ঢাকার উন্নয়নে বাজেটে আলাদা বরাদ্দ দাবি

বাজেটে রাজধানী ঢাকার উন্নয়নে আলাদা বরাদ্দ রাখার দাবি জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাংসদ সাবের হোসেন চৌধুরী।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 June 2010, 03:03 AM
Updated : 28 June 2010, 03:03 AM
ঢাকা, জুন ২৮ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)-বাজেটে রাজধানী ঢাকার উন্নয়নে আলাদা বরাদ্দ রাখার দাবি জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাংসদ সাবের হোসেন চৌধুরী।
সাবের হোসেন চৌধুরী বলেন, "ঢাকার উন্নয়নে প্রস্তাবিত বাজেটে বরাদ্দ রাখা সম্ভব না হলেও এরপরের বাজেটে এ জন্য বরাদ্দ রাখলে ভালো হবে।"
সোমবার জাতীয় সংসদের অধিবেশনে প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে সাবের হোসেন চৌধুরী একথা বলেন।
সকাল সাড়ে ১১টায় ডেপুটি স্পিকার শওকত আলীর সভাপতিত্বে সংসদের অধিবেশন শুরু হয়।
আওয়ামী লীগের এই সাংসদ বলেন, "জিডিপির ৩০শতাংশ আসে ঢাকা থেকে এবং ৫০ শতাংশ কর দেয় ঢাকার মানুষেরা। রাজধানী হিসেবেও এই নগরীর গুরুত্ব অপরিসীম। কিন্তু সঠিক পরিকল্পনার অভাবে ঢাকা আজ বসবাসের অযোগ্য হয়ে পড়ছে।"
ঢাকার আশেপাশের জেলা ও ১৩টি ইউনিয়নকে নিয়ে একটি সমন্বিত পরিকল্পনা প্রণয়নেরও পরামর্শ দেন সাবের হোসেন।
সাবের হোসেন চৌধুরী বলেন, "প্রধানমন্ত্রী যাত্রাবাড়ির উড়ালসেতু উদ্বোধন করতে গিয়ে জানিয়েছেন- ঢাকার রাস্তাঘাট উন্নয়নে বারবার তাগাদা দিয়েও মেয়রের কোনো সহযোগিতা পাননি। সিটি করপোরেশনের এই অসহযোগিতা যদি চলতে থাকে তবে ৩০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়ে সাংসদদের মাধ্যমে উন্নয়ন কাজ চালিয়ে নিতে হবে।"
সংসদে তিনি জানান, ঢাকাকে সঠিক ভাবে গড়ে তুলতে পারলে সাংহাইয়ের মতো এই শহরটিও বাংলাদেশের চালিকা শক্তি হয়ে উঠবে।
ঢাকা-৯ আসনের সাংসদ সাবের হোসেন চৌধুরী জানান, তিনি বিশ্লেষণ করে দেখেছেন অনেক পার্থক্য থাকা সত্ত্বেও নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কিছু মিল আছে। সংসদকে কার্যকর করতে বিএনপি তার ইশতেহারে প্রতিশ্র"তি দিয়েছিল ৩০ কার্যকর দিবস অনুপস্থিত থাকলে তার সংসদ সদস্য পদ বাতিল হয়ে যাবে।
এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, "বিরোধী দলীয় নেতা এখানে উপস্থিত থাকলে আমি বিনয়ের সঙ্গে তার কাছে জানতে চাইতাম এই প্রতিশ্র"তি এখন কি অবস্থায় আছে?"
সাবের হোসেন চৌধুরী বলেন, "কিছু বিষয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে একমত হওয়া দরকার। তা নাহলে দেশের সামগ্রিক উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হবে।"
ইঞ্জিন শক্তির ভিত্তিতে গাড়ীর উপর করারোপ করা হয়। কিন্তু গাড়ি থেকে যে পরিবেশ দূষণ হয় তার ওপরও করারোপের প্রস্তাব দিয়ে সাবের বলেন, "ঢাকায় বায়ু দূষণ রোধে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে।"
সাবের হোসেন সামগ্রিক বাজেট ব্যয়ের গুণগত মান বিশ্লেষণেরও পরামর্শ দেন।
বাজেট বতৃতায় জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন হাওলাদার মহাজোটকে আরো শক্তিশালী করার আহবান জানিয়ে বলেন, "মহাজোট গঠন করে আমরা যে সফলতা অর্জন করেছি, অবহেলায় তা যেনো ধূলোয় মিলিয়ে না যায়।"
রুহুল আমিন হাওলাদার দাবি করেন, জাতীয় পার্টির সময়ই রাজধানী ঢাকার অধিকাংশ বড় সড়ক নির্মাণ করা হয়েছে।
গাইবান্ধা-৩ আসনের সাংসদ টি আই এম ফজলে রাব্বী বলেন, "অর্থ মন্ত্রী খেলাপী ঋণ নিয়ে কিছু বলছেন না। খেলাপী ঋণ আদায় করা গেলে উন্নয়নে কারো সাহায্য লাগতো না।"
প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর আরো বক্তব্য রাখেন টিপু মুন্সী, মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, মতিউর রহমান, মেহের আফরোজ, শহিদুল আজম খান, তানভীর শাকিল জয়, শওকত মোমেন শাহজাহান, ফরিদ্ন্নুাহার লাইলী, নাসরিন জাহান রত
তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক