বিশাল জয়ে বুন্ডেসলিগা চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন

মৌসুমের শুরুর দিকে বারবার হোঁচট খেয়ে পিছিয়ে পড়া বায়ার্ন মিউনিখ শেষটা করল দুর্দান্ত। শেষ দিনে গড়ানো শিরোপা লড়াইয়ে আইনট্রাখট ফ্রাঙ্কফুর্টকে গোল বন্যায় ভাসিয়ে বুন্ডেসলিগার মুকুট ধরে রেখেছে প্রতিযোগিতার সফলতম দলটি।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 May 2019, 03:27 PM
Updated : 18 May 2019, 04:10 PM

আলিয়াঞ্জ অ্যারেনায় শেষ রাউন্ডে ৫-১ গোলে জিতেছে বায়ার্ন। চ্যাম্পিয়নদের পক্ষে একবার করে বল জালে পাঠান কিংসলে কোমান, ডাভিদ আলাবা, রেনাতো সানচেস, ফ্রাঙ্ক রিবেরি ও আরিয়েন রবেন।

একই সময়ে শুরু হওয়া আরেক ম্যাচে বরুসিয়া মনশেনগ্লাডবাখকে ২-০ গোলে হারানো বরুসিয়া ডর্টমুন্ড হয়েছে রানার্সআপ।

ডিসেম্বরে ডর্টমুন্ড ৯ পয়েন্টে এগিয়ে গেলে অনেকে শিরোপা লড়াই একরকম শেষ বলেই ধরে নিয়েছিল। তবে প্রতিপক্ষের পথ হারানোর সুযোগ দারুণভাবে কাজে লাগায় বায়ার্ন।

আর এপ্রিলে বরুসিয়াকে ৫-০ গোলে উড়িয়ে শীর্ষে উঠে আসে নিকো কোভাচের দল। গত সপ্তাহে লাইপজিগের মাঠে জিতলেই শিরোপা ঘরে রাখা নিশ্চিত হয়ে যেত বায়ার্নের; কিন্তু গোলশূন্য ড্র করে বসে তারা। সেই সঙ্গে বুন্ডেসলিগার ইতিহাসে প্রায় এক যুগ পর শেষ দিনে গড়ায় শিরোপা লড়াই। সেখানে জিতে রেকর্ড টানা সপ্তমবার চ্যাম্পিয়ন হলো দলটি।

শিরোপার হাতছানিতে মাঠে নামা বায়ার্ন চতুর্থ মিনিটেই এগিয়ে যায়। টমাস মুলারের পাস ডি-বক্সে পেয়ে কোনাকুনি শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন ফরাসি মিডফিল্ডার কোমান।

পরের ১০ মিনিটে ব্যবধান বাড়ানোর ভালো দুটি সুযোগ পেয়েছিল তারা। কিন্তু গোলরক্ষককে একা পেয়েও সফল হননি সের্গে জিনাব্রি ও রবের্ত লেভানদফস্কি। দুবারই দারুণ ক্ষিপ্রতায় ঠেকিয়ে দেন জার্মান গোলরক্ষক কেভিন ট্রাপ।

দ্বিতীয়ার্ধের পঞ্চম মিনিটে ফরাসি ফরোয়ার্ড সেবাস্তিয়াঁ আলেয়ার কাছ থেকে করা গোরে সমতায় ফেরে অতিথিরা। তাদের সে স্বস্তি অবশ্য স্থায়ী হয়নি।

তিন মিনিট পরেই আলাবার গোলে আবারও এগিয়ে যায় বায়ার্ন। মুলারের জোরালো শট গোলরক্ষক ঝাঁপিয়ে ঠেকালেও বিপদমুক্ত করতে পারেননি। আলগা বল ফাঁকায় পেয়ে জালে ঠেলে দেন অস্ট্রিয়ান মিডফিল্ডার আলাবা। আর ৫৮তম মিনিটে দুরূহ কোণ থেকে ডান পায়ের শটে ব্যবধান বাড়ান পর্তুগিজ মিডফিল্ডার সানচেস।

৭২তম মিনিটে ফ্রাঙ্ক রিবেরির দুর্দান্ত গোলে জয় নিশ্চিত হয়ে যায় বায়ার্নের। বাঁ দিক দিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে দুজনের মধ্যে দিয়ে দারুণ ক্ষিপ্রতায় এগিয়ে গিয়ে বল জালে পাঠান ১০ মিনিট আগে বদলি নামা ফরাসি এই উইঙ্গার।

রিবেরির মতো মৌসুম শেষে বায়ার্ন ছাড়তে যাওয়া আরেক ফরোয়ার্ড রবেন ৭৮তম মিনিটে গোল উৎসবে যোগ দেন। আগুয়ান গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে আলাবার বাড়ানো বল ধরে ফাঁকা জালে জড়ান ডাচ ফুটবলার রবেন।

জার্মানির শীর্ষ প্রতিযোগিতায় এ নিয়ে রেকর্ড ২৯টি শিরোপা জিতল বায়ার্ন। ৩৪ ম্যাচে ২৪ জয় ও ছয় ড্রয়ে ৭৮ পয়েন্ট নিয়ে লিগ শেষ করল তারা।

সামনে সুযোগ এবার ঘরোয়া ডাবল জয়ের। আগামী শনিবার জার্মান কাপে লাইপজিগের মুখোমুখি হবে এই প্রতিযোগিতারও রেকর্ড চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন। 

২৩ জয় ও সাত ড্রয়ে রানার্সআপ হওয়া ডর্টমুন্ডের পয়েন্ট ৭৬। ৬৬ পয়েন্ট নিয়ে লাইপজিগ তৃতীয় ও ৫৮ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ হয়েছে লেভারকুজেন।

বরুসিয়া মনশেনগ্লাডবাখ ষষ্ঠ ও ভলফসবুর্ক সপ্তম হয়ে ইউরোপা লিগের গ্রুপ পর্বের টিকেট পেয়েছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক