‘গল্প রেডি না করেই’ ফোন দিচ্ছে: মিম

পরাণ হিট হওয়ার পরও মিমের পা মাটিতেই।

গ্লিটজ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 14 August 2022, 01:31 PM
Updated : 14 August 2022, 01:31 PM

‘পরাণ’ হিট হওয়ার পর এখন চলচ্চিত্র নির্মাতাদের কাছে কদর বেড়েছে বিদ্যা সিনহা মিমের।

এমনকি গল্প-চিত্রনাট্য তৈরির আগেই নির্মাতারা তাকে সিনেমায় চাইছেন বলে দাবি করেছেন এই অভিনেত্রী।

মিমি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “এখন তো সিনেমা নির্মাণই কম। তারপরও অনেকেই ফোন দিচ্ছেন। কারও কারও গল্পই রেডি না; সিনেমা প্ল্যানিং লেভেলে, এই অবস্থায়ই আমাকে কনফার্ম করতে চাইছেন। স্ক্রিপ্ট রেডি হওয়ার আগেই অনেকে ফোন দিচ্ছেন। খুবই ভালো লাগছে বিষয়টা।”

পরাণ মিমের ক্যারিয়ারের অষ্টাদশ সিনেমা। মুক্তির মাস পেরিয়েছে, তবে এখনও হাউজফুল অধিকাংশ শো।

রোববার ১৩টি মাল্টিপ্লেক্সে ৩২টি শো নিয়ে শুরু হয়েছে পরাণের অস্ট্রেলিয়া যাত্রা। এরমধ্যে ২৩টি শোয়ের অগ্রিম টিকেট শেষ। যুক্তরাষ্ট্র, কানাডাও অপেক্ষা করছে পরাণের জন্য।

এমন ব্লকবাস্টার হিটের দেখা পেয়ে উচ্ছ্বসিত মিম। এমনটা তিনি আশাও করেননি।

তিনি বলেন, “মনপুরার পর বাংলা সিনেমা দেখার জন্য দলে দলে হলে যাওয়ার ঘটনা আর নেই। হলের ভিড় দেখে মনে হচ্ছে, আজই মুক্তি পেয়েছে সিনেমাটি। অনেক মানুষ এখনো টিকেট পাচ্ছেন না। কেউ কেউ আমাকে ফোন দিচ্ছেন টিকেটের জন্য।

“ব্যবসার দিক থেকে বেদের মেয়ে জোছনাকেও ছাড়িয়ে গেছে পরাণ। আমি কেন, কেউই ভাবেননি পরাণ এত ভালো ব্যবসা করবে। ২০২২ সালে এসে একটা সিনেমা এমন ব্যবসা করবে, বিষয়টা পুরোপুরি চিন্তার বাইরে ছিল।”

পরাণের আয় দিয়ে চারটি সিনেমা বানানো যাবে জানিয়ে মিম বলেন, “প্রডিউসার নিজেই বলেছেন, লগ্নির পাঁচ গুণ টাকা অলরেডি উঠে এসেছে পরাণ থেকে। একটা সিনেমার আয় দিয়ে আরও তিন থেকে চারটা সিনেমা বানানো যাবে।

“আজ কেবল অস্ট্রেলিয়ায় মুক্তি পেল। এরপর যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও মধ্যপ্রাচ্যে যাবে। ওটিটি থেকেও বড় আয় করবে পরাণ। সব মিলিয়ে সিনেমাটির আয় বাংলা সিনেমার সকল রেকর্ড ছাড়িয়ে যাবে বলে আমার বিশ্বাস।”

এতকিছুর পরেও মাটিতেই পা রাখছেন মিম। সিনেমা হিট হলেই নিজেকে অনেক উপরের কেউ মনে করতে হবে, এমনটা ভাবেন না তিনি।

“মানুষ যত বড় হয়, তাকে তত বিনয়ী হতে হয়। আমি বিশ্বাস করি, যে যত নত সে তত উন্নত। ব্যস্ততার বাইরে সবার সঙ্গে আগের মতোই মিশছি। সিনেমা হিট হলে আচরণে পরিবর্তন আনতে হবে, এমনটা আমি মনে করি না।”

পরাণের পর এখন মিমের ভাবনায় এখন পরবর্তী সিনেমা দামাল।

“পরাণ চলছে। দামাল হয়ত অক্টোবরে আসছে। এখন দামালের প্রচার নিয়ে ভাবছি। আশা করি, পরাণের মতো দামালও দর্শককে হলে টানবে। দর্শক পছন্দ করবে।”

দামাল ছাড়াও মুক্তির অপেক্ষায় আছে মিমের দুই সিনেমা ইত্তেফাক ও অন্তর্জাল।

২০০৮ সালে হুমায়ূন আহমেদের ‘আমার আছে জল’ দিয়ে রুপালি পর্দায় পথচলা শুরু মিমের। এরপর ঢাকা ও কলকাতায় আমার প্রাণের প্রিয়া, পদ্ম পাতার জল, ব্ল্যাক, দুলাভাই জিন্দাবাদ, সুলতান, আমি নেতা হব, সাপ লুডুসহ ১৮টি সিনেমা মুক্তি পায়।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক