বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেসওয়ের টোল ১ জুলাই থেকে

ঢাকা থেকে মাওয়া হয়ে ভাঙ্গা পর্যন্ত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এক্সপ্রেসওয়ে দিয়ে চলাচলকারী যানবাহনকে আগামী ১ জুলাই থেকে টোল দিতে হবে; যেটির ভিত্তি ধরা হয়েছে কিলোমিটারপ্রতি ১০ টাকা।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 June 2022, 02:58 PM
Updated : 27 June 2022, 03:50 PM

অন্তর্বতী সময়ের জন্য টোল নির্ধারণে সোমবারের এ প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, একটি মাঝারি ট্রাককে ঢাকার পোস্তগোলা সেতু থেকে মাওয়া হয়ে ফরিদপুরের ভাঙ্গা পর্যন্ত ৫৫ কিলোমিটার এক্সপ্রেসওয়ে ব্যবহারে ৫৫০ টাকা টোল দিতে হবে।

সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এ বি এম আমিনুল্লাহ নূরী বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, মাঝারি গাড়িকে স্টান্ডার্ড ধরে প্রতি কিলোমিটারের টোল ১০ টাকা নির্ধারণ করেছি। কাল-পরশুর মধ্যে মোটরসাইকেল ও অন্যান্য ছোট যানবাহন এবং বড় গাড়ির মধ্যে একটি সমন্বিত টোল নির্ধারণ করা হবে।

“কিছু গাড়ির টোল বাড়তে পারে আবার ছোট গাড়ির ক্ষেত্রে কমবে।“

সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উপসচিব ফাহমিদা হক খান স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে নতুন টোলকে ‘অন্তবর্তীকালীন’ উল্লেখ করে বলা হয়েছে, পরে টোল নীতিমালা ২০১৪ অনুযায়ী টোলহার চূড়ান্তভাবে নির্ধারণ করা হবে।

এ এক্সপ্রেসওয়ে দিয়ে চলাচলের সময় বুড়িগঙ্গা সেতু ১, ধলেশ্বরী ও আড়িয়াল খাঁ সেতুর উপর দিয়ে যেতে হয়। এক্সপ্রেসওয়ের টোল দিলে এই তিন সেতুর টোল আর দিতে হবে না বলে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানিয়েছেন উপসচিব ফাহমিদা।

এর বাইরে পদ্মা সেতুর জন্য আলাদা টোল দিতে হবে সব ধরনের যানবাহনকে। দেশের বৃহত্তম এ সেতু পার হতে মোটরসাইকেলের জন্য সর্বনিম্ন ১০০ টাকা এবং বড় ট্রাকের জন্য সর্বোচ্চ ৫৫০০ টাকা টোল দিতে হবে। আর ছোট বাসে ১৪০০ টাকা, মাঝারি বাসে ২০০০ টাকা এবং বড় বাসে ২৪০০ টাকা টোল দিতে হবে। ছোট ট্রাকে ১৬০০ টাকা এবং মাঝারি ট্রাকে ২১০০-২৮০০ টাকা, পিকআপে ১২০০ টাকা টোল নির্ধারণ করা হয়েছে। আর কার ও জিপের টোল ধরা হয়েছে ৭৫০ টাকা এবং মাইক্রোবাসে ১৩০০ টাকা।

এই এক্সপ্রেসওয়ে ধরে ঢাকা থেকে পদ্মার ওপারে ভাঙ্গা পর্যন্ত যেতে ৬ দশমিক ১৫ কিলোমটার পদ্মা সেতু ও ১২ কিলোমিটার সংযোগ সড়ক পাড়ি দিতে হবে।

সেক্ষেত্রে এক্সপ্রেসওয়ে ধরে একটি মাঝারি ট্রাক পদ্মা সেতু পার হলে সেটিকে টোল দিতে হবে ২৬৫০ টাকা (পদ্মা সেতু মাঝারি ট্রাকের নূন্যতম ২১০০ টাকা ধরে)।

সোমবার মহাসড়ক বিভাগের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, অর্থ বিভাগের অনুমোদনের পর অন্তবর্তীকালীন সময়ের জন্য প্রতি কিলোমিটারে ১০ টাকা হারে ভিত্তি টোল নির্ধারণ করা হয়েছে।

এ বিভাগের উপসচিব ফাহমিদা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “টোলের হার নির্ধারণের জন্য ফাইল উপস্থাপন করা হয়েছে। অনুমোদন হলে কোন গাড়ির টোল কত হবে তা প্রজ্ঞাপন আকারে জানিয়ে দেওয়া হবে।”

আর টোল কবে চূড়ান্ত হবে জানতে চাইলে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব আমিনুল্লাহ নূরী বলেন, “ট্রাকসহ অন্যান্য যানবাহনের টোল কী হবে তা ঠিক করতে আমরা কাজ করছি। সেটাও দুয়েকদিনের মধ্যেই ঠিক হয়ে যাবে।“

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়কটি দেশের প্রথম আধুনিক এক্সপ্রেসওয়ে। এ সড়ক ধরে পদ্মা সেতু হয়ে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১টি জেলার সঙ্গে সারাদেশের সরাসরি সংযোগ তৈরি হবে।

চার লেইনের এ সড়ক নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ১১ হাজার কোটি টাকা। এতে ৪৪টি কালভার্ট, ১৯টি আন্ডারপাস, চারটি বড় সেতু, ২৫টি ছোট সেতু, পাঁচটি ফ্লাইওভার, দুটি ইন্টার চেইন, চারটি রেলওয়ে ওভারপাস রয়েছে।

গত বছরের ১১ মার্চ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই মহাসড়ক উদ্বোধন করেন।

এই এক্সপ্রেসওয়ের টোল আদায়ে দক্ষি কোরীয় একটি কোম্পানিকে দায়িত্ব দিয়েছে সরকার। গত ২২ জুন সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে কোরিয়া এক্সপ্রেসওয়ে করপোরেশন- কেইসিকে ৭১৭ কোটি টাকায় এ কাজের জন্য নিয়োগ দেওয়ার প্রস্তাব অনুমোদন করা হয়।

কোম্পানিটি আগামী পাঁচ বছরের জন্য ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়ক’ এর রক্ষণাবেক্ষণ, টোল আদায় ও অন্যান্য পরিচালন কাজে যুক্ত থাকবে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক