রাতের ভাবনায় সাকিবের বদলে যাওয়া

সংবাদ সম্মেলনের শুরুতে গম্ভীর সাকিব আল হাসান। লম্বা প্রশ্নের উত্তর দিলেন এক বাক্যে। শেষের দিকে হাসি ফিরল মুখে, খানিকটা মজাও করলেন উত্তর দিতে গিয়ে। এক ফাঁকে জানালেন, তার পঞ্চম শতকের পিছনে সবচেয়ে বড় অবদান আগের রাতের ভাবনা আর দিনেশ চান্দিমালের দারুণ ইনিংসের।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 March 2017, 02:22 PM
Updated : 17 March 2017, 02:50 PM

পি সারা ওভালে দ্বিতীয় দিনের শেষ বেলায় ৮ বলে ১৮ রান করার পথে পাগলাটে ব্যাটিং করেন সাকিব। একবার বেঁচে যান ক্যাচ দিয়েও। আউট হতে পারতেন আরও দুই-তিনবার।

সেই ক্ষ্যাপাটে ব্যাটিং দেখা যায়নি শুক্রবার। পুলগুলো চেষ্টা করেছেন মাটিতে রাখতে। স্লগ করার চেষ্টা করেননি খুব একটা। পেয়েছেন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম শতক। দলকে এনে দিয়েছেন শতরানের লিড।

তৃতীয় দিনের খেলা শেষে দলের প্রতিনিধি হয়ে সংবাদ সম্মেলনে জানান, দুই দিনে তার ব্যাটিংয়ে সবচেয়ে বড় পার্থক্য ছিল মানসিকতায়।

“যেহেতু নট আউট ছিলাম, কাল রাতে চিন্তা করার সময় ছিল। ওই সময়টাতে আমি চিন্তা করতে পেরেছি, কিভাবে অ্যাপ্রোচ করলে ভালো হয়। বিশেষ করে চান্দিমাল যেভাবে ব্যাটিং করেছে প্রথম ইনিংসে। ওখান থেকে অনেক কিছুই শেখার ছিল। এই উইকেটে কিভাবে ব্যাটিং করতে হবে। ওটা অনেক সাহায্য করেছে।”

দলের বিপদের সময়ে ক্রিজে এসে ১৩৮ রানের ইনিংস খেলে শ্রীলঙ্কাকে ৩৩৮ রানের সংগ্রহ এনে দেন চান্দিমাল।

আগের দিন ৮ বলে ১৮ রান করার সময় যে ব্যাটিং করেছেন, ওই সময়ে ঠিক কী চিন্তা করে নেমেছিলেন তার উত্তর অবশ্য মেলেনি বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডারের কাছ থেকে।

এই শতকে স্পর্শ করেছেন মুশফিকুর রহিমকে। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে তাদের চেয়ে বেশি শতক আছে কেবল মোহাম্মদ আশরাফুল (৬) ও তামিম ইকবালের (৮)। শ্রীলঙ্কার মাটিতে দলের খুব প্রয়োজনের সময় শতক পেলেন বাঁহাতি অলরাউন্ডার, কোথায় রাখবেন এই ইনিংসকে?

“আপাতত তো পাঁচ নম্বরেই আছে। প্রতিটি শতকই আমার কাছে স্পেশাল। সত্যি কথা, দলের জন্য অবদান রাখতে পারা আরও স্পেশাল।”

“যে কোন পরিস্থিতিতেই যদি একশ করা যায়, আমার কাছে মনে হয় ব্যক্তিগত অর্জনের দিক দিয়ে চিন্তা করলে বিশেষ কিছু। এখানে এটা আরও একটু বড়। এই রানটা আমাদের প্রয়োজন ছিল। ভাগ্যক্রমে আমি করতে পেরেছি। এই কারণে আমি খুশি।”

শততম টেস্টে শতক করে রাঙিয়ে রাখলেন সাকিব। তবে অন্য কোনো টেস্টের চেয়ে এই ম্যাচকে আলাদা করে দেখতে রাজি নন তিনি।

“দেশের শততম ম্যাচে সাকিবের শতক? এই ভাবনা থেকে আপনারা ভালো লিখতে পারবেন (হাসি)। এটা শততম হোক আর প্রথম টেস্ট হোক বা আমার জীবনের শেষ টেস্ট হোক, ৫০তম টেস্ট হোক, জিনিসটা হচ্ছে আমি যদি দলের জন্য অবদান রাখতে পারি সেটাই আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। ওটা করতে পারাতে আমি খুশি।”

অবদার রাখতে পেরে, ১১৬ রানের ইনিংস খেলতে পেরে খুশি সাকিব। তৃতীয় দিন যেমন ব্যাটিং করেছেন সব সময় এমন অ্যাপ্রোচ থাকলে নিশ্চিত দলও অনেক খুশি থাকবে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক