জর্ডানে ক্লোরিন গ্যাস ছড়িয়ে ১২ জনের মৃত্যু, অসুস্থ ২৫১

জর্ডানের আকাবা বন্দরে একটি স্টোরেজ ট্যাংক থেকে ক্লোরিন গ্যাস ছড়িয়ে অন্তত ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং ২৫১ জন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 June 2022, 06:09 AM
Updated : 28 June 2022, 06:09 AM

সোমবার দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত গণমাধ্যম ও কর্মকর্তারা এ খবর জানিয়েছেন।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, জিবুতিতে রপ্তানির জন্য ২৫ টন ক্লোরিন গ্যাস ভরা একটি ট্যাংক জাহাজে ওঠানোর সময় পড়ে গেলে সেখানে থেকে গ্যাস লিক করে।  

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, জর্ডানের রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশনের টুইটার পেইজে পোস্ট করা একটি ভিডিওতে একটি স্টোরেজ ট্যাংককে কপিকল থেকে জাহাজের ডেকে আছড়ে পড়তে দেখা যায়, পড়ার পর সেখান থেকে হলুদ রঙের গ্যাস বের হতে থাকে আর লোকজন দৌঁড়ে পালাতে থাকে।   

জর্ডানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, মঙ্গলবারের মধ্যে আর অল্প কিছু লোককে হাসপাতালে পাঠাতে হবে বলে ধারণা করছেন তারা।

বিষাক্ত গ্যাস নিঃসারণের পর আহতদের ভর্তি করা একটি হাসপাতালে সামনে জর্ডানের আধাসামরিক বাহিনী সদস্যদের দেখা যাচ্ছে। ছবি: রয়টার্স

জীবাণুনাশক হিসেবে ও পানি বিশুদ্ধ করতে ক্লোরিন ব্যাপকভাবে ব্যবহার করা হয়, কিন্তু শ্বাসের সঙ্গে শরীরে প্রবেশ করলে গ্যাসটি হাইড্রোক্লোরিক এসিডে পরিণত হয়; এতে শরীরের ভেতরের অংশ পুড়ে যেতে পারে এবং ফুসফুসে পানি জমে যেতে পারে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।  

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গুদামজাত শস্যে কোনো দূষণ ঘটেছে কিনা তা পরীক্ষার জন্য আকাবার খাদ্য শস্যের সাইলোগুলোতে কাজ বন্ধ রাখা হয়েছে, তবে বন্দর থেকে জাহাজ চলাচল অব্যাহত আছে।

ঘটনার সময় বন্দরের কোনো জাহাজ থেকে শস্য নামানো হচ্ছিল না বলে নিশ্চিত করেছেন তারা।

দীর্ঘদিন ধরেই প্রতিবেশী ইরাকের আমদানি-রপ্তানির জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ ট্র্যানজিট রুট হিসেবে জর্ডানের লোহিত সাগরের উত্তর প্রান্তের আকাবা বন্দর ব্যবহৃত হয়ে আসছে।

জর্ডানের প্রধানমন্ত্রী বিশের আল-খাসাওনেহ আকাবার একটি হাসপাতালে গিয়ে কিছু আহতের অবস্থা দেখেছেন ও তাদের চিকিৎসার খোঁজখবর নিয়েছেন বলে রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশনের খবরে বলা হয়েছে।

দেশটির তথ্যমন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে টেলিভিশনটি জানিয়েছে, আল খাসাওনেহ ঘটনাটি তদন্ত করে দেখার জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে প্রধান করে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক