নকলায় ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙন রোধে মানববন্ধন

মানববন্ধন থেকে অবিলম্বে নদী ভাঙন রোধে প্রধানমন্ত্রীসহ স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে।

শেরপুর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 August 2022, 05:46 PM
Updated : 4 August 2022, 05:46 PM

শেরপুরের নকলা উপজেলায় ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙন রোধে কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।

বৃহস্পতিবার দুপুরে চর অষ্টধর ইউনিয়নের নারায়খোলা দক্ষিণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ ও ব্রহ্মপুত্র নদের পাড়ে এ মানববন্ধন হয়।

এলাকাবাসীর উদ্যোগে এ কর্মসূচিতে নদী ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত শতাধিক মানুষ ও শিক্ষার্থীরা অংশ নেন। তারা অবিলম্বে নদী ভাঙন রোধে প্রধানমন্ত্রীসহ স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

মানববন্ধনকারীরা বলেন, নকলা উপজেলার কেজাইকাটা থেকে চর বসন্তি পর্যন্ত প্রায় দুই কিলোমিটার অংশে এ ভাঙন শুরু হয়েছে। কয়েক বছরে এলাকার বিপুল মানুষ এই নদের ভাঙনে ভিটেমাটি ও ফসলি জমি হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে গেছে। গত বছর একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মসজিদসহ কবরস্থান ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙনে বিলীন হয়ে গেছে।

মানববন্ধনে অংশ নেওয়া সরকারি হাজী জালমামুদ ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক শরিফ আহমেদ খান বলেন, “বিগত কয়েক বছর ধরে এ অঞ্চলের মানুষ ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙনে সহায়-সম্বলহীন হয়ে গেছে। কিন্তু স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে ভাঙন রোধে কার্যকর কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।”

নকলার চর অষ্টধর ইউনিয়নের নারায়খোলা দক্ষিণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রাজীব বলেন, “এলাকার একমাত্র প্রাথমিক বিদ্যালয়টি নদী ভাঙনে বিলীন হওয়ার পথে। বিদ্যালয়টি নদীগর্ভে বিলীন হলে এ অঞ্চলের ছেলে-মেয়েদের পড়াশোনা নিয়ে আমরা চিন্তিত।”

স্থানীয় কৃষক বারেক মিয়ার ভাষ্য, “ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙনে আমার চার একর জমি বিলীন হয়ে আজ আমি সহায় সম্বলহীন হয়ে অন্যের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছি।”

নকলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বুলবুল আহমেদ জানান, ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙন রোধে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জামালপুর জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু সাইদ জানান, নকলার ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙন এলাকায় বাঁধ নির্মাণের প্রয়োজনীয় অর্থ এ মুহূর্তে বরাদ্দ নেই। তবে ভাঙন এলাকায় পরিদর্শন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক