শৈশবের প্রিয় ক্লাবে এসে ক্রিস্টেনসেনের স্বপ্ন পূরণ

বার্সেলোনার সঙ্গে চার বছরের চুক্তি স্বাক্ষর করে আন্দ্রেয়াস ক্রিস্টেনসেন শোনালেন তার স্বপ্ন পূরণের কথা। বললেন, শৈশব থেকেই তার মনের বাসনা ছিল একদিন কাতালান ক্লাবটিকে প্রতিনিধিত্ব করার।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 7 July 2022, 03:01 PM
Updated : 7 July 2022, 03:18 PM

ফ্রি ট্রান্সফারে ক্রিস্টেনসেনকে দলে টানার বিষয়টি গত সোমবার জানায় বার্সেলোনা। ২৬ বছর বয়সী এই সেন্টার-ব্যাকের বাই আউট ক্লজ ধরা হয়েছে ৫০ কোটি ইউরো।

গত মাসে চেলসির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ শেষ হয় ক্রিস্টেনসেনের। দলটির হয়ে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে তিনি ম্যাচ খেলেছেন ১৬১টি। জিতেছেন প্রিমিয়ার লিগ, চ্যাম্পিয়ন্স লিগ সহ আরও কয়েকটি শিরোপা।

কাম্প নউয়ে বৃহস্পতিবার ২০২৬ সাল পর্যন্ত চুক্তিবদ্ধ হওয়ার পর বার্সেলোনার খেলোয়াড় হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয় ক্রিস্টেনসেনকে।

সেখানে তিনি বলেন, ফুটবলের সঙ্গে তার সখ্যতার সময় থেকেই লালন করে আসছিলেন বার্সেলোনার হয়ে খেলার স্বপ্ন।

“আমি বার্সেলোনার খেলা দেখে বড় হয়েছি এবং রোনালদিনিয়ো ও দেকো আমার প্রিয় খেলোয়াড় ছিলেন। আমি খুব খুশি এবং এই দিনটির জন্য আমি দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করেছি৷ (ক্লাবের হয়ে) মাঠের অভিযান শুরু করার জন্য আমি মুখিয়ে আছি।”

“এটা সত্য যে, আমার হাতে আরও প্রস্তাব ছিল এবং ভালো কিছু দল আমার প্রতি আগ্রহ দেখিয়েছিল। কিন্তু স্বপ্ন পূরণের পথ দেখা গেলে দ্বিধার কিছু থাকে না। স্বপ্ন সত্যি হতেই পারে।”

২০২১-২২ মৌসুমে মাঠে ও মাঠের বাইরে বেশ কঠিন সময় কাটাতে হয় বার্সেলোনাকে। আর্থিক দৈন্যতার কারণে ক্লাব ছেড়ে যান ফুটবল মহাতারকা লিওনেল মেসি ও আরও কয়েকজন খেলোয়াড়।

এসবের প্রভাব পড়েছিল দলটির খেলায়। শিরোপাহীন মৌসুমে দলটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগে বাদ পড়েছিল গ্রুপ পর্ব থেকেই। গত বছরের শেষের দিকে শাভি এরনান্দেস কোচ হওয়ার পর থেকেই ছন্দে ফেরার ইঙ্গিত মেলে তাদের খেলায়। শেষ পর্যন্ত লা লিগায় রানার্সআপ হয় তারা।

ক্রিস্টেনসেন আশাবাদী, বার্সেলোনায় আবার সুদিন ফিরে আসবে।

“খেলার ধরনের কারণে বার্সা আমাকে আকর্ষণ করে। আমার মনে আছে, বিশেষ করে রোনালদিনিয়োর কথা। তিনি যেভাবে খেলতেন… আমি তার মতো একজন হতে চেয়েছিলাম।”

"খেলোয়াড় হিসাবে আমরা সবাই জিততে চাই, এটাই মূল লক্ষ্য। আমি মনে করি, এই দল এবং ক্লাবের সেই সম্ভাবনা রয়েছে। বার্সার ইতিহাসে যার কখনোই পরিবর্তন হয়নি।"

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক