মাঠে ফিরেই হলান্ডের জোড়া রেকর্ড, বায়ার্নের ১০২

চোটের কারণে প্রায় দেড় মাস বাইরে থাকলেও ধার যে এতটুকু কমেনি তার প্রমাণ মাঠে ফিরেই দিলেন আর্লিং হলান্ড। ভলফসবুর্কের বিপক্ষে বদলি নেমেই বল পাঠালেন জালে। সেই সঙ্গে গড়লেন সবচেয়ে কম বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে বুন্ডেসলিগায় ৫০ গোলের অসামান্য কীর্তি।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 Nov 2021, 08:34 PM
Updated : 27 Nov 2021, 08:52 PM

জার্মানির শীর্ষ লিগে ভলফসবুর্কের মাঠে শনিবার শুরুতে পিছিয়ে পড়ার পর ঘুরে দাঁড়িয়ে ম্যাচটি ৩-১ গোলে জিতেছে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড।

বাউট বেহোস্টের গোলে ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই পিছিয়ে পড়ে ডর্টমুন্ড। ৩৫তম মিনিটে সফল স্পট কিকে সমতা টানেন এমরে কান। আর দ্বিতীয়ার্ধের দশম মিনিটে ডি-বক্সের বাইরে থেকে দোনিয়ের মালেনের গোলে এগিয়ে যায় ডর্টমুন্ড।

৭৩তম মিনিটে মালেনের বদলি নেমেই রেকর্ড গড়েন মধ্য অক্টোবর থেকে নিতম্বের চোটে বাইরে থাকা হলান্ড। মাঠে নামার সাত মিনিট পরই বাঁ দিক থেকে সতীর্থের গোলমুখে বাড়ানো ক্রসে বা বাড়িয়ে ভলিতে বল জালে পাঠান তিনি।

২১ বছর ১২৯ দিন বয়সে বুন্ডেসলিগায় ৫০ গোল করলেন হলান্ড। এতদিন রেকর্ডটি ছিল সাবেক জার্মান ফরোয়ার্ড ক্লাউস ফিশার, ২১ বছর ২৯৩ দিন বয়সে আগের রেকর্ডটি গড়েছিলেন তিনি।

বুন্ডেসলিগায় সবচেয়ে কম ম্যাচে ৫০ গোল করার রেকর্ডও এখন হলান্ডের। মাইলফলকটি ছুঁয়েছেন তিনি ঠিক ৫০ ম্যাচে। আগের রেকর্ড ছিল টিমো কোনিয়ৎস্কার, ৬৩ ম্যাচে।

চলতি আসরে সাত ম্যাচে হলান্ডের গোল হলো ১০টি।

দিনের আরেক ম্যাচে একটি রেকর্ড গড়েছে বায়ার্ন মিউনিখও। লেরয় সানের একমাত্র গোলে আর্মিনিয়াকে হারিয়েছে শিরোপাধারীরা।

বুন্ডেসলিগায় ২০২১ সালে বায়ার্নের এটি ১০২তম গোল, ৪৪ বছরের ইতিহাসে যা সর্বোচ্চ। ১৯৭৭ সালে ১০১টি গোল করেছিল কোলোন।

বায়ার্ন ও ডর্টমুন্ডের শিরোপা লড়াইও বেশ জমে উঠেছে। ১৩ ম্যাচে ১০ জয় ও এক ড্রয়ে ৩১ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে ইউলিয়ান নাগেলসমানের বায়ার্ন। ১ পয়েন্ট কম নিয়ে দুইয়ে ১০ ম্যাচ জেতা ডর্টমুন্ড।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক