সুকেশ চন্দ্রশেখরের অর্থ পাচারে ফাঁসলেন জ্যাকুলিন

ভারতের আর্থিক গোয়েন্দারা বলছে, সুকেশের কাছ থেকে অন্তত ৫ কোটি রুপির উপহার পেয়েছেন জ্যাকুলিন।

গ্লিটজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 August 2022, 02:04 PM
Updated : 17 August 2022, 02:04 PM

‘প্রতারক’ সুকেশ চন্দ্রশেখরের ২০০ কোট রুপি পাচারের মামলায় আসামি হচ্ছেন বলিউড তারকা জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজ।

এনডিটিভি জানিয়েছে, ভারতের আর্থিক খাতের গোয়েন্দা সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) বুধবার চন্দ্রশেখরের মামলায় দিল্লির আদালতে যে সম্পূরক অভিযোগপত্র জমা দিয়েছে, সেখানেই এসেছে এ নায়িকার নাম।

ভারতীয় পত্রিকাগুলো লিখেছে, সুকেশ চন্দ্রশেখরের অর্থ পাচারে সহযোগিতা করার অভিযোগ আসায় জ্যাকুলিনকে গ্রেপ্তারও করা হতে পারে।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, দুই ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ২১৫ কোটি টাকা চাঁদা নেওয়ার অভিযোগে সুকেশকে ২০২১ সালে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এরপর সুকেশের অর্থ পাচারের তদন্তে নামে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট।

তখনই অভিনেত্রী জ্যকুলিনের সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠতার কথা প্রকাশ্যে আসে। তাদের ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের কয়েকটি ছবিও ছড়িয়ে পড়ে ইন্টারনেটে।

শ্রীলঙ্কা থেকে এসে ২০০৯ সালে বলিউডে ক্যারিয়ার শুরু করা জ্যাকুলিনকে কয়েক দফায় ডেকে জেরা করেন ইডির গোয়েন্দারা। তখন থেকেই এ অভিনেত্রীর সাত কোটি রুপির সম্পত্তি বাজেয়াপ্তও করে রেখেছে ইডি।

প্রথমে অস্বীকার করলেও পরে এই অভিনেত্রী জানান, ২০১৭ সাল থেকে সুকেশের সঙ্গে তার পরিচয়। তিহার জেল থেকে সুকেশ যে তার সাথে যোগাযোগ রাখছিলেন, সে কথা তিনি স্বীকার করেন।

সুকেশ চন্দ্রশেখরের বিরুদ্ধে দেওয়া প্রথম অভযোগপত্রে ইডি দেখিয়েছিল, চাঁদাবাজি করে পাওয়া অর্থ কী করে তিনি পাচার করেছেন। আর সম্পূরক অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, সুকেশের কাছ থেকে অন্তত ৫ কোটি ৭১ লাখ রুপির উপহার পেয়েছেন জ্যুকুলিন, যার উৎস সেই পাচার হওয়া অর্থ।

ইডি বলছে, এসব উপহার যে সুকেশের অবৈধ অর্থে কেনা, অভিনেত্রী জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজ ‘তা জানতেন’। উপহারগুলো তাকে পৌঁছে দিতেন সুকেশের দীর্ঘদিনের সহকর্মী পিংকি ইরানি।

সুকেশের কাছ থেকে পাওয়া জ্যাকুলিনের দামি উপহারগুলোর মধ্যে রয়েছে বায়ান্ন লাখ রুপি দামের একটি ঘোড়া, নয় লাখ রুপির একটি পার্সিয়ান বেড়াল।

এই বলিউড তারকার পরিবারের সদস্যদেরও সুকেশ বিভিন্ন সময়ে উপহার পাঠিয়েছেন বলে উঠে এসেছে ইডির তদন্তে।

এ মামলায় সুকেশ ছাড়াও তার স্ত্রী লীনা মারিয়া পালসহ আটজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক