আবাহনী কোচের অনুপ্রেরণা পর্তুগাল!

আবাহনী লিমিটেডের প্রতিষ্ঠাতা শেখ কামালের নামে টুর্নামেন্ট; কিন্তু গতবার এই আসরে ভীষণ হতাশ করেছিল দলটি। বিদায় নিয়েছিল গ্রুপ পর্ব থেকে। চলতি মৌসুমে ফেডারেশন কাপ ও প্রিমিয়ার লিগ শিরোপা জেতা আবাহনী এবার তাই উন্মুখ হয়ে আছে গতবারের ব্যর্থতা ঝেড়ে সাফল্যের উৎসবে মাততে। এজন্য দলটির কোচ দ্রাগো মামিচ অনুপ্রেরণা নিচ্ছেন পর্তুগালের ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ জয় থেকে!

ক্রীড়া প্রতিবেদকচট্টগ্রাম থেকে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 Feb 2017, 03:40 PM
Updated : 18 Feb 2017, 03:20 AM

আবাহনীর পথচলাটা এবারও কঠিন। ডেথ গ্রুপ ‘এ’তে তাদের সঙ্গে আছে এফসি আলগা, পচেয়ন সিনিজেন ক্লাব ও টিসি স্পোর্টস। এফসি আলগা কিরগিজস্তানের ঘরোয়া লিগের চ্যাম্পিয়ন। টিসি স্পোর্টস মালদ্বীপের ঘরোয়া লিগের গতবারের রানার্সআপ। দক্ষিণ কোরিয়ার দল পচেয়ন দেশটির চতুর্থ সারির লিগ কেথ্রির পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন। শনিবার বেলা ৭টায় টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচে আবাহনীর প্রতিপক্ষ টিসি স্পোর্টস।

দুই শিরোপা জিতিয়ে জর্জ কোটান চলে যাওয়ার পর আবাহনীর ফের হাল ধরেছেন মৌসুমের শুরুতে কিছুদিনের জন্য দলটির দায়িত্বে থাকা দ্রাগো মামিচ। ক্রোয়েশিয়ার এই কোচ শুক্রবার চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে অনুশীলনে নামার আগে জানালেন লক্ষ্যটা।

“যেকোনো টুর্নামেন্টের আগে সবাই সেরা ফলটা পেতে চায় এবং আমিও শিরোপাটাই জিততে চাই, কেননা আমরা লিগের চ্যাম্পিয়ন। আবাহনীতে জাতীয় দলের অনেক খেলোয়াড় আছে; আমরাও ভালো অবস্থায় আছি।”

“আপনাদের একটা কথা বলছি, গত ইউরোতে পর্তুগাল ফেভারিট ছিল না কিন্তু তারা অন্য ফেভারিটকে ছিটকে দিয়েছিল। আমি আশাবাদী যে (গ্রুপ যত কঠিন হোক না কেন) আমরা লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারব।”

স্ত্রীর অসুস্থতায় হঠাৎ করে চলে যাওয়ার পর ফেরা মামিচ এবার প্রস্তুতির জন্য খুব বেশি সময় পাননি। তাই লক্ষ্য পূরণে জুয়েল-জীবনরা কিভাবে সাড়া দেয়, তা নিয়ে কিছুটা দোটানায় তিনি।

“প্রস্তুতি নিয়ে খুব বেশি কিছু বলতে পারব না; কেননা আমি আসার পর মাত্র ১০ দিন অনুশীলন করতে পেরেছি। একটা প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছি; সেখানে যেটা দেখেছি, তাতে আমি খুশি। তবে এই টুর্নামেন্টে পাঁচ দিনের মধ্যে ছেলেরা তিনটা ম্যাচ কিভাবে খেলবে, কেমন খেলবে, তা বলতে পারছি না।”

ট্রেবল জেতার লক্ষ্য জানালেও টুর্নামেন্টের সাত প্রতিপক্ষকে সমীহ করতে ভোলেননি মামিচ, “অন্য দেশ থেকে যে দলগুলো এসেছে, আমি নিশ্চিত তারাও শক্তিশালী। মালদ্বীপের দলটাও সহজ নয়। এই দলগুলোর বিপক্ষে খেলে বাংলাদেশের ফুটবলকে তুলে ধরা আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ হবে।”

তবে চ্যালেঞ্জটা নিচ্ছেন মামিচ। শুরুটাও টিসি স্পোর্টসকে হারিয়েই করতে চান এই ক্রোয়েশিয়ান, “শুরুটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমরা চেষ্টা করব সেরা ফল অর্থাৎ জয় দিয়ে টুর্নামেন্টটা শুরু করতে। কোনা দল সহজ নয়; কোনো পয়েন্টও সহজ নয়। সব দলের বিপক্ষে আপনাকে সামর্থ্যের সর্বোচ্চটুকু দিয়ে খেলতে হবে। এটা হলেই আমরা কাল জিততে পারব।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক