বঙ্গবন্ধুর ভাষণে স্বাধীনতার ঘোষণা ও সংবিধান প্রসঙ্গ

মোহাম্মাদ মাহবুবুর রহমান জালাল
Published : 11 Oct 2020, 10:16 PM
Updated : 11 Oct 2020, 10:16 PM

মুক্তিযুদ্ধের পরেও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিভিন্ন সময়ে স্বাধীনতার ঘোষণার স্মৃতিচারণ এবং সংবিধান নিয়ে কথা বলেছেন। এসব বিষয়ে তার বেশ কিছু বক্তৃতা ও সাক্ষাৎকার সংবাদপত্র, অডিও-ভিডিও এবং দলিল ঘেঁটে একটি সংকলন করার চেষ্টা করা হয়েছে। 

মুক্তিযুদ্ধের সময় সংঘটিত গণহত্যা নিয়ে কাজ করা গবেষণাধর্মী প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর বাংলাদেশ জেনোসাইড রিসার্চ (সিবিজিআর) এ সংকলনটি করেছে। 

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের পাঠকদের জন্য সেগুলো নিচে দেওয়া হলো- 

এক

He Tells Full Story of Arrest and Detention: Sheik Mujib Describes Arrest and Detention

By SYDNEY H. SCHANBERG 

"He had made some secret preparations for such an attack. At 10:30 P.M. he called a clandestine headquarters in Chittagong, the southeastern port city and dictated a last message to his people, which was recorded and later broadcast by secret transmitter. 

The gist of the broadcast was that they should resist any army attack and fight on regardless of what might happen to their leader. He also spoke of independence for the 75 million people of East Pakistan. Sheikh Mujib related that after sending his message he ordered away the men of the East Pakistan Rifles, a para-military unit, and of the Awami League, his political party, who were guarding him."

Special to The New York Times, New York Times – Jan 18, 1972

দুই

Bangabandhu's interview by David Frost

Here we publish an excerpt of the transcript of interview telecast in The David Frost Show, WNEW-TV, New York on January 18, 1972

Sheikh Mujibur: I dont say that, but I say that they love me. I love them and I wanted to save their lives. But those brutes arrested me, destroyed my house, destroyed my village home where my old parents are living. My father was 90 years of age, my mother was 80 years of age. They were living in my village house, my ancestral house in the interior of the village. They sent the army, drove my father and mother from the house and burned the house in front of them. So they had no shelter. This way they have burned everything. I thought if they get me at least they will not kill my unfortunate

people. But I know, my Party is sufficiently strong enough. I have organised a Party and the people who are behind it will fight it out. I told them, you must fight every inch. I have told them it might be my last order until and unless you get emancipation. You continue fighting.

Bangladesh Documents, Vol II, MEA, Govt of India 1972, Page 615.

তিন (ক)

Serve people selflessly: Mujib

The Bangladesh Observer, April 8, 1972

"Last declaration He disclosed that he had told Mr. Zahur Ahmed Chowdhury (now Minister) of Chittagong on the 25th night to broadcast his declaration of independence over the (former) EPR wireless network as he had Chittagong in our control. I told him that this could be his last message and urged party workers to go to their respective areas to build up resistance,"

The Bangladesh Observer April 8, 1972

(খ) 

Bangabandhu's call to partymen

The Morning News, April 8 , 1972 .

"He disclosed that he had told Mr. Zahur Ahmed Chowdhury (now Minister) of Chittagong on the 25th night to broadcast his declaration of independence over the (former) EPR wireless network as he had Chittagong in our control. I told him that this could be his last message and urged party workers to go to their respective areas to build up resistance,"

The Morning News , April 8 , 1972

চার

১৯৭২ সালে বাংলাদেশ গণপরিষদের প্রথম অধিবেশনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কর্তৃক স্বাধীনতা ঘোষণা সম্পর্কীয় প্রস্তাব-

"…কিন্তু তারা অতর্কিতে ২৫শে মার্চ তারিখে আমাদের আক্রমণ করল। তখন আমরা বুঝতে পারলাম যে,আমাদের শেষ সংগ্রাম শুরু হয়ে গেছে। আমি ওয়ারলেসে চট্টগ্রামে জানালাম বাংলাদেশ আজ থেকে স্বাধিন ও সার্বভৌম রাষ্ট্র। এই খবর প্রত্যেককে পৌছিয়ে দেওয়া হোক,যাতে প্রতিটি থানায়,মহকুমায়,জেলায় প্রতিরোধ সংগ্রাম গড়ে উঠতে পারে। সেই জন্য প্রয়োজনীয় নির্দেশও দিয়েছিলাম। এই ব্যাপারে আত্মসচেতন হতে হবে।"

বাংলাদেশ গণপরিষদ বিতর্ক,সরকারী বিবরণী,পৃ-১৪, ১০ এপ্রিল, ১৯৭২।

পাঁচ (ক)

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণ

৭-জুন-১৯৭২,ঢাকা

"…রাত্রে আমি চট্টগ্রামে নির্দেশ পাঠালাম। আগে যাকে ইপিআর বলা হতো, তাদের সদর দফতর ছিল চট্টগ্রামে। পিলখানা হেডকোয়ার্টার তখন শত্রুরা দখল করে নিয়েছে। ওদের সাথে আমার যোগাযোগ ছিল। আমি যখন পিলখানার সাথে যোগাযোগ করতে পারলাম না তখন আমি চট্টগ্রামের সাথে যোগাযোগ করে বললাম,আজ থেকে বাংলাদেশ স্বাধীন। তোমরা বাংলার সব জায়গায় ওয়ারলেসে এ খবর দিয়ে দাও। পুলিশ হোক, সৈন্য বাহিনী হোক, আওয়ামী লীগ হোক, ছাত্র হোক, যে যেখানে আছে, পশ্চিমাদের বাংলা থেকে খতম না করা পর্যন্ত যুদ্ধ চালিয়ে যাও। বাংলাদেশ স্বাধীন। তারা আমার কথা মত খবর পৌঁছিয়েছিল।"

বঙ্গবন্ধুর ভাষণ, ডিএফপি পৃষ্ঠা-৫৫।

(খ)

আবেগময় একটি মুহূর্ত

পূর্বদেশ ৮ জুন, ১৯৭২।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বলেন, বাঙ্গালী জাতিকে নিশ্চিহ্ন করার জন্য উন্মাদ ইয়াহিয়ার সেনা বাহিনীর বাঙ্গালীদের উপর ঝাপিয়ে পড়ার মুহূর্তে ১৯৭১ সালের ২৫শে মার্চ রাত ১১ টায় তিনি স্বাধীনতা ঘোষণা করেছিলেন।

স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র প্রথমে তিনি চট্টগ্রামের তৎকালীন ই, পি,আর বাহিনীর কাছে তার যোগে প্রেরণ করেন এবং এই ঘোষণা বাঙ্গালী সৈন্য ও আওয়ামী লীগ কর্মীদের জানিয়ে দেওয়ার আদেশ দেন। তিনি আদেশে পাকিস্তানী দস্যু বাহিনীর মোকাবিলা করার জন্যও নির্দেশ দিয়েছিলেন। তিনি স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রে বলেছিলেন, "এই মুহূর্তে থেকে বাংলাদেশ স্বাধীন।"

পূর্বদেশ ৮ জুন, ১৯৭২।

ছয় (ক)

(অডিও) ২৪ বৎসরের ইতিহাস রক্তের ইতিহাস,

২৪ বৎসরের ইতিহাস অত্যাচার, নিপীড়নের ইতিহাস

"শুধু ২৫ তারিখ রাত্রে যখন সামরিক বাহিনীর লোকেরা আমার ওপর মেশিনগান মারতে শুরু করল, সেই মুহূর্তে আমি বুঝলাম, এই আমার জীবনের শেষ। তাই আমি টেলিফোন করে আমি খবর দিলাম আমার বিডিআর হেড কোয়ার্টারে চট্টগ্রাম। আজ থেকে বাংলাদেশ স্বাধীন, আমার জীবনে তোমাদের সঙ্গে দেখা হতে না পারে, বাংলার ঘরে ঘরে জানিয়ে দাও, যে পর্যন্ত এই পৈশাচিক বাহিনী বাংলাদেশ থেকে বিতাড়িত না হবে, যে পর্যন্ত না সাত কোটি মানুষ স্বাধীনতা না পাবে সংগ্রাম চালিয়ে যাও। যুদ্ধ করো, জীবন দাও, নমরুদদের জ্বালিয়ে দাও।"

৩ জুলাই ১৯৭২, কুষ্টিয়া

অডিও ক্লিপ- পিপলস ভয়েস, অধ্যাপক আবু সাইয়িদ,

প্রকাশনা – শেকড় সন্ধান

(খ)

Bangabandhu Call's.

"Bangabandhu recalled that when the Pakistani hordes were machine gunning his house on the fateful night of the March 25 he had realized that the zero hour had arrived and contacted the then EPR headquarters in Chittagong to declared independence. He asked them to carry on fighting till the independence was achieved."

3 JULY 1972-The Bangladesh Observer

৭ (ক)  

Help attain economic emancipation.

"Going back to rare moments of history. Bangobandhu Sheikh Mujibur Rahman said: "I declared Independence on March 26". He said despite his being arrested the movement had continued under the leadership of Syed Nazrul Islam and Mr. Tajuddin Ahmed. The Communist Party of Bangladesh and National Awami Party (Muzaffar) had also lent support. He said on March 15, 1971 the Pakistani soldier attacked the Bangladesh police, Bengali officers in the Army and started genocide on the Bangalies. He said the Awami League had not been caught unawares because the resistance movement was already launched. The Awami League, he said, had organised the party for the battle in every sub-division where commanders were poised for it."

The Bangladesh Observer January 19, 1974

(খ)

আত্মসমালোচনা আত্মসংযম আত্মশুদ্ধি চাই।

"…২৫শে মার্চ আমি যখন স্বাধীনতা ঘোষণা করলাম, আমি যখন বাংলার মানুষকে ডাক দিলাম, আমি গ্রেপ্তার হয়ে গেলাম। কিন্তু আমার সহকর্মীরা আমার অসাক্ষাতে স্বাধীনতা আন্দোলন দিয়েছে। উপরের থেকে পরে নাই। নজরুল ছিলো প্রেসিডেন্ট হয়েছিলো, (আমি, অ্যাকটিং প্রেসিডেন্ট**), আমাকে প্রেসিডেন্ট করে। তাজউদ্দীন সেক্রেটারি প্রাইম মিনিস্টার হয়েছিলো। তারা দেশের এই সংগ্রাম চালায়।…"

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দ্বিবার্ষিক অধিবেশন জানুয়ারী ১৮, ১৯৭৪।

অডিও ক্লিপ- পিপলস ভয়েস, অধ্যাপক আবু সাইয়িদ, প্রকাশনা – শেকড় সন্ধান

(গ

অর্থনৈতিক মুক্তির নয়া সংগ্রামের ডাক।

তিনি বলেন, "প্রকৃতপক্ষে একাত্তরের  ৭ই মার্চেই  আমি স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলাম। ২৫শের রাতে সহকর্মীদের এ সম্পর্কে নির্দেশ দিয়েছিলাম।" তিনি বলেন, "তবে  এর প্রস্তুতি নিয়েছিলাম বহু আগে থেকেই। প্রস্তুতি ছাড়া একই সাথে ৫৮টি মহকুমায় প্রতিরোধ গড়ে তোলা সম্ভৰ হতো না। তিনি বলেন, সামান্য যা অস্ত্র জোগাড় করা সম্ভব হয়েছিল তাই বিতরণ করা হয়েছিল।

দৈনিক বাংলা, জানুয়ারি ১৯, ১৯৭৪ 

৮ (ক)

(ভিডিও) বাংলাদেশ রাইফেলস-এর তৃতীয় দলের শিক্ষা সমাপনী অনুষ্ঠান ৫ ডিসেম্বর ১৯৭৪ , পিলখানা, ঢাকা

"আপনারা সকলেই জানেন, বাংলাদেশের সাড়ে ৭ কোটি মানুষ জানে, যে পাকিস্তানের বর্বরবাহিনী যেদিন বাংলার মানুষের ওপর আঘাত হেনেছিল, বাংলাদেশকে নিশ্চিহ্ন করার চেষ্টা করেছিল সেদিন আমার মনে আছে ২৫শে মার্চ তারিখে এই ঐতিহাসিক পিলখানার ওপর তারা আক্রমণ চালায়। তারা আক্রমণ চালায় রাজারবাগ, তারা আক্রমণ চালায় বিশ্ববিদ্যালয়, তারা আক্রমণ চালায় আমার বাসভবনে। সেদিন আমি যখন পিলখানায় কনটাক্ট করার চেষ্টা করি আমি দেখতে পাই যে পিলখানার ওপর আঘাত হানে, চরম আঘাত।

আমি বাধ্য হয়ে এই বাংলাদেশ রাইফেলের চট্টগ্রাম বাহিনীর হেড কোয়ার্টারের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করার চেষ্টা করি। সেখানে আমার মেসেজ পাঠিয়ে দেই। তারা সেই মেসেজ বাংলার গ্রামে গ্রামে পৌঁছিয়ে দেয়।"

ভিডিও, বিএফএ, ৫ ডিসেম্বর ১৯৭৪, পিলখানা, ঢাকা।

(খ)

CRUSH SMUGGLERS

He said that on March 25 night, he tried to contact the BDR camp at Peelkhana but failing to do so established contact with Chittagong BDR camp and transmitted his message of Independence .

The Bangladesh Times, December 6, 1974.

(গ) 

জনতার ঢল নেমেছিলো

রাষ্ট্রপতি বলেন যে, বর্বর পাকিস্তানী বাহিনী যখন পীলখানা, সার্জেন্ট জহুরুল হক হল ও তাঁর নিজ বাসভবনে ১৯৭১ সালের ২৫শে মার্চের রাতে হামলা চালিয়েছিলো, তখন দেশকে মুক্ত করতে দখলদার বাহিনীর বিরুদ্ধে সর্বাত্মক যুদ্ধ শুরু করার নির্দেশ দিয়ে তিনি মরহুম জহুর আহমেদ চৌধুরী ও জনাব এম আর সিদ্দিকির কাছে বার্তা পাঠান।

রোববারের দৈনিক বাংলা, জুন ১৫, ১৯৭৫।

উপরে উল্লেখিত ভাষণের কোথাও বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার ঘোষণায় কী (ট্রান্সক্রিপ্ট বা টেক্সট) বলেছেন তা উল্লেখ নেই। ট্রান্সক্রিপ্ট বা টেক্সট আমরা প্রথম অফিসিয়ালি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক্সটারনাল পাবলিসিটি ডিপার্টমেন্ট থেকে প্রকাশিত 'বঙ্গবন্ধু স্পিকস' (Bangabandhu Speaks) ১৯৭২, নামক বই থেকে পাই।

সেখানে লেখা-

.

Declaration of Independence

EPD-MoFA

Declaration of Independence

"THIS MAY BE MY LAST MESSAGE, FROM TODAY BANGLADESH IS INDEPENDENT. I CALL UPON THE PEOPLE

OF BANGLADESH WHEREVER YOU MIGHT BE AND WITH

WHATEVER YOU HAVE, TO RESIST THE ARMY OF OCCUPATION TO THE LAST. YOUR FIGHT MUST GO ON

UNTIL THE LAST SOLDIER OF THE PAKISTAN OCCUPATION

ARMY IS EXPELLED FROM THE SOIL OF BANGLADESH AND

FINAL VICTORY IS ACHIEVED".

" [ Message embodying Declaration of Independence

sent by Bangabandhu Sheikh Mujibur Rahman to

Chittagong shortly after midnight of 25th March, i.e. early hours of 26th March, 1971 for transmission throughout Bangladesh over the ex-EPR Transmitter. ]"

সূত্র: বঙ্গবন্ধু স্পিকস ( Bangabandhu Speaks) ১৯৭২।

১০

Bangladesh Constitution

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধান ক্রান্তিকালীন ও অস্থায়ী বিধানাবলী সম্পর্কিত ১৫০(২) অনুচ্ছেদে উল্লেখ করা হয়েছে, ষষ্ঠ তফসিলে বর্ণিত ১৯৭১ সালের ২৬শে মার্চ তারিখে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কর্তৃক বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণার টেলিগ্রাম হলো বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও মুক্তি সংগ্রামের ঐতিহাসিক ভাষণ ও দলিল, যা উক্ত সময়কালের জন্য ক্রান্তিকালীন ও অস্থায়ী বিধানাবলী বলে গণ্য হবে।

১১

Bangladesh Constitution

ষষ্ঠ তফসিলে বর্ণিত ১৯৭১ সালের ২৬শে মার্চ তারিখে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কর্তৃক বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা 

SIXTH SCHEDULE

[Article 150(2)]

DECLARATION OF INDEPENDENCE BY THE FATHER OF THE NATION, BANGABANDHU SHEIKH MUJIBUR RAHMAN SHORTLY AFTER MIDNIGHT OF 25TH MARCH, i.e. EARLY HOURS OF 26TH MARCH, 1971

"This may be my last message, from today Bangladesh is independent. I call upon the people of Bangladesh wherever you might be and with whatever you have, to resist the army of occupation to the last.

Your fight must go on until the last soldier of the Pakistan occupation army is expelled from the soil of Bangladesh and final victory is achieved.

Sheikh Mujibur Rahman,

26 March, 1971"

কৃতজ্ঞতা: রায়হান জামিল, বিদ্যুৎ দে , সুকোমল মোদক, রাজিবুল বারী পলাশ, সাইফুর রহমান, কামরুল আহসান

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক