ক্যান্সারের রোগী নিয়ে অ্যাম্বুলেন্সটি ঢাকা যাচ্ছিল, ৩ লাশ হস্তান্তর

জাহানারা বেগম ক্লোন ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন। ব্রেইন স্ট্রোক করায় পরিবারের সদস্যরা ঢাকার হাসপাতালে নিচ্ছিলেন তাকে।

শরীয়তপুর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 Jan 2023, 08:04 AM
Updated : 17 Jan 2023, 08:04 AM

শরীয়তপুরের জাজিরায় অ্যাম্বুলেন্স দুর্ঘটনায় নিহতের মধ্যে জাহানারা বেগম ক্যান্সার আক্রান্ত ছিলেন; গুরুতর অবস্থায় তাকে নিয়ে স্বজনরা ঢাকার হাসপাতালে ছোটার পথে প্রাণ হারালেন সবাই।

জাহানারা বেগমের মেয়ে শিল্পি আক্তার বলেন, তার মা কোলন ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন। ব্রেইন স্ট্রোক করায় প্রথমে বরিশালের বেলভিউ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় রাতেই তার মাকে নিয়ে ঢাকায় রওয়ানা হয় তার আত্মীয়-স্বজন।

“পথে জাজিরার পদ্মাসেতু প্রান্তে দুর্ঘটনার শিকার হলে ঘটনাস্থলেই তারা মারা যায়।”

এদিকে দুর্ঘটনায় নিহত ছয়জনের মধ্যে তিনজনের লাশ জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে তাদের পরিবারের কাছে হন্তান্তর করা হয়েছে বলে হাইওয়ে ফরিদপুর সার্কেল এএসপি মো. মারুফ হাসান জানান।

এরা হলেন- খুলনার দীঘলিয়ার চন্দনিমহল ৬ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা অ্যম্বুলেন্স চালকের সহকারী রবিউল ইসলাম (২৬) পটুয়াখালীর বাউফল থানার আমেরিকান প্রবাসী লতিফ মল্লিকের স্ত্রী জাহানারা বেগম (৫৫) ও তার মেয়ে লুৎফুন্নাহার লিমা (২৮)।

বাকিদের স্বজনরা আসলেই তাদের কাছে লাশগুলো হস্তান্তর করে দেওয়া হবে এএসপি জানান।

জাজিরা উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিহতদের পরিবারকে তাৎক্ষণিক ‘মানবিক ফান্ড’ থেকে নগদ ১০ হাজার টাকা করে অর্থ সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।

জাজিরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কামরুল হাসান সোহেল বলেন, “আমরা আমাদের তাৎক্ষণিক মানবিক সহায়তা ফান্ড থেকে নগদ ১০ হাজার টাকা করে মোট ৬০ হাজার টাকা অর্থ সহায়তা প্রদান করি। এই সহায়তাটা মূলত তাদের সৎকার কাজে সহযোগিতার জন্য করা হয়ে থাকে।”

মঙ্গলবার ৪টার দিকে শরীয়তপুরের জাজিরায় পদ্মাসেতু দক্ষিণ থানার কাছাকাছি এলাকায় পদ্মা সেতুতে ওঠার আগে একটি ট্রাকের পেছনে ধাক্কা খেয়ে অ্যাম্বুলেন্সের ছয় আরোহীর প্রাণ যায়।

পদ্মাসেতু দক্ষিণ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সুরুজ উদ্দিন আহমেদ জানান, এলপি গ্যাসের সিলিন্ডারবোঝাই ট্রাকটি ঢাকার দিকে যাচ্ছিল। পেছনে থাকা অ্যাম্বুলেন্সটিও বরিশাল থেকে রোগী ও স্বজনদের নিয়ে ঢাকার দিকে যাচ্ছিল।

জাজিরায় পদ্মা সেতু টোল প্লাজার কাছে গতি নিরোধক পার হওয়ার সময় চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে অ্যাম্বুলেন্সটি ট্রাকের পেছনে সজোরো ধাক্কা খায়। তাতে অ্যাম্বুলেন্সটির সামনের অংশ ট্রাকের নিচে ঢুকে দুমড়েমুচড়ে যায়।

নিহত বাকিরা হলেন- পটুয়াখালীর দশমিনার আদমপুর এলাকার আব্দুল রাজ্জাক মল্লিকের ছেলে ফজলে রাব্বি (২৮), নবচেতনা পত্রিকার বরিশাল ব্যুরো প্রধান সাংবাদিক মাসুদ রানা (৩০) ও মাদারীপুরের মস্তফাপুর এলাকার অ্যাম্বুলেন্স চালক জিলানি (২৮)।

বরিশাল বেলভিউ হাসপাতাল থেকে রাত ২টার দিকে অ্যাম্বুল্যান্সে করে ঢাকার উদ্দ্যেশে রওনা দিয়েছিলেন তারা।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক