জিম্বাবুয়েকে গুঁড়িয়ে এগিয়ে গেল ভারত

প্রথম ওয়ানডেতে স্বাগতিকদের ১০ উইকেটে হারিয়েছে সফরকারীরা।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 August 2022, 03:13 PM
Updated : 18 August 2022, 03:13 PM

বাংলাদেশকে ৯ বছর পর ওয়ানডে সিরিজ হারানোর আত্মবিশ্বাস ছিল জিম্বাবুয়ের সঙ্গী। কিন্তু ভারতের সামনে দাঁড়াতেই পারল না তারা। দিপক চাহার, প্রসিধ কৃষ্ণা, আকসার প্যাটেলের দুর্দান্ত বোলিংয়ে মুখ থুবড়ে পড়ল তাদের ব্যাটিং। পরে শিখর ধাওয়ান ও শুবমান গিলের উদ্বোধনী জুটিই শেষ করে দিল ম‍্যাচ।

৬ বছর পর জিম্বাবুয়ে সফরে গিয়ে বড় জয় দিয়ে শুরু করল ভারত। হারারে স্পোর্টস ক্লাবে বৃহস্পতিবার প্রথম ওয়ানডেতে ১০ উইকেটে জিতে তিন ম্যাচের সিরিজে এগিয়ে গেল তারা। প্রতিপক্ষকে ১৮৯ রানে থামিয়ে ১১৫ বল আগে জয়ের বন্দরে পৌঁছে গেল তারা।

এনিয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টানা ১৩ ওয়ানডে জিতল ভারত, তৃতীয়বার জিতল ১০ উইকেটে। সব মিলিয়ে কোনো উইকেট না হারিয়ে জয়ের অভিজ্ঞতা হলো তাদের আটবার। ওয়ানডেতে তাদের চেয়ে বেশিবার ১০ উইকেটে জিতেছে কেবল নিউ জিল্যান্ড (৯বার) ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ (১০বার)।

ভারতকে জয়ের ভিত গড়ে দেন ৬ মাস পর দলে ফেরা চাহার। ২৭ রানে ৩ উইকেট নিয়ে ম্যাচের সেরা এই পেসারই। তিনটি করে উইকেট পান প্রসিধ এবং আকসারও।

জবাব দিতে নেমে ৩২ রানে জীবন পাওয়া ধাওয়ান খেলেন ৯ চারে ৮১ রানের অপরাজিত ইনিংস। ১০ চার ও এক ছক্কায় গিলের ব্যাট থেকে আসে ৮২ রান।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা জিম্বাবুয়েকে শুরুতেই চেপে ধরেন চাহার। প্রতিপক্ষের টপ অর্ডার তিন ব্যাটসম্যানই তার শিকার। সবশেষ বাংলাদেশ সিরিজে সেঞ্চুরি করা ইনোসেন্ট কাইয়া ও টাডিওয়ানাশে মারুমানি ধরা পড়েন উইকেটে পেছনে। ওয়েসলি মাধেভেরে হন এলবিডব্লিউ।

মাঝে অভিজ্ঞ শেন উইলিয়ামসকে ফিরিয়ে দেন মোহাম্মদ সিরাজ। ৩১ রানে ৪ উইকেট হারানো জিম্বাবুয়ে আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি প্রসিধ, আকসারের বোলিং সামলে।

বাংলাদেশের বিপক্ষে বহু প্রতীক্ষিত সিরিজ জয়ে সবচেয়ে বড় অবদান রাখা সিকান্দার রাজা স্লিপে ক্যাচ দেন প্রসিধের বলে। ওই সিরিজেই জিম্বাবুয়ের হয়ে দ্রুততম সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়া রেজিস চাকাভা কিছুক্ষণ লড়াই চালিয়ে ফেরেন আকসারের বলে বোল্ড হয়ে।

আরও দুই ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে ১১০ রানেই নেই জিম্বাবুয়ের ৮ উইকেট। দেড়শ তখন অনেক দূরের পথ। কিন্তু সেই পথে দলকে এগিয়ে নেন ব্রাড ইভান্স ও রিচার্ড এনগারাভা।

নবম উইকেটে ৬৫ বলে ৭০ রানের জুটি গড়েন দুইজন। ভারতের বিপক্ষে এই উইকেটে যা জিম্বাবুয়ের সেরা জুটি।

মাথা ব্যথার কারণ হয়ে ওঠা এই জুটি ভাঙেন প্রসিধ। তার বলে ১ ছক্কা ও ৩ চারে ৩৪ রান করে স্টাম্প হারান এনগাভারা। সমান বাউন্ডারিতে ২৯ বলে ৩৩ রান করে অপরাজিত থাকেন ইভান্স।

জবাব দিতে নামা ভারতের শুরুর জুটি ত্রয়োদশ ওভারে ভাঙার সুযোগ আসে জিম্বাবুয়ের সামনে। কিন্তু উইলিয়ামসের বলে স্কয়ার লেগে ধাওয়ানের সহজ ক্যাচ ছাড়েন ইভান্স। এরপর আর কোনো সুযোগ দেননি ভারতের দুই ওপেনারের কেউই।

ধাওয়ান ফিফটি স্পর্শ করেন ৭৬ বলে। শুরুতে দেখেশুনে খেলা গিল পরে বাড়ান রানের গতি। তার পঞ্চাশ আসে ৫১ বলে। দুইজনের জুটি শতরানে পা রাখেন ১১৫ বলে।

দ্রুত রান তুলে দলকে লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে নিতে থাকেন গিল। এই পথে তাকে সঙ্গ দিয়ে যান ধাওয়ানও। শেষ পর্যন্ত অবিচ্ছিন্ন থেকেই দলের মুখে হাসি ফোটান তারা।

আগামী শনিবার দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মুখোমুখি হবে দুই দল।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

জিম্বাবুয়ে: ৪০.৩ ওভারে ১৮৯ (কাইয়া ৪, মারুমানি ৮, মাধেভেরে ৫, উইলিয়ামস ১, রাজা ১২, চাকাভা ৩৫, বার্ল ১১, জঙ্গুয়ে ১৩, ইভান্স ৩৩*, এনগারাভা ৩৪, নিয়াউচি ৮; চাহার ৭-০-২৭-৩, সিরাজ ৮-২-৩৬-১, কুলদিপ ১০-১-৩৬-০, প্রসিধ ৮-০-৫০-৩, আকসার ৭.৩-২-২৪-৩)

ভারত: ৩০.৫ ওভারে ১৯২/০ (ধাওয়ান ৮১*, গিল ৮১*; এনগারাভা ৭-০-৪০-০, নিয়াউচি ৪-০-১৭-০, ইভান্স ৩.৫-০-২৮-০, উইলিয়ামস ৫-০-২৮-০, রাজা ৬-০-৩২-০, জঙ্গুয়ে ২-০-১১-০, মাধেভেরে ২-০-১৬-০, বার্ল ১-০-১২-০)

ফল: ভারত ১০ উইকেটে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: দিপক চাহার

সিরিজ: ৩ ম্যাচের সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে ভারত

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক