টি-টোয়েন্টিতে পায়ের নিচে মাটির সন্ধানে মিরাজ

৩৩ ঘণ্টার লম্বা সফরে সময় কিভাবে কাটবে তা নিয়ে অনিশ্চয়তায় আছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজে পৌঁছানোর পর কি করবেন তা নিয়ে সংশয় একেবারেই নেই এই তরুণ অফ স্পিনিং অলরাউন্ডারের। লক্ষ্যটা সহজ- সিপিএলে ভালো খেলে টি-টোয়েন্টিতে জাতীয় দলে নিজের দাবিটা আরও জোরালো করা।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 July 2017, 10:21 AM
Updated : 27 July 2017, 10:21 AM

ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সেরহয়ে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে খেলতে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাতটায় দেশ ছাড়বেন মিরাজ।তার আগে দুপুরে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হন গণমাধ্যমকর্মীদের।     

“জাতীয় দলে একটির বেশি টি-টোয়েন্টিখেলার সুযোগ হয়নি। আমার মনে হচ্ছে, ওয়েস্ট ইন্ডিজে তারকা খেলোয়াড়দের সঙ্গে খেলে মানিয়েনিতে পারলে দারুণ সুযোগ তৈরি হবে আমার।”

“বিশ্বের অনেক বড় বড় খেলোয়াড় ওখানেখেলে। ওদের বিপক্ষে আমি যখন খেলবো আমার মানসিক শক্তি অনেক বাড়বে। সত্যি কথা বলতে কি,এটা অনেক সাহায্য করবে। এখানে ভালো করলে যে কোনো জায়গাতেই সুযোগ হতে পারে। চেষ্টা থাকবেএখানে ভালো কিছু করার।”

ত্রিনবাগোর অন্যতমমালিক আইপিএল দল কলকাতা নাইট রাইডার্সের শাহরুখ খান। মিরাজের আশা, সিপিএলে তার দলেরহয়ে ভালো করলে ডাক মিলতে পারে আইপিএলেও।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ মিরাজেরঅপরিচিত জায়গা নয়। ২০১৩ সালে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে সফর করেছিলেন। গায়নায় হওয়া ৭ ম্যাচেরসেই ওয়ানডে সিরিজ জয়ে বল হাতে রেখেছিলেন বড় ভূমিকা। এবারও বোলিংয়ের দিকেই থাকবে তারবেশি মনোযোগ।

“মূল লক্ষ্য থাকবে বোলিংটা ভালোকরার। কেননা ওরা আমাকে একজন বোলার হিসেবেই দলে নিয়েছে। ওখানে ব্যাটিংয়ের জন্য খুব বেশিসময় পাওয়া যাবে না। যদি ব্যাটিং করার সুযোগ পাই তাহলে অবশ্যই চেষ্টা করবো কাজে লাগাতে।”

অস্ট্রেলিয়ান চায়নাম্যানবোলার ব্র্যাড হগের বদলে মিরাজকে দলে নিয়েছে ত্রিনবাগো।

ওয়েস্ট ইন্ডিজে সাফল্যপেতে মিরাজ পরামর্শ পেয়েছেন তৃতীয়বারের মতো এই টুর্নামেন্টে খেলতে যাওয়া সাকিব আল হাসানেরকাছ থেকে।

“উনি বলেছেন, ওয়েস্ট ইন্ডিজে স্পিনারদেরজন্য সহায়তা থাকে। সেখানে একই জায়গায় বল করে যেতে হবে। কোনোভাবেই রক্ষণাত্মক হওয়া যাবেনা। সিপিএলে খেলতে হবে আক্রমণাত্মক ক্রিকেট।”

পুরো টুর্নামেন্টঅবশ্য খেলতে পারবেন না মিরাজ। দেশে ফিরতে হবে অস্ট্রেলিয়া সিরিজের আগেই। অনাপত্তিপত্রপেয়েছেন ১৫ অগাস্ট পর্যন্ত। ত্রিনবাগো তাকে পাবে প্রথম ৫ ম্যাচে।

টেস্ট সিরিজের জন্যনিজেকে প্রস্তুত করতে দেশে ফিরে খেলতে চান দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচে।

“পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে আমাদেরমানিয়ে নেওয়ার ক্ষমতা থাকতে হবে। একটা ফরম্যাট থেকে অন্য আরেকটা ফরম্যাটে দ্রুত মানিয়েনিতে না পারলে টিকে থাকা খুব কঠিন। আমার মনে হয়, ওখান থেকে ফেরার পর কয়দিনের যে বিরতিটাআছে সেটা যথেষ্ট টেস্টের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করতে।

সিপিএলের এবারেরআসর শুরু হবে ৪ অগাস্ট। উদ্বোধনী দিনেই মিরাজের দল খেলবে সেন্ট লুসিয়া স্টার্সের বিপক্ষে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক