‘মুমিনুল হয়তো হীনম্মন্যতায় ভুগছে, নেতৃত্ব নিয়ে সিদ্ধান্ত শিগগির’

ব্যাট হাতে বাজে ফর্মের কারণে টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হকের কর্তৃত্বের জায়গাটা নড়বড়ে হয়ে যাচ্ছে বলে মনে করছে বিসিবি। বোর্ডের ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান জালাল ইউনুসের মতে, মুমিনুলের মনের ভেতর হয়তো ‘কমপ্লেক্স’ কাজ করছে। নেতৃত্বে থাকা বা না থাকা নিয়ে বিসিবি সভাপতির সঙ্গে আলোচনা করে মুমিনুল শিগগিরই সিদ্ধান্ত নেবেন বলে জানালেন জালাল ইউনুস।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 May 2022, 11:44 AM
Updated : 30 May 2022, 01:08 PM

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজে মিরপুর টেস্টে বাজেভাবে হারার পরপরই মুমিনুলের সঙ্গে এক দফায় কথা বলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান। সেদিন বিসিবি প্রধান বলেছিলেন, মুমিনুলের সঙ্গে তার ‘ব্রিফ’ আলোচনা হয়েছে, দু-একদিনের মধ্যে লম্বা আলোচনায় বসবেন তারা। তবে এরপরই ভারতীয় বোর্ডের আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে আইপিএল ফাইনাল দেখতে ভারতে যান বিসিবি সভাপতি।

বোর্ড সভাপতি ফেরার পরই আলোচনা হবে, বিসিবিতে সোমবার সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বললেন বোর্ডের ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান।

“মুমিনুলের সঙ্গে তো বোর্ড সভাপতি বসেছিলেন। আরও কিছু কথা বলার ব্যাপারগুলো বাকি আছে। উনি দেশের বাইরে বলে এই সময়ে সম্ভব হচ্ছে না। আসার পরে তিনি বসবেন।”

মুমিনুলকে নিয়ে বিসিবির ভাবনা ও মনোভাব অবশ্য প্রকাশ্য হতে শুরু করেছে ধীরে ধীরে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ শেষে তার ফর্ম নিয়ে দুর্ভাবনার কথা জানান বাংলাদেশের টিম ডিরেক্টর ও বিসিবি পরিচালক খালেদ মাহমুদ। এবার জালাল ইউনুস আরও গভীরে গিয়ে তুলে ধরলেন অধিনায়কের মনস্তাত্ত্বিক ব্যাপারগুলি। 

“নেতৃত্ব তো বাড়তি চাপ। ব্যাটিংয়ে সে যখন রান করতে পারছে না, সে বুঝতে পারছে যে অধিনায়ক হয়ে আর কারও সঙ্গে যে কথা বলবে বা পরামর্শ দিতে চাইবে, সেই জায়গাটায় হয়তো একটু হীনম্মন্যতায় (ভুগছে)… হয়তো তার একটু সমস্যা হচ্ছে। একটা কমপ্লেক্স থাকতে পারে তার, যেহেতু নিজে রান করতে পারছে না। এই কমপ্লেক্স থেকে সে যখন পারছে না, চাপটা বেশি হয়ে যাচ্ছে। ব্যাটিংয়েও এটার প্রভাব পড়তে পারে।”

“আমার মনে হয়, হয়তো সে সিদ্ধান্ত নিতে পারে যে কোনটা হলে তার জন্য ভালো হয়। এটা নিয়েই আলাপ করার কথা আছে ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে, আমাদের সঙ্গে বসার কথা আছে। প্রেসিডেন্ট সাহেব এলে এটা নিয়ে আলাপ করবে।”

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজে ব্যাটিং সহায়ক উইকেটেও ৩ ইনিংস খেলে মুমিনুলের রান ২, ৯ ও শূন্য। এর আগে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে শূন্য, ২, ৬ ও ৫। দুটি সিরিজই হেরেছে দল। গত জানুয়ারিতে মাউন্ট মঙ্গানুই টেস্টে নিউ জিল্যান্ডকে হারানোর পথে ৮৮ রানের ইনিংস খেলেছিলেন তিনি। তবে সব মিলিয়ে সবশেষ ১৫ ইনিংসে তার ফিফটি ওই একটিই।

নিজের রান খরা ও দলের বাজে অবস্থা মিলিয়ে তার নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠছিল নিয়মিত। ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধানের মন্তব্যের পর এখন বলা যায়, মুমিনুলের দায়িত্বে থাকা নিয়ে অনিশ্চয়তা এখন আনুষ্ঠানিক।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক