বোল্টের পথে পা বাড়াবে না আর কেউ, আশা নিউ জিল্যান্ডের

আর কোনো ক্রিকেটারের কাছ থেকে এমন কোনো প্রস্তাব আসেনি, বললেন নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেটের প্রধান নির্বাহী ডেভিড হোয়াইট।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 10 August 2022, 06:23 AM
Updated : 10 August 2022, 06:23 AM

ট্রেন্ট বোল্ট কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে মুক্তি নিলেও এটিকে এখনও অশনী সংকেত হিসেবে দেখছে না নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেট (এনজেডসি)। আর কোনো ক্রিকেটার এখনও এরকম কোনো প্রস্তাব বা ইঙ্গিত দেননি বলে জানালেন এনজেডিসির প্রধান নির্বাহী ডেভিড হোয়াইট। তার বিশ্বাস, নিউ জিল্যান্ডের আর সব ক্রিকেটার জাতীয় দলকেই প্রাধান্য দেবেন।

পরিবারকে আরও বেশি সময় দিতে ও বিশ্বজুড়ে ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগগুলো খেলতে কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে ছেড়ে দিতে এনজেডসিকে অনুরোধ করেন বোল্ট। কয়েক দফায় আলোচনার পর শেষ পর্যন্ত বুধবার এই বাঁহাতি পেসারের অনুরোধ রাখার কথা জানায় এনজেডসি।

জাতীয় দলের জন্য সাধারণত কেন্দ্রীয় ও ঘরোয়া চুক্তিতে থাকা ক্রিকেটারদেরই বিবেচনা করে নিউ জিল্যান্ড। বোল্ট নিজেও পরিবারকে সময় দেওয়া ও ফ্র্যাঞ্চাইজি নানা লিগে খেলার পর জাতীয় দলে খেলার সময় পাবেন কম। সব মিলিয়ে আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর তাকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দেখা যাবে খুব কম সময়ই।

সংযুক্ত আরব আমিরাত কিংবা দক্ষিণ আফ্রিকা, নতুন এই দুই ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগের কোনো একটিতে বোল্টের সম্পৃক্ততার খবর খুব শিগগিরই ঘোষণা করা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নিউ জিল্যান্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকা আরও কজন ক্রিকেটার আছেন, টি-টোয়েন্টি লিগগুলোয় যাদের কদর আছে যথেষ্টই।

তবে ক্রিকেট ওয়েবসাইট ইএসপিএনক্রিকইনফোকে ডেভিড হোয়াইট জানালেন, তার দেশের অন্য ক্রিকেটাররা এখনও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকেই গুরুত্ব দিচ্ছেন। বাস্তবতার নিরিখেই জাতীয় দলে পারফর্ম করা গুরুত্বপূর্ণ রয়ে যাবে বলে মনে করেন এনজেডসির প্রধান নির্বাহী।

“আলোচনা এটা নিয়েই যে নিউ জিল্যান্ডের আরও ক্রিকেটার এরকম কিছু করতে শুরু করবেন কিনা? আর কারও কাছ থেকে এরকম কিছু আমরা শুনতে পাইনি। ওরা এখনও বলছে যে টেস্ট ক্রিকেট এবং নিউ জিল্যান্ডের হয়ে পারফর্ম করা দারুণ গুরুত্বপূর্ণ। সামনে তো আমাদের বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট আছে প্রতি বছরই।”

“আরেকটা ব্যাপার হলো, বড় টি-টোয়েন্টি লিগ থেকে প্রস্তাব পেতে হলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সফল হতে হবে। তাই দ্বিপাক্ষিক সিরিজে ক্রিকেটারদের পারফর্ম করা দারুণ গুরুত্বপূর্ণ।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক