বোলিং ‘আল্লাহর ওপর’ ছেড়ে দিলেন মুস্তাফিজ

আইপিএলে পাওয়া আত্মবিশ্বাস আটকা পড়েছে চার দেয়ালে বন্দি জীবনে। বোলিংয়ের ধার, সুর-ছন্দ হারিয়েছে নিস্তরঙ্গ দিন-রাত্রিতে। লম্বা সময় কোয়ারেন্টিনে থেকে নিজের ভেতর তৈরি হয়েছে সংশয়। প্রস্তুতির ঘাটতিও প্রকট। সব মিলিয়ে শ্রীলঙ্কা সিরিজে নিজের বোলিং নিয়তির হাতে ছেড়ে দিলেন মুস্তাফিজুর রহমান।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 19 May 2021, 10:09 AM
Updated : 19 May 2021, 10:10 AM

গত ৬ মে আইপিএল থেকে ফিরে সাকিব আল হাসান ও মুস্তাফিজ কোয়ারেন্টিনে ছিলেন ঢাকার দুটি হোটেলে। সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী কোয়ারেন্টিন শেষ হওয়ার কথা ছিল বুধবার। তবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিশেষ অনুমতি পাওয়ার পর নির্ধারিত সময়ের দুই দিন আগেই মুক্তি পান তারা ঘরবন্দি জীবন থেকে।

বাড়তি দুই দিন অনুশীলনের জন্যই ছিল এই উদ্যোগ। কিন্তু এর একদিন ভেস্তে যায় বৃষ্টিতে। মঙ্গলবার দলের সঙ্গে যোগ দিলেও ব্যাটিং-বোলিং করতে পারেননি সাকিব-মুস্তাফিজরা। অবশেষে বুধবার শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামের সেন্টার উইকেট ও ইনডোরের বাইরের নেট মিলিয়ে সতীর্থদের সঙ্গে লম্বা সময় ঘাম ঝরালেন এই দুজন।

তবে ভারতে ও দেশে কোয়ারেন্টিনে থেকে ফিটনেস ও বোলিংয়ের যা অবস্থা, তাতে নিজেকে নিয়ে আশার জায়গা খুব বেশি দেখছেন না মুস্তাফিজ। রোববার থেকেই শুরু হচ্ছে লঙ্কানদের বিপক্ষে তিন ম্যাচের সিরিজ। বুধবার অনুশীলন শেষে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে এই বাঁহাতি পেসার অকপটেই বললেন প্রস্তুতির ঘাটতির কথা।

“আইপিএলে আর আমাদের দেশে রুম কোয়ারেন্টিন মিলিয়ে গত ২৫ দিনের মধ্যে আমি কেবল একদিন প্র্যাকটিস (করেছি) ও একটি ম্যাচ খেলেছি। এখন জানি না…আমি আর সাকিব ভাই, আমরা দুজনই ওরকমই প্রায় ছিলাম। এই তিন দিনে…কালকে তো আমরা প্র্যাকটিস করতে পারিনি (বৃষ্টির কারণে), আজকে করলাম, আরও দুই দিন সময় পাব। আল্লাহর ওপরে ছেড়ে দিলাম…দেখি চেষ্টা করে, কী হয়…।”

প্রস্তুতির ঘাটতি কতটা থাকবে, সেই প্রশ্নে মুস্তাফিজের স্রেফ উত্তর, “অনেক…।”

দীর্ঘদিন পর বুধবার বোলিং করে নিজের অবস্থা যা বুঝলেন, সেখানেও খুব আশা জাগানিয়া কিছু খুঁজে পাননি তিনি।

“একটানা ১৪ দিন আর ওদিকে ৫ দিন (ভারতে), ১৯ দিন যদি কিছু না করি…শুধু রুমের ভেতর টুকটাক যে কাজগুলো করা যায়, ওগুলো করে যদি প্রথম দিনেই অনেক কিছু ভাবি, তাহলে তো হওয়ার কথা নয়। আমি চেষ্টা করছি যেন আস্তে আস্তে…আজকে যেমন প্রথম সুযোগ পেলাম, যেমন হাতে ব্যথা হতে পারে, এগুলো নরম্যালি দেখছি…।”

আইপিএলে এবার তার বোলিংয়ে বেশ কিছু বৈচিত্র্য দেখা গেছে। ব্যাক অব দা হ্যান্ড স্লোয়ার করেছেন, স্লোয়ার ইয়র্কার করেছেন। প্রায় হারিয়ে ফেলা সেই ইয়র্কারের ঝলকও কিছুটা দেখা গেছে। শ্রীলঙ্কা সিরিজে সেসবের কিছু দেখা যাবে? মুস্তাফিজের উত্তর আগের মতোই।

“আগেই উত্তর দিলাম (বোলিং নিয়ে)…বাদবাকি আল্লাহর ওপর ছেড়ে দিলাম…২৫ দিন না করে আমি কীভাবে বলব!”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক