পাখির চোখে আখাউড়ার আশ্রয়ণ প্রকল্প

  • আখাউড়ার এ আশ্রয়ণ প্রকল্পে ১ একর ৮০ শতক জায়গাজুড়ে গড়ে তোলা হয়েছে ৪৫টি সেমি পাকা বাড়ি।

    আখাউড়ার এ আশ্রয়ণ প্রকল্পে ১ একর ৮০ শতক জায়গাজুড়ে গড়ে তোলা হয়েছে ৪৫টি সেমি পাকা বাড়ি।

  • ২ শতক জায়গার উপর নির্মিত সেমি পাকা এসব বাড়ির প্রতিটিতে আছে একটি বারান্দা, দুটি শোবার ঘর, একটি করে গোসলখানা, টয়লেট ও রান্নাঘর।

    ২ শতক জায়গার উপর নির্মিত সেমি পাকা এসব বাড়ির প্রতিটিতে আছে একটি বারান্দা, দুটি শোবার ঘর, একটি করে গোসলখানা, টয়লেট ও রান্নাঘর।

  • এছাড়া প্রতিটি বাড়ির সামনে চলাচলের জায়গাসহ বাগান করার জন্যও পর্যাপ্ত খোলা জায়গা রাখা হয়েছে।

    এছাড়া প্রতিটি বাড়ির সামনে চলাচলের জায়গাসহ বাগান করার জন্যও পর্যাপ্ত খোলা জায়গা রাখা হয়েছে।

  • আখাউড়ার প্রকল্পটি ৩টি ব্লকে বিভক্ত। প্রতিটি ব্লকে একটি করে খোলা মাঠ রাখা হয়েছে। প্রথম মাঠে এখানে বসবাসরতরা আত্মকর্মসংস্থানের জন্য ক্ষুদ্র ব্যবসা, দ্বিতীয় মাঠে উপকারভোগীদের সন্তানদের খেলাধূলা এবং তৃতীয় মাঠটি বিভিন্ন অনুষ্ঠানের জন্য ব্যবহার করতে পারবে।

    আখাউড়ার প্রকল্পটি ৩টি ব্লকে বিভক্ত। প্রতিটি ব্লকে একটি করে খোলা মাঠ রাখা হয়েছে। প্রথম মাঠে এখানে বসবাসরতরা আত্মকর্মসংস্থানের জন্য ক্ষুদ্র ব্যবসা, দ্বিতীয় মাঠে উপকারভোগীদের সন্তানদের খেলাধূলা এবং তৃতীয় মাঠটি বিভিন্ন অনুষ্ঠানের জন্য ব্যবহার করতে পারবে।

  • আখাউড়ার এ আশ্রয়ণ প্রকল্পে যে ৪৫টি পরিবার তাদের স্থায়ী ঠিকানা পেয়েছেন, তাদের অধিকাংশই ভিক্ষুক, দিনমজুর, আশ্রিতা, গৃহকর্মী, রিকশাচালক, ভ্যানচালক।

    আখাউড়ার এ আশ্রয়ণ প্রকল্পে যে ৪৫টি পরিবার তাদের স্থায়ী ঠিকানা পেয়েছেন, তাদের অধিকাংশই ভিক্ষুক, দিনমজুর, আশ্রিতা, গৃহকর্মী, রিকশাচালক, ভ্যানচালক।

  • নানা রকম ভিন্নতার জন্য আখাউড়ার এই প্রকল্পটি চট্টগ্রাম বিভাগের শ্রেষ্ঠ প্রকল্প হিসেবেও নির্বাচিত হয়েছে।

    নানা রকম ভিন্নতার জন্য আখাউড়ার এই প্রকল্পটি চট্টগ্রাম বিভাগের শ্রেষ্ঠ প্রকল্প হিসেবেও নির্বাচিত হয়েছে।

  • ৪৫টি বাড়ির প্রতিটিতেই দেওয়া হয়েছে বিদ্যুৎ সংযোগ। বিশুদ্ধ পানির জন্য বসানো হয়েছে গভীর নলকূপ।

    ৪৫টি বাড়ির প্রতিটিতেই দেওয়া হয়েছে বিদ্যুৎ সংযোগ। বিশুদ্ধ পানির জন্য বসানো হয়েছে গভীর নলকূপ।