ঢাবির নিয়মিত মাস্টার্সে পড়তে পারবেন বাইরের যেসব শিক্ষার্থী

এখন থেকে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক বিভাগ/ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীরা ভর্তি হতে পারবেন আরেক বিভাগ/ ইনস্টিটিউটের নিয়মিত স্নাতকোত্তরে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 23 Jan 2023, 07:05 PM
Updated : 23 Jan 2023, 07:05 PM

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ালেখার স্বপ্ন অনেকে বুনলেও তার বেশিরভাগের কাছে তা অধরা থেকে যায়। এখন সেই স্বপ্ন পূরণ হতে পারে অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক সম্পন্ন করার পরও।

চলতি শিক্ষাবর্ষ থেকে সেখানকার নিয়মিত স্নাতকোত্তর (মাস্টার্স) প্রোগ্রামে ভর্তির সুযোগ পাচ্ছেন বাইরের শিক্ষার্থীরা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেটে গত ৩০ অক্টোবর এ সংক্রান্ত নীতিমালা অনুমোদন পেয়েছে, যেখানে বয়স ও শিক্ষাবর্ষের বাধ্যবাধকতা রাখা হয়নি।

তবে চাইলেই সবাই আবেদন করতে পারবে না। ইউজিসি অনুমোদিত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ন্যূনতম চার বছর মেয়াদি স্নাতক (সম্মান) অবশ্যই থাকতে হবে।

সিন্ডিকেটের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, স্নাতকে ভর্তিচ্ছুর অন্তত ৩ দশমিক ২৫ সিজিপিএ থাকতে হবে। আর এসএসসি ও এইচএসসিতে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের জিপিএর যোগফল ৮ এবং আলাদাভাবে ৩ দশমিক ৫ থাকতে হবে। মানবিকের শিক্ষার্থীদের ন্যূনতম জিপিএর যোগফল ৭ দশমিক ৫ এবং আলাদাভাবে ৩ এবং ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থীদের জিপিএর যোগফল ৭ দশমিক ৫ এবং আলাদাভাবে ৩ থাকতে হবে ৷

এ বিষয়ে উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক এ এস এম মাকসুদ কামাল বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মিত শিক্ষার্থীরা ভর্তি হওয়ার পর যতগুলো আসন ফাঁকা থাকবে, কেবল ওই কয়টি আসনেই বাইরের শিক্ষার্থীদের ভর্তি করানো হবে।”

স্নাতকোত্তর প্রোগ্রামের ভর্তি পরীক্ষায় সার্বিক কার্যক্রম পরিচালনা করবে সংশ্লিষ্ট বিভাগ/ইনস্টিটিউট। বিভাগ-ইনস্টিটিউটগুলোর পক্ষ থেকে ভর্তির বিজ্ঞপ্তি দিয়ে আবেদন আহ্বান করা হবে। এরপর ১০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা এবং মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে মেধাতালিকা অনুযায়ী শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে।

মাকসুদ কামাল বলেন, “আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আন্ডার-গ্র্যাজুয়েশন শেষ করে পোস্ট গ্র্যাজুয়েশনে সরাসরি ভর্তি হওয়ার সুযোগ থাকবে। তাদের ভর্তি পরীক্ষা দিতে হবে না এবং (স্নাতক শেষ করার) তিন বছর পর্যন্ত এই সুযোগ থাকবে, সেটি আগেও ছিল।”

তবে জাতীয় ও বৈশ্বিক চাহিদা বিবেচনায় আসন সংখ্যা বাড়ানো বা কমানোর সুযোগ রাখা হয়েছে নীতিমালায়। সেক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট বিভাগ/ইনস্টিটিউটকে অবশ্যই অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের অনুমোদন নিতে হবে।

নীতিমালা অনুযায়ী, স্নাতকোত্তরের ফি বাইরের শিক্ষার্থী এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক সম্পন্ন করা শিক্ষার্থীদের জন্য সমান। বাইরের শিক্ষার্থীরা আবাসিক সুবিধা পাবেন না। তবে বিদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য এই বিধান শিথিল হতে পারে।

এর আগে কেবল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক সম্পন্ন করা শিক্ষার্থীরাই নিজ বিভাগে নিয়মিত স্নাতকোত্তর করার সুযোগ পেতেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের এক বিভাগ-ইনস্টিটিউট থেকে স্নাতক সম্পন্ন করা শিক্ষার্থীরা অন্য বিভাগ-ইনস্টিটিউটে স্নাতকোত্তর করতে চাইলে ব্যয়বহুল সান্ধ্য কোর্সই ছিল একমাত্র উপায়।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের নতুন নিয়ম অনুযায়ী, এখন থেকে এক বিভাগ/ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীরাও ভর্তি হতে পারবেন আরেক বিভাগ/ইনস্টিটিউটের নিয়মিত স্নাতকোত্তরে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৮৩টি বিভাগ ও ১৩টি ইনস্টিটিউটে স্নাতকোত্তরের আসন রয়েছে ৬ হাজার ২৭০টি। স্নাতক সম্পন্ন করার পর অনেক শিক্ষার্থী বিদেশে চলে যান কিংবা চাকরিতে যোগ দেন। ফলে স্নাতকোত্তরের অনেক আসন ফাঁকা থাকে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক