উত্তরের পথ ফাঁকা

ঈদযাত্রার শেষ দিনে গাজীপুর-টাঙ্গাইল-সিরাজগঞ্জ হয়ে উত্তরাঞ্চলের পথ অনেকটাই ফাঁকা দেখা গেছে; ফলে যারা বাড়ি যাচ্ছেন তারা সাচ্ছন্দেই ফিরতে পারছেন।

টাঙ্গাইল প্রতিনিধিসিরাজগঞ্জ ও বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 2 May 2022, 09:23 AM
Updated : 2 May 2022, 09:23 AM

সোমবার সকাল থেকেই প্রায় যানবাহন শূন্য ঢাকা-সিরাজগঞ্জ-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়ক। কোনো যানজট নেই; পরিবহন শ্রমিকদের হাঁকডাক নেই, যাত্রীদের নেই কোনো ব্যস্ততা।

বিগত বছরগুলোতে ঈদযাত্রা মানেই ছিল এই মহাসড়কে তীব্র যানজট। কিন্তু এবার ঈদযাত্রায় ছিল তার উল্টো চিত্র।

অতীতে বঙ্গবন্ধু বহুমুখী সেতুর দুই প্রান্তে যেসব স্থানে যানবাহনের দীর্ঘ সারিতে ঘরমুখো মানুষকে ভোগান্তি পোহাতে হতো এবার সেই স্থানগুলোতে যানজট তো দূরের কথা, স্বাভাবিক চাপও নেই।

বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানার ওসি মোসাদ্দেক আলী বলেন, রোববার বিকাল থেকেই মহাসড়কে যানবাহনের চাপ কমতে থাকে। সোমবার ভোর থেকে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম সংযোগ মহাসড়ক অনেকটা ফাঁকা।

“পরিবারের সঙ্গে ঈদ আনন্দ উপভোগ করতে গণপরিবহণের পাশাপাশি মোটরসাইকেল, ট্রাক ও পিকআপে করে বাড়ি ফিরছে মানুষ।”

হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানার ওসি লুৎফর রহমান বলেন, ঈদযাত্রায় স্বস্তি নিয়ে বাড়ি ফিরছে মানুষ। ফাঁকা মহাসড়কে যানবাহনের সংখ্যা অনেক কমে গেছে। মহাসড়ক স্বাভাবিক রাখতে ২৬টি পয়েন্টে জেলা পুলিশ, আর্মড পুলিশ, ট্রাফিক ও হাইওয়ে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

এদিকে টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা গোলচত্বরের একজন দোকানি বলেন, সকাল থেকে কোনো গাড়ি নেই। হঠাৎ হঠাৎ একটা গাড়ি যাচ্ছে, তাও প্রাইভেটকার। রাস্তা ফাঁকা। গত কয়েকদিন তো মোটরসাইকেল গেছে হাজারে হাজারে। আজ কোনো মোটরসাইকেলও নেই।

টাঙ্গাইল জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) সরকার মোহাম্মদ কায়সার দুপুরে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম বলেন, এখন তো রাস্তাঘাট ফাঁকা। মহাসড়ক নিয়ন্ত্রণে ঈদের চাঁন রাত পর‌্যন্ত আমাদের পরিকল্পনা ছিল। আমরা যে কৌশল নিয়েছিলাম তা সফল হয়েছে। মানুষ আরামে বাড়ি গেছে। কোনো ভোগান্তি পোহাতে হয়নি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক