উচ্চ সতর্কাবস্থায় রাখা সেনাসংখ্যা ৭ গুণ বাড়াচ্ছে নেটো

পশ্চিমা সামরিক জোট নেটো তাদের উচ্চ সতর্কাবস্থায় রাখা সেনার সংখ্যা ৭ গুণেরও বেশি বাড়িয়ে ৩ লক্ষাধিক করার পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 June 2022, 03:35 PM
Updated : 27 June 2022, 03:35 PM

স্নায়ুযুদ্ধের পর থেকে নেটোর র‌্যাপিড রিঅ্যাকশন ফোর্সের সেনাসংখ্যায় এটিই সবচেয়ে বড় রদবদল পরিকল্পনা। ইউক্রেইনে রাশিয়ার আগ্রাসনের জেরে নেটো এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বিবিসি জানায়, নেটো রেসপন্স ফোর্স (এনআরএফ)-এ বর্তমানে প্রায় ৪০ হাজার সেনা আছে। এই সেনাদের বেশিরভাগই মোতায়েন আছে নেটোর পূর্ব দিকের দেশগুলোতে।

নেটো মহাসচিব ইয়েন্স স্টলটেনবার্গ বলেছেন, রাশিয়ার কাছ থেকে ইউরোপের নিরাপত্তা সরাসরি হুমকির মুকে পড়ায় সেনাসংখ্যা বাড়ানোর এই পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

নেটো ওয়েবসাইটে বলা আছে, এনআরএফ বাহিনীকে দ্রুত প্রস্তুত করা এবং অভিযানের চাহিদা অনুযায়ী এর আকার ও সক্ষমতা কমানো-বাড়ানো যায়।

নেটো মহাসচিব স্টলটেনবার্গ বলেছেন, “আমরা নেটো রেসপন্স ফোর্সকে রূপান্তর করব এবং উচ্চ সতর্কাবস্থায় রাখা সেনাসংখ্যা ৩ লাখের বেশি বাড়াব।”

তাছাড়া, পূর্ব ইউরোপে নেটোর কয়েকটি সেনাদলকে ব্রিগেড পর্যায়ে উন্নীত করা হবে বলে জানান স্টলটেনবার্গ। তিনি বলেন, এর লক্ষ্য রাশিয়াকে সতর্ক করতে একটি স্পষ্ট বার্তা পাঠানো।

ব্রাসেলসে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদেরকে স্টলটেনবার্গ আরও বলেন, “মস্কো, প্রেসিডেন্ট পুতিন আমাদের সমন্বিত নিরাপত্তার অঙ্গীকার এবং নেটো মিত্র দেশে হামলার পরিণতির বিষয়টি বুঝবেন বলে আমার আস্থা আছে।”

“মিত্র দেশে হামলার পরিণতিতে গোটা জোট থেকেই জবাব আসবে। আর সেই জোরাল বার্তা পাঠাতেই আমরা নেটো বাহিনীর উপস্থিতি বাড়াচ্ছি।”

নেটোর র‌্যাপিড রিঅ্যাকশন ফোর্স স্থল, জল এবং আকাশ- এই তিনের সমন্বয়েই গঠিত। হামলার ক্ষেত্রে দ্রুত এই বাহিনী মোতায়েন করা যায়। ২০১৪ সাল থেকে এই বাহিনীর আকার ধীরে ধীরে বেড়ে ১৩,০০০ সেনা থেকে বেড়ে ৪০,০০০ হয়েছে।

ইউক্রেইনে রাশিয়ার আগ্রাসনের প্রেক্ষাপটে নেটোর এইসব বাহিনীর অনেকগুলোকেই প্রথমবারের মতো উচ্চ সতর্কাবস্থায় রাখা হচ্ছে।

নেটোর বহুজাতিক সেনাদলগুলো রাশিয়ার সীমান্তবর্তী লাটভিয়া, এস্তোনিয়া, লিথুনিয়া এবং পোল্যান্ডসহ বেশ কয়েকটি দেশে সক্রিয় রাখা হয়েছে। বুলগেরিয়া, হাঙ্গেরি, রুমানিয়া এবং স্লোভাকিয়াতে আরও বাড়তি সেনাদল মোতায়েনের পরিকল্পনাও রয়েছে।

নেটো মহাসচিব স্টলটেনবার্গ যেসব পরিকল্পনার কথা ঘোষণা করেছেন সেগুলো এ সপ্তাহে মাদ্রিদের নেটো সম্মেলনেই অনুমোদন পাবে বলে মনে করা হচ্ছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক