে বক্তারা একটি লাল ব্যানারের সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলেন, যাতে লেখা ছিল ‘আমরা সবাই পিকেকে’।

পিকেকে বা কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টি তুরস্ক, সুইডেন ও যুক্তরাষ্ট্রের অবৈধ।  

“আমরা নেটো আবেদনের বিরোধিতা অব্যাহত রাখবো,” রয়টার্সকে বলেছেন অ্যালায়েন্স এগেইনস্ট নেটোর মুখপাত্র ও শনিবারের কর্মসূচির আয়োজকদের অন্যতম থমাস পিটারসন।

পুলিশ পরে জানায়, তিনটি কর্মসূচিই শান্তিপূর্ণভাবে হয়েছে।

কোরান পোড়ানোর প্রতিবাদে ইন্তাম্বুলে সুইডিশ কনসুলেটের বাইরে প্রায় দুই শতাধিক বিক্ষোভকারী সুইডেনের পতাকাও পুড়িয়েছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক