চট্টগ্রামে নানা আয়োজনে শেখ হাসিনার জন্মদিন উদযাপন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সমগ্র বিশ্বে ‘অবাক বিস্ময়’,বলেছেন আ জ ম নাছির।

চট্টগ্রাম ব্যুরোবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 Sept 2022, 06:38 PM
Updated : 28 Sept 2022, 06:38 PM

চট্টগ্রামে নানা আয়োজনে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন হয়েছে। 

বুধবার নগরীর থিয়েটার ইনস্টিটিউট প্রাঙ্গণে জন্মবার্ষিকীর আলোচনা সভা করে নগর আওয়ামী লীগ।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে নগর কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দীন চৌধুরী বলেন, “শত্রুর মুখে ছাই দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ধ্বংসের ছাই থেকে গ্রিক পুরানের ফিনিক্স পাখির মতো বাংলাদেশকে পুনরুদ্ধার করেছেন। আজ সারা দেশতো বটেই, সমগ্র বিশ্বে শেখ হাসিনার জয়ধ্বনি শুনি। তাই আবারও দরকার শেখ হাসিনা সরকার।”

নগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, “প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সমগ্র বিশ্বে অবাক বিস্ময়, উনার বিকল্প একমাত্র উনি নিজেই। শত প্রতিকূলতা পেরিয়ে একটি স্বল্পোন্নত দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করে বিশ্বে বাংলাদেশকে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত করেছেন।

“যারা একাত্তরে হানাদার বাহিনীর লেজুড় ছিল এবং বাংলাদেশ চায়নি, তারা এদেশের অস্তিত্বকে বিপন্ন করতে চায়। কোন অপশক্তি বাঙালিকে দাবিয়ে রাখতে পারেনি। তাই আমাদের প্রত্যয় ও বিশ্বাস আছে যে, আমরা জিততে জানি এবং জিতবোই। আমাদের হারাবার কিছু নেই, জয় করবার মত আছে সমগ্র বিশ্ব।” 

নগরের প্রচার সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুকের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সহ-সভাপতি নঈম উদ্দিন চৌধুরী ও আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম, নির্বাহী সদস্য মহব্বত আলী খান প্রমুখ।

নগরীর বেসরকারি প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপাচার্য ড. অনুপম সেন বলেন, “উনার উন্নয়নের কারণে বাংলাদেশ আজ বিশ্বমানচিত্রে গৌরবের আসনে অধিষ্ঠিত।

“১৯৪৭ সালে পাকিস্তান রাষ্ট্রের অভ্যুদয়ের পরে বাংলার পরাধীন মানুষের ত্রাণকর্তা হিসেবে আবির্ভূত হন শেখ মুজিবুর রহমান। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে তিনি বাঙালিকে উপহার দিয়েছেন স্বাধীনতা, প্রথম স্বাধীন বাংলাদেশ রাষ্ট্র। বঙ্গবন্ধু স্বপ্ন দেখেছিলেন, মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে পাওয়া বিধ্বস্ত বাংলাদেশ হবে সোনার বাংলা। উনার সেই স্বপ্ন পূরণ করতে চলেছেন উনারই সুযোগ্য কন্যা দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা।”

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. কাজী শামীম সুলতানা, ট্রেজারার অধ্যাপক একেএম তফজল হক, রেজিস্ট্রার খুরশিদুর রহমান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক শেখ মুহাম্মদ ইব্রাহিম ও ব্যবসা-শিক্ষা অনুষদের সহকারী ডিন প্রফেসর এম মঈনুল হক।

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন আয়োজিত প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ভারপ্রাপ্ত মেয়র আফরোজা কালাম বলেন, “গত চার দশক নিজ রাজনৈতিক প্রজ্ঞা ও আপসহীন নেতৃত্বের মাধ্যমে দেশের অসাম্প্রদায়িক-গণতান্ত্রিক রাজনীতির মূল স্রোতধারার প্রধান নেতা হিসেবে তিনি নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেন।

“বিশ্বের সমস্যা সংকট নিরসনের পাশাপাশি শোষিত-নিপীড়িত মানুষের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে অসামান্য অবদান রাখায় উনাকে এখন বিশ্ব নেতাদের সারিতে মর্যাদা দেয়া হয়। তিনি এখন বাংলাদেশের মুখচ্ছবি, উনার হাত ধরেই বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের স্বপ্নশিখরে। তিনি আজ বাংলাদেশের আশা আকাঙ্খার মূর্ত প্রতীক।”

সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহীদুল আলম এর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন কাউন্সিলর আব্দুস সালাম মাসুম, আবদুল মান্নান, আবুল হাসনাত মো. বেলাল, মোরশেদ আলী, সংরক্ষিত কাউন্সিলর আনজুমান আরা, রুমকি সেনগুপ্ত, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলাম, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা লুৎফুন নাহার প্রমুখ।

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে (সিভাসু) বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার জন্মদিনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিশারিজ অনুষদের ডিন ও ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ নুরুল আবছার খানের উপস্থিতিতে কেক কাটা হয়।

এসময় শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মো: মাসুদুজ্জামান ও সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিনসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে সরকারি হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজ ছাত্রলীগের বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচি পালন করে কলেজ ক্যাম্পাসে। এছাড়া দোয়া মাহফিল ও খাবার বিতরণ করা হয়।

কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মায়মুন উদ্দীন মামুন বলেন, “মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এক ফিনিক্স পাখি। তিনি বাংলাদেশের স্বপ্ন, সম্ভাবনা ও সক্ষমতার প্রোজ্জ্বল প্রতীক। তৃতীয় বিশ্বের একটি দরিদ্র দেশকে তিনি পৌঁছে দিয়েছেন আলোকোজ্জ্বল এক স্বপ্নের সরণিতে।”

এদিকে নগরীর সৈয়দ বদনা শাহ মাজারে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল এবং দুস্থদের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ করা হয় যুবলীগ নেতা নুরুল আজিম রনির উদ্যোগে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগ নেতা আকতার হোসেন সৌরভ, চট্টগ্রাম মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আব্দুল্লাহ আল তানিম চৌধুরী, আরফাত উল করিম, মেহেদী হাসান, কুতুববউদ্দিন, রেজাউল আলম রিপন, আশিকুন্নবী, জিএস আমিনুল করিম, মিজানুর রহমান মিজান প্রমুখ।

ছোটদের জন্য ‘হাসিনা: আ ডটার’র টেল’

পর্দায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিশুদের সঙ্গে খুনসুটিতে মেতে ছিলেন। এই দৃশ্য দেখে হাসিতে ভেঙে পড়ে ছোটমনি নিবাসের শিশুরা।

বুধবার বিকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে ‘হাসিনা: আ ডটার’স টেল’ প্রামাণ্য চিত্রটি দেখতে এসেছিলেন নগরীর রৌফাবাদের ছোটমনি নিবাসের শ’খানেক শিশু।

আতাউর রহমান খান কায়সার স্মৃতি সংসদের উদ্যোগে এবং বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ওয়াসিকা আয়শা খানের পৃষ্ঠপোষকতায় এই প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শনী আয়োজন করা হয়।

প্রদর্শনী শুরুর আগে ওয়াসিকা বলেন, “বঙ্গবন্ধুকন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন আজ নানা আয়োজনে পালিত হচ্ছে। আমাদের প্রচেষ্টা এভাবেই ভবিষ্যৎ প্রজন্ম বাংলাদেশ, জাতির পিতা ও জননেত্রীকে জানুক।

“প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন আমাদের জন্য উদযাপনের। এমন দিনে এই সুবিধা বঞ্চিত শিশুরা যাতে অন্য শিশুদের মতই উপভোগ করতে পারে তাই এই প্রয়াস।”

ছোটমনি নিবাসের দশম শ্রেণি ছাত্রী নূরজাহান আক্তার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “যখন ১৫ অগাস্টের অন্ধকার রাতে গুলির শব্দ হচ্ছিল, তারপর জাতির পিতার পরিবারের সবার ছবি দেখানো হলো। আর কেউ বেঁচে ছিলেন না। উনারা দুই বোন ছাড়া। এ দৃশ্য দেখে খুব খারাপ লেগেছে।”

সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী সানজিদা আলম বলেন, “খুব ভালো লেগেছে যখন দেখলাম প্রধানমন্ত্রী ব্যাডমিন্টন খেলছেন ঘরের বাচ্চাদের সাথে। কোলে করে নাতি-নাতনিদের আদর করছেন।”

 প্রামাণ্য চিত্রে পান্না লালের গাওয়া ‘সাধ না মিটিলো আশা না পুরিলো’ গানের সাথে বিয়োগান্তক সুরে চোখে ভিজেছে অনেক দর্শকের।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান ও কয়েকজন বীর মুক্তিযোদ্ধা।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক