'সেরা অবস্থায়' বিশ্বকাপে যাওয়ার আশায় বেল

ওয়েলস তারকার মূল লক্ষ্য এখন নিয়মিতভাবে ৯০ মিনিট খেলা।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 21 Sept 2022, 04:02 PM
Updated : 21 Sept 2022, 04:02 PM

রিয়াল মাদ্রিদে শেষের দিনগুলোয় কালেভদ্রে সুযোগ পেতেন খেলার। ঠিকানা বদলে লস অ্যাঞ্জেলস ফুটবল ক্লাবে এখন নিয়মিত মাঠে নামছেন গ্যারেথ বেল। তাতে সুযোগ পাচ্ছেন ঘাটতিগুলো পুষিয়ে নেওয়ার। আরও উন্নতিতে চোখ রেখে কাতার বিশ্বকাপ ঘিরে দেখছেন বড় স্বপ্ন। সেই অভিযানে ফিটনেসের দিক থেকে সেরা অবস্থায় থেকে দেশকে নেতৃত্ব দেওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী ওয়েলস অধিনায়ক।

গত জুনে রিয়ালের সঙ্গে চুক্তি শেষ হয় বেলের। এরপর যুক্তরাষ্ট্রের মেজর লিগ সকার-এর দল লস অ্যাঞ্জেলসে যোগ দেন এক বছরের জন্য। সুযোগ আছে মেয়াদ ২০২৪ সাল পর্যন্ত বাড়ানোর।

রিয়ালে ৯ বছরের অধ্যায়ের প্রথম কয়েক মৌসুম অসাধারণ কেটেছিল বেলের। দলের অনেক সাফল্যে সামনে থেকে রেখেছিলেন ভূমিকা। তবে কয়েক বছর যেতেই একের পর এক চোট ও ফর্মের কারণে ইউরোপের সফলতম ক্লাবটিতে ব্রাত্য হয়ে পড়েন তিনি।

ক্লাবের প্রতি তার আনুগত্য ও দায়বদ্ধতা নিয়ে উঠেছিল প্রশ্ন। সব মিলিয়ে, রিয়ালে বেল যেন থেকেও ছিলেন না। ক্লাব সমর্থকদের থেকে শুরু করে স্প্যানিশ গণমাধ্যমেরও সমালোচনা সইতে হয়েছিল তাকে। তবে ওই সময়েই ওয়েলসের জার্সিতে তাকে দেখা যেত একেবারে ভিন্ন রুপে।

তার নেতৃত্বেই এবারের বিশ্বকাপে জায়গা করে নেয় ওয়েলস। ১৯৫৮ সালের পর প্রথমবার দেশকে ফুটবলের বিশ্বমঞ্চে তোলার পথে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকাও রাখেন আন্তর্জাতিক ফুটবলে ১০৬ ম্যাচে ৪০ গোল করা তারকা।

মেজর টুর্নামেন্টে উঠতে না পারার ৫৮ বছরের খরা ঘুচিয়ে ওয়েলসকে ২০১৬ সালের ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের মূল পর্বে তুলতেও বড় অবদান ছিল বেলের। সেবার সবাইকে চমকে দিয়ে সেমি-ফাইনালে উঠেছিল ওয়েলস।

গত বছরের ইউরোয় তার নেতৃত্বে দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠে দল। আর গত জুনে বিশ্বকাপের প্লে-অফের ফাইনালে ইউক্রেইনকে হারানোর ম্যাচে একমাত্র গোলটি তিনিই করেন।

আগামী ২০ নভেম্বর শুরু হবে বিশ্বকাপ। ‘বি’ গ্রুপে ওয়েলসের তিন প্রতিপক্ষ ইরান, যুক্তরাষ্ট্র ও ইংল্যান্ড।

উয়েফা নেশন্স লিগ খেলতে বেল এখন আছেন জাতীয় দলের সঙ্গে। বৃহস্পতিবার তাদের প্রতিপক্ষ বেলজিয়াম। এই ম্যাচের আগে বুধবার অনুশীলনের পর বেল জানান বিশ্বকাপ নিয়ে পরিকল্পনা। তার বিশ্বাস, বিশ্বসেরার মঞ্চে শারীরিকভাবে আরও ভালো অবস্থায় থাকবেন তিনি।

“আমরা কী করছি, তা নিয়ে লস অ্যাঞ্জেলসে আমাদের একটা পরিকল্পনা আছে। প্রত্যেক ফুটবলারই যতটা সম্ভব খেলতে চায়, কিন্তু আমরা ভেবেচিন্তে কাজ করছি। আমি মৌসুমের শেষের গুরুত্বপূর্ণ অংশের জন্য নিজেকে গড়ে তুলছি।”

“আশা করি, এভাবে বিশ্বকাপের জন্য আমি সেরা অবস্থায় থাকতে পারব। আমি মনে করি, আমি অনেক ফিট থাকব। এখনও ৯০ মিনিট খেলিনি, যা নিয়ে আমি কাজ করছি।”

নতুন ক্লাবের হয়ে এখনও কোনো ম্যাচে পুরো ৯০ মিনিট খেলতে পারেননি বেল। খেলেছেন মোট ১১ ম্যাচ, তবে অধিকাংশই বদলি হিসেবে। মাত্র দুই ম্যাচে ছিলেন শুরুর একাদশে। জানালেন, তার লক্ষ্য এখন নিজেকে পুরো ম্যাচ খেলার জন্য তৈরি করা।

“আমি নিজেকে যেভাবে দেখতে চাই, সেই লক্ষ্যে আমরা সঠিক পথেই আছি। অবশ্যই আমি যতটা সম্ভব ৯০ মিনিট খেলতে চাই। কিন্তু এটাও আমি বুঝি যে সেজন্য আমার নিজেকে তৈরি করতে হবে, কারণ গত কয়েক বছরে আমি তা খুব বেশি করতে পারিনি।

“আমার জন্য এখন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, সপ্তাহ ধরে ধরে কাজ করা। আশা করি, এটা আমাকে লস অ্যাঞ্জেলসকে সাহায্য করার জন্য যথেষ্ট হবে এবং বিশ্বকাপের জন্যও প্রস্তুত করবে।”

লস অ্যাঞ্জেলস ক্লাবের ইতিবাচক পরিবেশও ভালো করতে উৎসাহ যোগাচ্ছে বলে জানালেন বেল।

“এখানে ভালো লাগছে, ভক্তরা এখানে অনেক সমর্থন দিচ্ছে।”

“তারা অনেক ধৈর্যও ধরছে, যা খুবই ভালো বিষয়। আমি এখানে খেলা উপভোগ করছি, এখানকার পরিবেশ অবিশ্বাস্য রকমের ভালো। তারা সবাই দলকে সমর্থন করে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক