বোল্টের ‘ট্রিপল ট্রিপল’

ব্যাটন হাত বদলে হলো না কোনো গোলমাল; ৪*১০০ মিটার রিলেতে বোল্টের জ্যামাইকা দলকেও পেছনে ফেলা গেল না। শেষ লেগে ব্যাটন হাতে নিয়ে বরাবরের মতোই অনায়াসে সবার আগে দৌড় শেষ করলেন উসাইন বোল্ট। হয়ে গেল তার অনন্য ‘ট্রিপল ট্রিপল’।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 20 August 2016, 01:47 AM
Updated : 20 August 2016, 07:14 AM

বেইজিং-লন্ডন-রিও, টানা তিন অলিম্পিকেই ১০০ ও ২০০ মিটার স্প্রিন্ট এবং ৪*১০০ মিটার রিলেতে সোনা জিতলেন বোল্ট। স্পর্শ করলেন ফিনল্যান্ডের মাঝারি ও দূরপাল্লার দৌড়বিদ পাভো নুর্মি ও যুক্তরাষ্ট্রের স্প্রিন্টার কার্ল লুইসকে। অলিম্পিক ইতিহাসে অ্যাথলেটিক্সে ৯টি সোনা আছে কেবল এই তিনজনেরই।

বিশ্বরেকর্ডের সাবেক মালিক আসাফা পাওয়েল, ইয়োহান ব্লেক ও নিকেল অ্যাশমিডের হাত ঘুরে ব্যাটন যখন বোল্টের হাতে আসে, তখন জ্যামাইকা সামান্য এগিয়ে। ১০০ ও ২০০ মিটারে বিশ্ব রেকর্ডের মালিক দৌড় শেষ করলেন ব্যবধানটা প্রায় ৫ মিটার বাড়িয়ে।

রিও অলিম্পিকের চতুর্দশ দিনে বাংলাদেশ সময় শনিবার পৌনে আটটার দিকে অলিম্পিকে বোল্টের শেষ দৌড়ে জ্যামাইকা দল সময় নেয় ৩৭.২৭ সেকেন্ড। 

সবাইকে চমকে দিয়ে ৩৭.৬০ সেকেন্ড সময় নিয়ে রুপা জেতে জাপান। তৃতীয় হয়ে পতাকা নিয়ে পুরো স্টেডিয়াম চক্কর দেওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্র দল জানতে পারে ডিসকোয়ালিফাইড করা হয়েছে তাদের। ব্রোঞ্জ দেওয়া হয় কানাডাকে।

১০০ ও ২০০ মিটারে সোনা জেতার পর বরাবরের মতোই বিভিন্ন অঙ্গভঙ্গিতে উদযাপন করেছেন বোল্ট। এবার তিনি ছিলেন সতীর্থদের উৎসবের মধ্যমণি। রিওর তৃতীয় সোনটা জেতার পর তিন সতীর্থের সঙ্গে নেচে উদযাপন করেন দুই দিন পরই ৩০তম জন্মদিন পালন করতে যাওয়া এই বিখ্যাত জ্যামাইকান। তারপর চুমু খান ট্র্যাকে; অলিম্পিকে আর যে আসা হবে না সর্বকালের অন্যতম সেরা এই অ্যাথেলেটের। আগামী বছর বিশ্বচ্যাম্পিয়নে অংশ নিয়ে অবসরের ঘোষণা আগেই দিয়ে রেখেছিলেন তিনি।

আগেই বলেছিলেন টানা তিন অলিম্পিকে টানা তিন ইভেন্টে সোনা জিতে অমরত্ব চান তিনি। নিজেকে ঘোষণা করে ছিলেন ‘সবার সেরা’। অলিম্পিকের শেষ রেসে জিততে না পারলে যে এই দাবি জোরালো হবে না সেটা জানতেন বোল্ট। তাই  ‘ট্রিপল ট্রিপল’ হওয়ার পর সাংবাদিকদের বললেন, “আমি সবার সেরা। আমি ভারমুক্ত যে এটা হয়েছে। আমি খুশি, নিজের উপর গর্বিত। স্বপ্নটা সত্যি হয়েছে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক