বোলিংয়ে বিবর্ণ সাকিব, গেইলের সেঞ্চুরি

মাত্র একটি উইকেট পেলেই অসাধারণ এক ডাবলের অধিকারী হতেন সাকিব আল হাসান। তবে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে প্রথমবারের মতো উইকেটশূন্য থাকায় অপেক্ষা বেড়েছে এই অলরাউন্ডারের। বোলিংয়ে তার বিবর্ণ দিনে ঝড় তুলে দারুণ এক সেঞ্চুরি করেছেন ক্রিস গেইল।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 19 April 2018, 04:38 PM
Updated : 19 April 2018, 06:07 PM

মোহালির পাঞ্জাব ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন আইএস বিন্দ্রা স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার দশম ওভারে সাকিবকে বোলিংয়ে আনেন কেন উইলিয়ামসন।

কাভার দিয়ে চার হাঁকিয়ে বাঁহাতি স্পিনারকে স্বাগত জানান মায়াঙ্ক আগারওয়াল। পরে হাঁকান ছক্কা। ১৪ রান দেওয়া সাকিবের সেই ওভারে ছিল না কোনো ডট বল।

পরের ওভারে ফিরে করুন নায়ারের উইকেট পেতে পারতেন সাকিব। বাউন্ডারি থেকে কিছুটা এগিয়ে থাকা মনিশ পান্ডে সময় মতো পিছিয়ে যেতে পারেননি। আউটের সুযোগ দিয়েও উল্টো ছক্কা পেয়ে যান নায়ার।

বিস্ফোরক গেইলকে দুটি বল ডট খেলান সাকিব। তবে বাঁহাতি ওপেনারও ছক্কায় উড়ান এই অলরাউন্ডারকে। ২ ওভারে ২৮ রান দেওয়া সাকিবকে আর বোলিংয়ে আনেননি হায়দরাবাদ অধিনায়ক উইলিয়ামসন।

২৫৮তম টি-টোয়েন্টি খেলা সাকিবের উইকেট ২৯৯। একটি উইকেট পেলে তিনশ উইকেট ও চার হাজার রানের দারুণ এক ডাবলে পৌঁছাবেন তিনি।

২০১২ সালের পর প্রথমবারের মতো আইপিএলে টানা দুই ম্যাচে পঞ্চাশ ছোঁয়া গেইল ১০৪ রানের চমৎকার এক ইনিংস খেলেন। তার ৬৩ বলের টর্নেডো ইনিংসে ১১ ছক্কার পাশে চার একটি।

শুরুতে রশিদ খানের বলে উইকেটরক্ষক ঋদ্ধিমান সাহাকে ক্যাচ দিয়েও বেঁচে যান গেইল। আফগান লেগ স্পিনারের ওপরই সবচেয়ে বেশি চড়াও হন বাঁহাতি এই ওপেনার। এক ওভারেই তুলে নেন চার ছক্কা।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে গেইল ঝড়ে ৩ উইকেটে ১৯৩ রান করে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। রান তাড়ায় ৪ উইকেটে ১৭৮ রান করে হায়দরাবাদ। টুর্নামেন্টে এটাই তাদের প্রথম পরাজয়।

সাকিব ক্রিজে আসার সময় ২০ বলে হায়দরাবাদের প্রয়োজন ছিল ৬১ রান। পরিস্থিতির দাবি মেটাতে পারেননি বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। দুই ছক্কায় ১২ বলে অপরাজিত থাকেন ২৪ রানে।

ব্যাটিংয়ে মন্থর শুরু করা হায়দরাবাদ হারে ১৫ রানে। ৫৭ রানে অপরাজিত থাকেন মনিশ। উইলিয়ামসন করেন ৫৪ রান।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক