এশিয়ায় জীবনধারা পাল্টাতে ‘পোকিমন গো’

এবার এশিয়াতেও বাজিমাৎ করেছে অগমেন্টেড রিয়ালিটি গেইম 'পোকিমন গো'। চলতি বছরের ৫ অগাস্ট দক্ষিণ-পশ্চিম এশিয়ার ১৫টি দেশে চালু করা হয় গেইমটি। এসব দেশে মানুষের জীবনধারা পরিবর্তনে ভূমিকা রাখছে পোকিমন গো, সম্প্রতি এমন তথ্যই উঠে এসেছে।

ফুয়াদ তানভীর অমিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 19 August 2016, 02:58 PM
Updated : 19 August 2016, 02:58 PM

এশিয়ায় পোকিমন গো ভক্তরা মোবাইলে ভালো নেটওয়ার্ক সিগনালপেতে তাদের মোবাইল সেবা পরিবর্তন করছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স। গেইমটি খেলারসুবিধার্থে সবচেয়ে ভালো মোবাইল সেবাদাত প্রতিষ্ঠান খুঁজছেন গেইমাররা। মোবাইলেরডেটাপ্যাক এবং অন্যান্য সুবিধা বিবেচনা করে মোবাইলফোন অপারেটর পরিবর্তন করছে অনেকগেইমার।

ইন্দোনেশিয়া থেকে হংকং এবং ক্যাম্বোডিয়া সবদেশেই এখনগেইমারদের জীবনধারা পরিবর্তনে বড় ভূমিকা পালন করছে এই পোকিমন গো। যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া এবং নিউ জিল্যন্ডেগেইমটি চালু হওয়ার এক মাস পর এশিয়াতে গেইমটি চালু করা হয়।

ইন্দোনেশিয়ার ২৯ বছর বয়সী ব্যাংক কর্মকর্তা মুছামাদ সায়ফুদিনজানান, গেইমটিখেলেতে তিনি অপারেটর পরিবর্তন করে আরও ভালো ডেটাপ্যাক অফার করছে এমন অপারেটরব্যবহার করছেন। তিনি আরও জানান তার বন্ধুরা ২০ ডলার মূল্যের মডেম কিনেছে। ভালোনেটওয়ার্ক পেতে তারা মডেমটি কাছে রাখতে পারেন।

রয়টার্সকে টেলিফোনে সায়ফুদিন বলেন, "বিশেষভাবে যেসবজায়গায় নেটওয়ার্ক সিগনাল পাওয়া খুবই কঠিন তারা সেখানেও মডেমটি সঙ্গে নিয়েপারেন।"

দুই সপ্তাহ আগে ইন্দোনেশিয়ায় গেইমটি চালু হলেও অনেক আগেথেকেই দেশটিতে প্রক্সি ব্যবহার করে গেইমটি খেলছে হাজারো গেইমার।

এশিয়ায় গেইমটি চালু হওয়ায় ব্যবসা বেড়েছে মডেম নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর।গত দুই মাসে পিটি স্মার্টফ্রেন টেলিকম-এর ৪জি মডেমের দাম বেড়েছে পাঁচ গুণ। প্রতিটিমডেমের দাম ধরা হয়েছে ২৩ ডলার।

ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় একটি ইলেক্ট্রোনিক্স শপেরবিক্রেতা বিলি চায়া বলেন "অনেক গ্রাহকেই মোবাইল নেটওয়ার্কের ধারণক্ষমতা বাড়াতেবিকল্প ব্যবস্থা খুঁজছে।" তাই এশিয়ায় গেইমারদের জীবনধারার পাশাপাশি ব্যবসারক্ষেত্রেও প্রভাব ফেলছে পোকিমন গো।

পোকিমন গো মূলত 'ট্রেজার হান্ট' ঘরানার অগমেন্টেড রিয়ালিটি গেইম।এর বিশেষত্ব হল,এতেভার্চুয়াল আর বাস্তব জগতের মধ্যে সমন্বয় আনা হয়েছে। কেবল ঘরে বসে খেলার মতো নয়, খেলোয়াড়কে বাইরে আনাই ছিল এইগেইমের মূল লক্ষ্য। একটি স্মার্টফোনে গেইমটি খেলার সময়ে 'পোকিমন গো' খেলোয়াড় থেকে পোকিমন বা প্রতিদ্বন্দ্বী দল কত দূরে রয়েছেতার ক্রমাগত নোটিফিকেশন দিয়ে যেতে থাকে। খেলোয়াড়রা চাইলে অপশনে গিয়ে তাদের আশপাশেরপরিবেশ স্ক্যান করে দেখতে পারেন, কোথাও পোকিমন রয়েছে কিনা। ভাগ্য সুপ্রসন্ন হলে হয়ত মোবাইলেরপর্দায় পোকিমনের দেখা পেয়েও যেতে পারেন হঠাৎ। আর চাইলে 'পোকিমন বল' ছুঁড়ে পোকিমন কে বন্দি করে গেইমারতা যোগ করে ফেলতে পারেন নিজস্ব সংগ্রহের তালিকায়।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক