সংগীতে মাকসুদের ৪৫ বছর উদযাপনে কনসার্ট আয়োজন

আগামী ১৮ মার্চ এই কনসার্টে মাকসুদের ঢাকা ব্যান্ড ছাড়াও মাইলস, পেন্টাগন, দলছুট, ওয়ারফেইজ ও ফিডব্যাক অংশ নেবে।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 Jan 2023, 03:27 PM
Updated : 25 Jan 2023, 03:27 PM

ব্যান্ডশিল্পী মাকসুদুল হকের সংগীত জীবনের ৪৫ বছর উদযাপন করতে একটি কনসার্টের আয়োজন হয়েছে, যাতে অংশ নেবে ছয়টি ব্যান্ড।

‘মাকসুদ-৪৫ ইয়ার্স ইন মিউজিক’ শিরোনামে এই কনসার্ট আয়োজন করতে যাচ্ছে ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ। আগামী ১৮ মার্চ ঢাকার কৃষিবিদ ইন্সটিটিউট মিলনায়তনে এই কনসার্ট হবে।

কনসার্টের বিস্তারিত জানাতে বুধবার ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

এতে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ব্যান্ড মিউজিক অ্যাসোসিয়েশনের (বামবা) সভাপতি, মাইলসের দলনেতা হামিন আহমেদ, ফিডব্যাকের দলনেতা ও সংগীত পরিচালক ফুয়াদ নাসের বাবু, ওয়ারফেজ ব্যান্ডের দলনেতা ও বামবার সহ-সভাপতি শেখ মনি রুপম আলম (টিপু), ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. আশীষ কুমার চক্রবর্তী, উপ পরিচালক ডা. কাজী রফিকুল আলম, হাসপাতালের মিডিয়া চিফ কোঅর্ডিনেটর এবং এ আয়োজনের ইভেন্ট পার্টনার ফ্যাক্টর থ্রী স্যুশনস প্রধান নির্বাহী সাহেদ হোসেন।

আশীষ চক্রবর্তী জানান, কনসার্টে মাকসুদের ঢাকা ব্যান্ড ছাড়াও মাইলস, পেন্টাগন, দলছুট, ওয়ারফেইজ ও ফিডব্যাক ‘পারফর্ম’ করবে।

টিকেটের বিনিময়ে মিলনায়তনে বসে ১ হাজার দর্শক কনসার্টটি উপভোগ করতে পারবে। টিকেটের দাম এখনও ঠিক হয়নি। শিগগিরই দাম এবং টিকেট প্রাপ্তিস্থান জানিয়ে দেওয়া হবে।

মেডিকেল কলেজ থেকে এমন কনসার্ট আয়োজনের কারণ ব্যাখ্যা করে আশীষ চক্রবর্তী বলেন, “আমি গান পছন্দ করি। নব্বই দশকের গান ছাড়া আমি ঘুমাতে পারি না। ঘুমানোর আগে আমি এখনও ব্যান্ডের সোনালি দিনের গানগুলো শুনি। এ ধরনের সাংস্কৃতিক আয়োজনগুলো হওয়া উচিৎ। আমার ছেলেটা ড্রামস শিখছে। আমি মনে করি ও যতক্ষণ গানের সাথে থাকবে সে খারাপ হবে না।”

ব্যান্ডশিল্পী মাকসুদ বলেন, “গান করছি তো অনেক বছর ধরেই। আমার মধ্যে খুব ইচ্ছা হচ্ছিল একটা কনসার্ট আয়োজন করা যায় কি না? কিন্তু এরকম একট বড় আয়োজন করতে গেলে যে স্পন্সর খোঁজাসহ নানা রকম জটিলতা থাকে। অনেক ইভেন্ট প্রতিষ্ঠান হয়ত আছে, কিন্তু তাদের বাণিজ্যিক ব্যাপারগুলোতে ঠিক সায় পাচ্ছিলাম না। আশীষের সাথে পরিচয় ৩০ বছরেরও বেশি সময় ধরে। গান পাগল একজন ডাক্তার। ওকে ভাবনাটা বলতেই, সে নিজেই আয়োজনের আগ্রহের কথা জানায়।

“শিল্পীকে ভালোবেসে ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ যে আয়োজনটি করছে, এটি সম্ভব হচ্ছে কারণ এই হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আশীষের জন্য। একজন গান পাগল ডাক্তার আশীষ, তার কাছে কৃতজ্ঞতা জানাই।”

বামবা সভাপতি হামিন আহমেদ বলেন, “অনেকেই মনে করেন, এই উপমহাদেশের ব্যান্ড চর্চায় বাংলাদেশ সেরা। এই বাংলাদেশের ব্যান্ডের এই যে উচ্চতায় স্থান করে নেওয়া, তার পেছনে যে কয়েকজন মানুষের অবদান রয়েছে- তাদের অন্যতম মাকসুদ।”

‘মাকসুদ-৪৫ ইয়ার্স ইন মিউজিক’ কনসার্টে মাকসুদের একটি গানও মাইলস গাইবে বলে জানান হামিন আহমেদ।

লালন ব্যান্ডের কর্ণধার থেইন হান মং তিথি বলেন, “মাকসুদ ভাইয়ের ‘মেলায় যাই রে’ গানটি যত মানুষ শুনেছে, তারা যদি এক টাকা করেও দেয় তাহলে অনেক টাকার মালিক হয়ে যাওয়ার কথা মাকসুদ ভাইয়ের। তাই বলব, শিল্পীদের পাশে থাকতে হবে। শিল্পকে ফ্রি বিপণন থেকে বেরিয়ে আসতে হবে।”

পেন্টাগন ব্যান্ডের কর্ণধার আলী সুমন বলেন, “বাংলাদেশে রক গানের যে বিকাশ তার পেছনে মাকসুদ ভাইয়ের অনেক অবদান। শুধু গান নয়, পুরো সংস্কৃতি অঙ্গনে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন।”

ফিডব্যাকের দলপ্রধান ফুয়াদ নাসের বাবু বলেন, “বাংলাদেশের ব্যান্ড সঙ্গীতের লিরিক্সের যে শক্তি, তাদের মধ্যে মাকসুদ সবচেয়ে পাওয়ারফুল লিরিকিস্ট। তার গানের যে শক্তি, সেটা সবাইকে মুগ্ধ করে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক