প্রকল্পে যেন চাঁদাবাজি না হয়: পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী

লক্ষ্মীপুরে একটি বাঁধ নির্মাণ প্রকল্প উদ্বোধন করতে এসে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক প্রকল্পের কাজে চাঁদাবজির বিরুদ্ধে সজাগ থাকতে বলেছেন এলাকাবাসীকে।

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 9 Jan 2022, 11:46 AM
Updated : 9 Jan 2022, 11:46 AM

রোববার দুপুরে লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার মেঘনা নদী সংলগ্ন মাতাব্বরহাট এলাকায় তীররক্ষা বাঁধ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন তিনি।

লক্ষ্মীপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড থেকে জানা গেছে, মেঘনা নদীর ‘বড়খেরী, লুধুয়াবাজার এবং কাদির পন্ডিতের হাট বাজার’ তীররক্ষা প্রকল্প নামের ৩৩ দশমিক ২৬ কিলোমিটার দীর্ঘ প্রকল্পটি ২০২১ সালের ১ জুন পাশ করে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। এতে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৩ হাজার ৮৯ কোটি ৯৬ লাখ ৯৯ হাজার টাকা।

প্রায় একশ লটের মাধ্যমে মোট ৩ হাজার ৪০০ মিটার দীর্ঘ বাঁধের কাজ হবে। রোববার দুটি লটের কাজ উদ্বোধন করেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এলাকাবাসীর উদ্দেশে বলেন, এটা আপনাদের প্রকল্প। সঠিকভাবে বাস্তবায়ন ও টেকসই বাঁধ যেন হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। জনপ্রতিনিধি এবং এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে কমিটি গঠন করা হবে। প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি লক্ষ্য রাখবে কাজ যেন সঠিকভাবে বাস্তবায়ন হয়। 

“আর যাতে এ প্রকল্প থেকে চাঁদাবাজি না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখবেন। কোনো চাঁদাবাজকে প্রশ্রয় দিবেন না। প্রকল্প সঠিকভাবে বাস্তবায়ন হলে আপনারা ভালো থাকবেন। আপনাদের ভাগ্য পরিবর্তন হবে।”

নিজেকে নদীভাঙন কবলিত এলাকার মানুষ উল্লেখ করে জাহিদ ফারুক এমপি বলেন, “নদীভাঙা মানুষের ব্যথা আমি বুঝি। তারা ভিটেমাটি হারিয়ে সর্বশান্ত হয়ে পড়ে।” 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ সম্পদশালী দেশ হওয়া সম্ভব হয়েছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, সম্পদশালী দেশ হলে যুব সমাজ আর বিদেশে গিয়ে কাজ করতে হবে না। দেশেই কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। 

লক্ষ্মীপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের আয়োজনে এবং জেলা প্রশাসক মো. আনোয়ার হোছাইন আকন্দের সভাপতিত্বে বাঁধ নির্মাণ কাজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সাংসদ আবদুল মান্নান, সাংসদ নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক ফজলুর রশিদ, অতিরিক্ত মহাপরিচালক (পূর্ব রিজিওয়ান) অখিল কুমার বিশ্বাস, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি গোলাম ফারুক পিংকু প্রমুখ।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক