এক ডজন সিনেমা-ওয়েব সিরিজ নিয়ে আসছে ‘ফিল্ম সিন্ডিকেট’

সাত নির্মাতার উদ্যোগে ২০২০ সালে যাত্রা করে ফিল্ম সিন্ডিকেট।

গ্লিটজ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 20 March 2023, 06:10 PM
Updated : 20 March 2023, 06:10 PM

প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ফিল্ম সিন্ডিকেট যাত্রা শুরুর তিন বছরের মধ্যে নির্মাণ করেছে তাকদীর, ঊনলৌকিক, কারাগার ও কাইজারের মতো জনপ্রিয় ওয়েব সিরিজগুলো।

সোমবার ‘গো উইথ ক্রো’ শিরোনামে এক অনুষ্ঠানে নিজেদের আসন্ন ১২টি প্রকল্পের নাম ঘোষণা করেছে তারা। এরমধ্যে আছে সাতটি ওয়েব সিরিজ ও পাঁচটি পূর্ণদৈর্ঘ‌্য চলচ্চিত্র।

মীর মোকাররম হোসেনের উদ্যোগে চলচ্চিত্র নির্মাতা তানিম নূর, কৃষ্ণেন্দু চট্টোপাধ্যায়, সালেহ সোবহান, সৈয়দ আহমেদ শাওকী, রুমেল চৌধুরী ও রেহমান সোবহানকে নিয়ে ২০২০ সালে যাত্রা করে ফিল্ম সিন্ডিকেট।

তাদের অনুষ্ঠানে চলচ্চিত্র নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী, অমিতাভ রেজা চৌধুরী, সাজ্জাদ খান, অভিনেতা তারিক আনাম খান, জাহিদ হাসান, আরিফিন শুভ, সায়মন সাদিক, অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা, তাসনিয়া ফারিণ, দিলরুবা দোয়েল, লেখক মশিউল আলম, মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন, আয়মান আসিব স্বাধীন, হইচই বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর সাকিব আর খান, চরকির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রেদওয়ান রনিসহ দেশের চলচ্চিত্র জগতের অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে ফিল্ম সিন্ডিকেটের আসন্ন ১২টি প্রযোজনার ঘোষণা দেন নির্মাতা ও প্রতিষ্ঠানটির সহপ্রতিষ্ঠাতা সৈয়দ আহমেদ শাওকী।

তিনি জানান, ‘ঊনলৌকিক ২’, ‘পেন্ডুলাম’, ‘গুলমোহর’, ‘ডেল্টা ২০৫১’, ‘দ্বৈত’, ‘অদানব’ এবং ‘ফ্রেন্ডস উইদাউট বেনিফিটস’ ওয়েব সিরিজগুলোর কাজ চলছে। পাশাপাশি চলছে ‘লোহানী’, ‘বাইপাস’, ‘খোঁয়ারি’, ‘পুলসিরাত’ এবং ‘হেল ব্রোক লুজ’ নামের পাঁচটি সিনেমার কাজ।

‘কাইজার’র সাফল্যের ধারাবাহিকতায় তানিম নূর নির্মাণ করবেন পূর্ণদৈর্ঘ্য ক্রাইম থ্রিলার ‘লোহানী’ এবং রহস্য সিরিজ ‘পেন্ডুলাম’। রহস্য সিরিজ ‘গুলমোহর’ এবং ফিচার ফিল্ম ‘বাইপাস’ নির্মাণ করবেন সৈয়দ আহমেদ শাওকী।

কোক স্টুডিও বাংলার ভিজুয়াল ডিরেক্টর কৃষ্ণেন্দু চট্টোপাধ্যায় নিয়ে আসছেন সাই-ফাই ওয়েব সিরিজ ‘ডেল্টা ২০৫১’।

এশিয়ান একাডেমি ক্রিয়েটিভ অ্যাওয়ার্ডস বিজয়ী ওয়েব সিরিজ ‘জাগো বাহে’-এর নির্মাতা সালেহ সোবহান অনীমের বানাবেন ফিচার ফিল্ম ‘খোঁয়াড়ি’ এবং ‘পুলসিরাত’।

পুনর্জন্ম ফ্র্যাঞ্চাইজিখ্যাত ভিকি জাহেদ নিয়ে আসছেন সাইফাই রহস্য থ্রিলার সিরিজ ‘অদানব’, ফিল্ম সিন্ডিকেটের ব্যানারে।

পরিচালক রবিউল আলম রবি ফিরছেন ‘ঊনলৌকিক-২’ নিয়ে। তার পরিচালিত প্যারানরমাল জঁনরার অ্যান্থলজি সিরিজের প্রথম সিজন ২০২১ সালে বাঙালি দর্শকদের মনোজগতে আলোড়ন তুলেছিল।

থ্রিলার রহস্য ড্রামা অ্যান্থলজি ‘দ্বৈত’ দিয়ে পরিচালক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবেন কাইজারের লেখক আয়মান আসিব স্বাধীন এবং সুস্ময় সরকার। পাশাপাশি ড্রামা ফিল্ম ‘হেল ব্রোক লুজ’-এর মাধ্যমে পরিচালক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছেন রাজীব রাফি।

শাওকী জানান, আত্মপ্রকাশ ঘটছে আরও একজন পরিচালকের। দুই দেশের দুই মানুষের তৃতীয় একটি দেশে মিলিত হওয়ার কাহিনী নিয়ে রিয়াদ আরফিন তৈরি করতে যাচ্ছেন কমেডি সিরিজ ‘ফ্রেন্ডস উইদাউট বেনিফিটস’।

ওয়েব সিরিজ ও চলচ্চিত্রগুলো ওটিটি মাধ্যমে মুক্তি পাবে।

বাংলাদেশি এ নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটির লক্ষ্য সারাবিশ্বের ৩০ কোটি বাংলাভাষী দর্শক-শ্রোতা এবং বিনোদন দুনিয়ায় সৃজনশীল, বৈচিত্র্যময় ও গতিশীল নির্মাণের মধ্য দিয়ে নিজেদের অবস্থানকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাওয়া।

অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্যে ফিল্ম সিন্ডিকেটের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও মোকাররম বলেন, "আমরা প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান হিসেবে একটি সাসটেইনেবল ইকোসিস্টেম তৈরির লক্ষ্যে এগোচ্ছি। এতে পরিচালক, লেখক, প্রযোজক, অভিনয়শিল্পী এবং প্রযুক্তিবিদরা তো থাকবেনই পাশাপাশি ব্র্যান্ড, বিজ্ঞাপনী সংস্থা, প্রযোজনা সংস্থা, পরিবেশক, প্রদর্শক, সম্প্রচারক এবং স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্মগুলোও থাকবে। আমরা সকলের মধ্যে সুদূরপ্রসারী অংশীদারিত্বের সংস্কৃতি তৈরি করতে চাই।”

তানিম নূর বলেন, “ফিল্ম সিন্ডিকেট নিজেদের কাজের মাধ্যমেই সৃজনশীল সহযোগিতার পথ তৈরি করতে চায়।”

ফিল্ম সিন্ডিকেটের প্রতিষ্ঠাতারা প্রায় প্রত্যেকেই স্বল্প ও পূর্ণদৈর্ঘ্যের চলচ্চিত্র, তথ্যচিত্র এবং ফিকশন তৈরি করেছেন। যেমন- পায়ের নিচে মাটি নেই, পাতালঘর, ফিরে এসো বেহুলা, সিনসিয়ারলি ইওরস ঢাকা, লাইট ক্যামেরা অবজেকশন ইত্যাদি। এগুলো প্রদর্শিত হয়েছে বুসান, মস্কো, কলকাতা, গোয়া, লোকার্নো, ভেনিস, এশিয়ান ডক ল্যাব-এর মতো বিভিন্ন বিখ্যাত চলচ্চিত্র উৎসবে। ভূষিত হয়েছে নানা আন্তর্জাতিক পুরস্কারে।