এসসিও’র সদস্য হওয়ার পথে ইরান

চীন-রাশিয়ার নেতৃত্বাধীন ‘সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশন’ এর স্থায়ী সদস্য হওয়ার মধ্য দিয়ে ইরান মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কারণে সৃষ্ট অর্থনৈতিক বিচ্ছিন্নতা কাটিয়ে উঠতে চাইছে।

রয়টার্সবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 Sept 2022, 04:41 PM
Updated : 15 Sept 2022, 04:41 PM

চীন-রাশিয়ার নেতৃত্বাধীন মধ্য এশীয় নিরাপত্তা সংগঠন ‘সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশন’ (এসসিও)-এর স্থায়ী সদস্য হওয়ার পথে একধাপ এগিয়ে গেছে ইরান।

দেশটি এসসিও সদস্য হওয়ার মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের আরোপ করা নিষেধাজ্ঞার কারণে সৃষ্ট অর্থনৈতিক বিচ্ছিন্নতা থেকে মুক্তির পথ খুঁজছে।

বৃহস্পতিবার ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আবদুল্লাহিয়ান বলেছেন, এসসিও তে যোগ দিতে ইরান একটি প্রতিশ্রুতি স্মারক স্বাক্ষর করেছে।

চলতি সপ্তাহে উজবেকিস্তানের সমরখন্দে এসসিও শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ২০০১ সালে মধ্য এশিয়ায় চীন, রাশিয়া এবং সাবেক সোভিয়েত দেশগুলোর কথাবার্তা বলার একটি ফোরাম হিসাবে এই সংগঠন গড়ে ওঠে।

চার বছর আগে এই সংগঠনের পরিধি বিস্তৃত হয়। এতে যোগ দেয় ভারত এবং পাকিস্তানও। লক্ষ্য ছিল, মধ্য এশিয়া অঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবের পাল্টা শক্তি হিসাবে বড় ধরনের ভূমিকা রাখা।

আর এখন ইরান এসসিও’র পূর্ণ সদস্যপদের জন্য নথি স্বাক্ষর করে নানা অর্থনৈতিক, বাণিজ্যিক, ট্রানজিট ও জ্বালানি সহযোগিতার এক নতুন মঞ্চে প্রবেশ করল বলে ইন্সটাগ্রামে জানিয়েছেন ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

উজবেকিস্তানের সমরখন্দে বৃহস্পতিবারের এসসিও সম্মেলনে যোগ দিচ্ছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি। সম্মেলনের ফাঁকে তিনি রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেছেন বলে জানিয়েছে ইরানের রাষ্ট্রীয় টিভি।

এসসিও’র উপ-মহাসচিব গ্রিগোরি লগভিনভ রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় টিভি-কে বলেছেন, ইরান এখন থেকে সংস্থার বৈঠকে অংশ নিতে পারবে। তবে সংগঠনে দেশটির পূর্ণ সদস্যপদ পেতে কিছুটা সময় লাগতে পারে।

এসসিও’র সদস্যপদের জন্য ইরানের স্মারক সই করার কথা জানিয়েছে এই রুশ রাষ্ট্রীয় টিভিও।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক