আবারও অমিত ও হৃদয়ের সেঞ্চুরি

মৌসুম জুড়ে ব্যাট হাতে দারুণ ছন্দে থাকা অমিত হাসান আলো ছড়ালেন আরও একবার। পরপর দুই ইনিংসে তিনি করলেন সেঞ্চুরি। ডাবল সেঞ্চুরির পরের ইনিংসে আবার তিন অঙ্ক স্পর্শ করলেন তৌহিদ হৃদয়।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 Dec 2021, 02:04 PM
Updated : 28 Dec 2021, 02:04 PM

এই দুজনের দারুণ দুটি ইনিংসে ওয়ালটন মধ্যাঞ্চলের বড় সংগ্রহের জবাবটা ভালোই দিচ্ছে বিসিবি দক্ষিণাঞ্চল। বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) তৃতীয় রাউন্ডের তৃতীয় দিন শেষে তাদের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৩৮১ রান। পিছিয়ে আছে তারা ঠিক ১০০ রানে।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে শেষ দিনে অতি নাটকীয় কিছু না ঘটলে ড্রই হতে যাচ্ছে এই ম্যাচ। আর সেটা হলে ফাইনালে খেলবে এই দুই দলই। আরেক ম্যাচে তৃতীয় দিনে ইসলামী ব্যাংক পূর্বাঞ্চলকে ৬ উইকেটে হারায় বিসিবি উত্তরাঞ্চল।

তিন নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে ২৭২ বলে ১৭ চারে ১১৭ রানের ইনিংস খেলেন অমিত। চারে নেমে ১৫৫ বলে ১৩ চার ও ৪ ছক্কায় ১২২ রানের ইনিংস উপহার দেন হৃদয়। তৃতীয় উইকেটে দুজন গড়েন ২০১ রানের জুটি।

এই মাঠেই আগের রাউন্ডে বিসিবি উত্তরাঞ্চলের বিপক্ষে দলের একমাত্র ইনিংসে অমিত করেছিলেন ১৩১, হৃদয় ২১৭।

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এই মৌসুমে অমিতের সেঞ্চুরি হলো ৪টি। গত জাতীয় ক্রিকেট লিগে দুটি দেড়শ ছাড়ানো ইনিংস খেলেছিলেন ২০ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান।

বাংলাদেশে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এক মৌসুমে তার চেয়ে বেশি সেঞ্চুরি আছে পাঁচ জনের- তুষার ইমরান, লিটন কুমার দাস, শামসুর রহমান, মুমিনুল হক ও মিজানুর রহমান, প্রত্যেকের ৫টি করে। এর মধ্যে তুষার তা করে দেখান দুইবার।

এই সংস্করণে প্রথম আট ম্যাচে ২১ বছর বয়সী হৃদয়ের ছিল না কোনো সেঞ্চুরি। সেখানে তার দুটি সেঞ্চুরি হলো দুই ইনিংসে। যার একটি আবার ডাবল।

তৃতীয় দিনেও উইকেট ছিল যথেষ্ট ব্যাটিং সহায়ক। ১ উইকেটে ৯২ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করে দক্ষিণাঞ্চল। আগের দিন ৬৭ রানে অপরাজিত পিনাক ঘোষ আর ৭ রান যোগ করে শুভাগত হোমের বলে ক্যাচ দেন আবু হায়দারকে। ১১৬ বলে ১২ চারে গড়া পিনাকের ৭৪ রানের ইনিংস।

এরপর অমিত ও হৃদয় এগিয়ে নেন দলকে। ২৫ রানে দিন শুরু করা অমিত ফিফটিতে পা রাখেন ১০০ বলে। আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে ৫ চার ও ৩ ছক্কায় হৃদয়ের ফিফটি করতে লাগে ৬১ বল। লাঞ্চ বিরতিতে দুজনের রানই ছিল ৭১।

দ্বিতীয় সেশনে ৯৭ থেকে বাঁহাতি স্পিনার নাজমুল ইসলামকে বাউন্ডারি মেরে হৃদয় সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন ১২২ বলে। ৯৪ থেকে পেসার আবু হায়দারকে পরপর দুটি চার মেরে ২৫৪ তিন অঙ্ক স্পর্শ করেন অমিত। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ১৩ ম্যাচে তার সেঞ্চুরি হলো ৫টি।

বড় জুটি ভাঙে চা বিরতির এক ওভার আগে। দুই সেট ব্যাটসম্যানই বিদায় নেন পরপর দুই বলে। আগের ওভারে বাঁহাতি স্পিনার হাসান মুরাদের শেষ বলে এলবিডব্লিউ হন অমিত। পরের ওভারে আরেক বাঁহাতি নাজমুলের প্রথম বলে কিপারের গ্লাভসে ধরা পড়েন হৃদয়।

দিনের শেষ ঘণ্টায় মুরাদের বলে মিজানুর রহমানকে ক্যাচ দেন নাহিদুল ইসলাম। ৩৬ রানে অপরাজিত আছেন জাকির হাসান। ১২ রানে খেলছেন ফরহাদ রেজা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ওয়ালটন মধ্যাঞ্চল ১ম ইনিংস: ৪৮১

বিসিবি দক্ষিণাঞ্চল ১ম ইনিংস: ১২০ ওভারে ৩৮১/৫ (আগের দিন ৯২/১) (পিনাক ৭৪, অমিত ১১৭, হৃদয় ১২২, জাকির ৩৬*, নাহিদুল ১৮, ফরহাদ ১২*; আবু হায়দার ১৪-৪-৫২-০, নাজমুল ২৯-৪-৮৯-২, মুকিদুল ১২-২-৫২-০, শুভাগত ২৩-৩-৭৬-১, মুরাদ ৩২-৭-৮১-২, মিঠুন ৩-০-৮-০)।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক