‘বাজেভাবে হারলে আমাকে সংবাদ সম্মেলনে পাঠায়’

বড় হারের জন্য পাকিস্তানের বোলারদের তেমন দায় দেখেন না বোলিং কোচ শন টেইট।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 Oct 2022, 12:12 PM
Updated : 1 Oct 2022, 12:12 PM

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পাত্তাই পায়নি দল। লড়াই করতে না পারা ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে এলেন শন টেইট। শুরুতেই যেন আত্মসমর্পণ করলেন পাকিস্তানের বোলিং কোচ। মাইকের সামনে বসে মুখে হাসি নিয়ে তার প্রথম কথা, “যখনই বাজেভাবে দল হারে, তারা আমাকে পাঠায়।”

মজার ছলেই এমন মন্তব্য করেছেন টেইট, এটা স্পষ্ট। পরে অবশ্য তুলে ধরতে চেষ্টা করলেন তাদের হারের কারণ। নিজের বোলারদের তেমন দায় না দিয়ে সাবেক অস্ট্রেলিয়ান ফাস্ট বোলার কৃতিত্ব দিলেন ইংলিশ ব্যাটসম্যানদের।

লাহোরে ষষ্ঠ টি-টোয়েন্টিতে শুক্রবার পাকিস্তানের বিপক্ষে অনায়াসে জেতে ইংল্যান্ড। ১৭০ রানের লক্ষ্যে তারা পৌঁছে যায় ৮ উইকেট ও ৩৩ বল বাকি থাকতে।

ফিল সল্টের তাণ্ডব পাকিস্তানের এমন হারের পেছনের মূল কারণ। ইনিংস শুরু করতে নেমে ৮৮ রান করে দলের জয় সঙ্গে নিয়ে মাঠ ছাড়েন তিনি। তার ৪১ বলের ইনিংসে ছিল ৩ ছক্কার সঙ্গে ১৩ চার।

বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে প্রতিপক্ষের বোলারদের লাইন লেংথ এলোমেলো করে দেওয়ার পণ করেই যেন মাঠে নামেন সল্ট ও অ্যালেক্স হেলস। তাদের ঝড়ে ৩ ওভারেই ৫০ ছুঁয়ে ফেলে ইংল্যান্ড। পাওয়ার প্লেতে আসে ৮২ রান, এক উইকেটে।

এরপর আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি পাকিস্তান। তাদের বোলাররাও পারেনি ছন্দে ফিরতে। এতে বড় হারের তেতো স্বাদই সঙ্গী হয় স্বাগতিকদের। টেইট বললেন, তার বোলাররা খুব একটা বেশি বাজে বোলিং করেনি।

“তারা আমাদের উপর চড়াও হয়। আগ্রাসী মনোভাব নিয়ে নেমেছিল, প্রতি বলেই বাউন্ডারি মারার চেষ্টা ছিল তাদের। প্রথম তিন ওভার এটা কাজে দেয়। আর এতে আমাদের বোলাররা ছন্দ কিছুটা হারিয়ে ফেলে। আমরা খুব বেশি বাজে বল করিনি, তারা দারুণ ব্যাটিং করেছে। মাঝেমধ্যে ব্যাটিং দলকেও কৃতিত্ব দিতে হবে।”

“আমরা আরও ভালো বোলিং করতে পারতাম, কিন্তু কিছুটা আলগা বোলিং করেছি। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এমন হয়। এই সিরিজেও যেমন উত্থান-পতন হচ্ছে।”

৭ ম্যাচের সিরিজটি এখন ৩-৩ সমতায়। রোববার সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে মুখোমুখি হবে ইংল্যান্ড-পাকিস্তান। টেইটের আশা, ঘুরে দাঁড়িয়ে সিরিজ জয় নিশ্চিত করবে তার দল।

“আমরা পরের ম্যাচে ঘুরে দাঁড়াতে পারি। আশা করি, ভালো বোলিং করব এবং ম্যাচটি জিতব। তবে সিরিজটিতে দারুণ লড়াই হচ্ছে। আমরা ভালো বোলিং করেছি, মাঝে মধ্যে আবার করিনি।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক