আরেকটু ভালো করতে পারতাম, ঢাকায় ফিরে বললেন লেমোস

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ব্যর্থতায় কিছুটা প্রলেপ দেওয়ার লক্ষ্য নিয়ে শ্রীলঙ্কা গিয়েছিল বাংলাদেশ। লক্ষ্য পূরণের খুব কাছাকাছিও গিয়েছিল দল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত খালি হাতেই দেশে ফিরতে হয়েছে। ঢাকায় পা রেখে জাতীয় ফুটবল দলের অন্তর্বর্তীকালীন কোচ মারিও লেমোসও হতাশা মেশানো কণ্ঠে বললেন, শ্রীলঙ্কায় আরেকটু ভালো করতে পারত তার দল।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 Nov 2021, 10:51 AM
Updated : 18 Nov 2021, 10:51 AM

স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার কাছে হেরে প্রাইম মিনিস্টার মহিন্দা রাজাপাকসে ট্রফির রাউন্ড রবিন লিগ থেকে বিদায় নেয় বাংলাদেশ। ম্যাচটি ড্র করতে পারলেই ফাইনালে উঠত দল। ১-১ সমতায় লক্ষ্য পূরণের পথেই ছিল বাংলাদেশ, কিন্তু নির্ধারিত সময়ের শেষ মুহূর্তের গোলে ভাঙে স্বপ্ন।

সিশেলসের বিপক্ষে ড্রয়ের হোঁচট মালদ্বীপকে হারিয়ে কাটিয়ে উঠেছিল বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তাই ড্র করলেই মেলানো যেত সমীকরণ। কিন্তু খুব কাছে গিয়েও ছিটকে যাওয়ায় লেমোসের হতাশা একটু বেশিই।

“এটা হতাশার, আপনারা জানেন, আমরা ফাইনাল খেলার খুব খুব কাছাকাছি ছিলাম। আমাদের মূল লক্ষ্যও ছিল ফাইনাল খেলার, কিন্তু আমরা যেভাবে হেরেছি, সেটা ভীষণ হতাশার। আমি মনে করি, আমরা আরেকটু ভালো করতে পারতাম।”

“কিন্তু যেটা হয়ে গেছে, সেটা তো হয়েই গেছে। এখন আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। আমি আমার সেরাটা দিয়ে চেষ্টা করেছি, ছেলেরাও তাদের সর্বোচ্চটুকু দিয়ে চেষ্টা করেছে, কিন্তু হয়নি। আশা করি, পরের টুর্নামেন্টে ভালো হবে।”

সিশেলস ম্যাচে ৮৭তম মিনিটে; শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৯০ মিনিটে গোল হজম করে বাংলাদেশ। দেশে ফিরে টিম ম্যানেজার সত্যজিৎ দাস রুপু সব মিলিয়ে মনোযোগ হারানো সেই পাঁচ মিনিটকেই দুষলেন।

“আমাদের প্রত্যাশা ছিল ফাইনাল খেলার, চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কিন্তু চাওয়া পূরণ হয়নি। না হওয়ার কারণ যদি বিশ্লেষণ করি, তাহলে সিশেলসের বিপক্ষে শেষ তিন মিনিট ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে শেষ দুই মিনিটে আমাদের ম্যাচ হাতছাড়া হয়েছে।”

“এটা আসলে মনোযোগের অভাব। সেই সাথে গোল মিসের মহড়া এবং অপ্রত্যাশিতভাবে গোল খাওয়া…এসব কারণে এই ফল মেনে নিতে হচ্ছে। এটা আসলে প্রত্যাশিত নয়।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক