কমলা হ্যারিসের দক্ষিণ কোরিয়া সফরের আগে ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ল উত্তর কোরিয়া

যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যে সোমবার থেকে চারদিনের সামরিক মহড়াও শুরু হচ্ছে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 Sept 2022, 05:38 AM
Updated : 25 Sept 2022, 05:38 AM

দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের সেনাদের পূর্বনির্ধারিত একটি সামরিক মহড়া এবং মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসের পূর্ব এশিয়া সফরের আগে নিজেদের পূর্ব উপকূল বরাবর সাগরে একটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছে উত্তর কোরিয়া।

তারা রোববার স্থানীয় সময় সকাল ৭টার আগে আগে উত্তর পিয়ংইয়ং প্রদেশের তায়েচন এলাকার কাছ থেকে স্বল্প পাল্লার ওই ক্ষেপণাস্ত্রটি ছুড়ে বলে দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাহিনীর বরাত দিয়ে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

ক্ষেপণাস্ত্রটি ভূমি থেকে সর্বোচ্চ ৬০ কিলোমিটার উপর দিয়ে উড়ে শব্দের ৫ গুণ গতিতে ৬০০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে গন্তব্য পৌঁছায়।

“উত্তর কোরিয়ার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ বড় ধরনের উসকানি যা কোরীয় উপদ্বীপ ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য হুমকি,” রোববার দেওয়া বিবৃতিতে বলেছে দক্ষিণ কোরিয়ার জয়েন্ট চিফস অব স্টাফ।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, উত্তর ওই ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রটি ছোড়ার পর দক্ষিণ কোরিয়ার জয়েন্ট চিফস অব স্টাফের চেয়ারম্যান কিম সিউং-কিউম ও যুক্তরাষ্ট্র বাহিনী কোরীয় কমান্ডার পল লা কামেরার মধ্যে পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। উত্তর কোরিয়ার যে কোনো ধরনের উসকানি বা হুমকি মোকাবেলায় তারা যে প্রস্তুত সেই বিষয়টিও ফের নিশ্চিত করেছেন তারা। 

তাৎক্ষণিক এক জরুরি বৈঠকে দক্ষিণ কোয়িার জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিল তাদের প্রতিক্রিয়া কী ধরণের হবে তা নিয়ে আলোচনা করে এবং পিয়ংইয়ংয়ের ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপকে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাবের ‘সুস্পষ্ট লংঘন’ ও ‘অযৌক্তিক উসকানিমূলক কাজ’ অ্যাখ্যা দিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও যুক্তরাজ্য সফর করে শনিবার দেশে ফেরা দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টকে উত্তরের ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের বিষয়টি জানানো হয়েছে বলে জানিয়েছে তার কার্যালয়।

জাপানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ইয়াসুকাজু হামাদা বলেন, তাদের অনুমান উত্তরের ক্ষেপণাস্ত্রটি ভূমি থেকে সর্বোচ্চ ৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত উপরে উঠেছিল এবং সম্ভবত এর গতিপথ ছিল অনিয়মিত।

ক্ষেপণাস্ত্রটি সমুদ্রে জাপানের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলের সীমার বাইরে পড়ে এবং এর কারণে জাহাজ বা বিমান চলাচলে বিঘ্ন ঘটার কোনো খবর পাওয়া যায়নি, বলেছেন তিনি।

সাম্প্রতিক সময়ে উত্তর কোরিয়া যেসব স্বল্প পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালাচ্ছে সেগুলো ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাকে পাশ কাটিয়ে চলা ও তুলনামূলক নিচ দিয়ে চলার নকশায় বানানো হচ্ছে, বলছেন সমর বিশেষজ্ঞরা।

“যদি ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্রগুলোকেও ধরা হয়, তাহলে এটা নিয়ে (চলতি বছর) ১৯তম উৎক্ষেপণ, নজিরবিহীর গতিতে ক্ষেপণাস্ত্র মেরে যাচ্ছে তারা।

“উত্তর কোরিয়ার এসব কর্মকাণ্ড আমাদের দেশ, এই অঞ্চল ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য হুমকিস্বরূপ; এই ধরনের কর্মকাণ্ড ইউক্রেইনে আক্রমণের মতোই ক্ষমার অযোগ্য,” ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের প্রতিক্রিয়ায় জাপান এরই মধ্যে বেইজিংয়ে উত্তর কোরিয়ার দূতাবাসের মাধ্যমে প্রতিবাদলিপি পাঠিয়েছে জানিয়ে বলেন হামাদা। 

জুনের শুরুতে একদিনে ৮টি স্বল্প পাল্লার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার তিন মাস পর উত্তর কোরিয়া একই ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ল।

সোমবার থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যে চারদিনের সামরিক মহড়া শুরু হচ্ছে, এতে অংশ নিতে পারমাণবিক শক্তিধর মার্কিন বিমানবাহী রণতরী ইউএসএস রোনাল্ড রিগান এরই মধ্যে দক্ষিণ কোরিয়ায় পৌঁছেও গেছে।

পিয়ংইয়ং সবসময় এ ধরনের সামরিক মহড়াকে তার জন্য হুমকি বিবেচনা করে আসছে।

চলতি সপ্তাহে মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসেরও জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়া সফর করার কথা রয়েছে। তার আগে পিয়ংইয়ংয়ের এই ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ অঞ্চলজুড়ে উত্তেজনা আরও বাড়িয়ে দেবে বলেই মনে করা হচ্ছে। 

ক্ষেপণাস্ত্রটি নিক্ষেপের পর যুক্তরাষ্ট্রের ইন্দো-প্যাসিফিক কমান্ড এক বিবৃতিতে জানায়, তারা উত্তর কোরিয়ার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার বিষয়ে অবগত এবং এ নিয়ে মিত্রদের সঙ্গে আলোচনা চলছে।

বিবৃতিতে দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানের সুরক্ষায় নিজেদের অঙ্গীকারও পুনর্ব্যক্ত করে তারা।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক