আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দাদের সঙ্গে বিদেশি নাগরিকদের সাক্ষাৎ

বুধবার সকালে তারা নগরকান্দার কাইচাইল ইউনিয়নের কফাই বালিয়ায় এই আশ্রয়ণ প্রকল্পে পৌঁছান।

ফরিদপুর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 Nov 2022, 07:07 PM
Updated : 30 Nov 2022, 07:07 PM

ফরিদপুরের নগরকান্দায় আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দাদের সঙ্গে দেখা করে খোঁজ-খবর নিয়েছেন বিভিন্ন দপ্তরে কর্মরত ১৬ দেশের কর্মকর্তারা।

বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নগরকান্দা উপজেলার কাইচাইল ইউনিয়নের কফাই বালিয়ায় এই আশ্রয়ণ প্রকল্পে পৌঁছান তারা। 

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. আতিকুল হকের নেতৃত্বে ৪০ সদস্যের দলটি এখানে আসে। 

জেলা প্রশাসক অতুল সরকার ও পুলিশ সুপার মো. শাহজাহানসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা সবাইকে ফুলের শুভেচ্ছা জানান। 

ভারত, ভিয়েতনাম, ফিলিপাইন, নেপাল, শ্রীলংকা, থাইল্যান্ড ও কম্বোডিয়ার সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা এবং আন্তর্জাতিক ১৩টি এনজিওর কর্মকর্তারা ওই দলে ছিলেন। 

গত ২৮ নভেম্বর তিন দিনব্যাপী এশিয়া শেল্টার ফোরামের বার্ষিক সম্মেলনে যোগ দিতে ঢাকায় আসেন এই দলটি। ২৯ নভেম্বর ঢাকায় সম্মেলন শেষে ফিল্ড ভিজিটের অংশ হিসেবে তারা আশ্রয়ণ প্রকল্প পরিদর্শনে আসেন। 

এই দলটির আশ্রয়ণ প্রকল্প পরিদর্শনে আসাকে কেন্দ্র করে প্রকল্পের বাসিন্দাদের মধ্যে উৎসাহ উদ্দীপনা লক্ষ্য করা গেছে। পুরো এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়।

কফাই বালিয়া আশ্রয়ন প্রকল্পের বাসিন্দা ছাবেরা খাতুন বলেন, “আমাগো খুব ভালো লাগছে। তারা আমাগো লগে কথা কইছে ইংরেজিতে, আমরা কিছু না বুঝলেও আমাগো হাসিতে তারা বুঝছে, আমরাও হেসেছি। আমাগো ঘরে বইসা আমাগো খোঁজ-খবর নেছে, খুব ভালো লাগছে।” 

আশ্রয়ন প্রকল্পের আরেক বাসিন্দা জোহরা খাতুন বলেন, “আমার ঘরে মুড়ি ছিল; তা খেতে দিছি; তারা তা খাইছে। আমার খুব ভালো লাগছে। আগে তো থাকনের জায়গা ছিল না। প্রধানমন্ত্রী একটু থাকনের ব্যবস্থা করছে, সেখানে বিদেশি মেহমান আইছে। তাদের মুড়ি খাইয়াইতে পারছি; এর চেয়ে আর খুশির কী হতে পারে।” 

ফিলিপাইন থেকে আসা মেরিয়া নবলেজা এখানকার মানুষের আতিথেয়তার প্রশংসা করেছেন। 

ভিয়েতনাম থেকে আসা কালতস সরকারের এই কার্যক্রমের প্রশংসা করেন এবং এই ধরনের কার্যক্রম তাদের দেশে ও বিভিন্ন দেশে পরিচালনার আশাবাদ ব্যক্ত করেন। 

এদিকে বিদেশি নাগরিকদের আশ্রয়ণ প্রকল্পে আসা উপলক্ষে স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন ধরনের পিঠা-পুলি, পাপর, গরম জিলাপী, হালিমসহ বিভিন্ন খাবারের স্টল দেওয়া হয়। সেখান থেকে তারা বিভিন্ন ধরনের খাবার খেয়ে খুব খুশি। ঘুরে ঘুরে বিভিন্ন স্টল থেকে তারা খাবার খেয়েছেন। 

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার বলেন, জেলার বিভিন্ন উপজেলায় পাঁচ হাজারের অধিক গৃহহীনকে ঘর প্রদান করা হয়েছে। নগরকান্দা উপজেলার কাইচাইল ইউনিয়নের কফাই বালিয়া এলাকায় আশ্রয়ন প্রকল্পে ১২০ জন গৃহহীন মাথা গোজার ঠাঁই পেয়েছেন। 

তিনি আরও বলেন, কফাই বালিয়া প্রকল্পে বিদেশি নাগরিকরা এসে খুব খুশি হয়েছেন। প্রকল্পের বাসিন্দারাও খুব আনন্দিত। 

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. আতিকুল হক বলেন, গত ২৮ নভেম্বর তিন দিনব্যাপী এশিয়া শেল্টার ফোরামের বার্ষিক সম্মেলনে যোগ দিতে ঢাকায় আসেন এই দলের সদস্যরা। ২৯ নভেম্বর ঢাকায় সম্মেলন শেষে ফিল্ড ভিজিটের অংশ হিসেবে আশ্রয়ণ প্রকল্প পরিদর্শনে নিয়ে আসা হয় তাদের।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক