জঙ্গিবাদ: সন্তানের প্রতি নজর দেওয়ার তাগিদ

সমাজের উঁচু স্তরের পরিবারের সন্তানরা গুলশান হামলায় জড়িত থাকার তথ্য বেরিয়ে আসার প্রেক্ষাপটে ছেলে-মেয়েদের প্রতি মনোযোগী হওয়ার আহ্বান এসেছে ঢাকার অভিজাত এই এলাকার বাসিন্দাদের এক সভায়।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 July 2016, 06:29 PM
Updated : 31 July 2016, 07:16 PM

গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে ওই হামলায় নিহতদের উদ্দেশে সোমবার ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান এলাকার বাসিন্দারা।

বিকালে গুলশান লেক পার্কে গুলশান সোসাইটি আয়োজিত শোক সমাবেশে বক্তাদের সবাই তরুণদের জঙ্গিবাদে ঝোঁকার প্রবণতা কমাতে অভিভাবকদের উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জানান।

ছোটোবেলায় বাবা-মার সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণের মধ্যে থাকার কথা উল্লেখ করে সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশন এটিএম শামসুল হুদা বলেন, “এখন সেভাবে না পারলেও আমাদেরকে দেখাশুনার মধ্যে রাখতে হবে সন্তানদের।দীর্ঘদিনের জন্য তারা কোথাও চলে গেলে কেন গেল, তারা কোথায় যায়- সে বিষয়গুলোতেও নজর রাখা দরকার।

“আমাদের নিজেদেরকে উদ্যোগ নিতে হবে, আর সরকারকে সর্বোতভাবে সহায়তা করতে হবে।”

গুলশান সোসাইটর সভাপতি শামসুল হুদা মনে করেন, বাংলাদেশি জঙ্গিদের আন্তর্জাতিক যোগাযোগ থাকা অস্বাভাবিক নয়।

সেটা দ্রুত খুঁজে বের করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, “সরকার যদি কঠোর ব্যবস্থা নেয়, তাহলে আমরা নাগরিকরা সহায়তা করব।

“আবার শুধু আইনশৃঙ্খলাবাহিনী দিয়ে কিছু হবে না। সবারই বাপ-মা আছেন, মধ্যবিত্ত কিংবা উচ্চ মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান এরা। সমাজের তাদের প্রতি যে দায়িত্ব সেটা ঠিকমতো পালন করছে কি না, অভিভাবক তার দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করছেন কি না সেটা দেখতে হবে।”

হামলায় নিহত ইতালির নাগরিক নাদিয়া বেনেদিত্তো গুলশান সোসাইটির সদস্য ছিল জানিয়ে সভাপতি শামসুল হুদা বলেন, তার একটা প্লট ছিল এখানে। ১৮বছর ধরে তিনি বাংলাদেশে ছিলেন। অন্যরাও এ এলাকায় এসে জীবন দিলেন।

“নিরপরাধ ব্যক্তি এরা। ভাল দুটো খাওয়ার জন্য এসেছিলেন। কিন্তু তাদের তলোয়ার দিয়ে নৃশংসভাবে জবাই করে হত্যা করা হয়েছে।”

নিহত জাপানিরা ঢাকার যানজট নিরসনের মেট্রোরেল প্রকল্প এবং ইতালীয়রা উন্নয়নশীল গার্মেন্ট শিল্পের ব্যবসায়ী ছিলেন মন্তব্য করে তিনি বলেন, “আমাদের দুটি খাতের অগ্রযাত্রা এটা ব্যাহত করবে।”

শামসুল হুদা বলেন, “অত্যন্ত মর্মবেদনা ও ভারাক্রান্ত হৃদয়ে আমরা এখানে সমবেত হয়েছি। যে নৃশংস ঘটনা ঘটেছে আমরা তার নিন্দা জ্ঞাপন করছি। কোনো অবস্থায় এই ধরনের আক্রমণকে সমর্থন করা যায় না, প্রশ্রয় দেওয়া যায় না।”

সাবেক নির্বাচন কমিশনার অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এম সাখাওয়াত হোসেনও তরুণদের জঙ্গিবাদে জড়িয়ে যাওয়ার পিছনে পারিবারিক সম্পর্কের ঘাটতিকে দুষছেন।

পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে বন্ধনটা জোরালো না হওয়া এবং এক ধরনের একাকিত্বের সুযোগে তরুণরা বেশি সংখ্যায় জঙ্গিবাদে ঝুঁকছে বলে মনে করেন এই নিরাপত্তা বিশ্লেষক।

একই সঙ্গে সামাজিক নানা সংকটও তরুণদের জঙ্গিবাদমুখী করছে মন্তব্য করে সাখাওয়াত হোসেন বলেন, “সমানভাবে মত প্রকাশের সুযোগ না থাকা এবং সামাজিক বিভক্তি তাদের সমাজের প্রতি বিরক্ত করছে। এ কারণে জঙ্গিবাদ মোকাবেলায় সামাজিক আন্দোলন দরকার।

“সিসিটিভিসহ বিভিন্ন নিরাপত্তার কথা আসছে। কিন্তু এরা যে রকম উগ্র ও উন্মাদ তাদের সিসিটিভি দিয়েও কিছু হবে না।”

সাবেক এই সামরিক কর্মকর্তা বলেন, এখন পর্যন্ত ১০০ থেকে ১৫০ জন তরুণ নিখোঁজ রয়েছে।

“এরা কোথায়? আগে যাদের নিখোঁজ বলা হয়েছিল তাতে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর কী ‍উদ্যোগ ছিল?”

শুক্রবার গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলায় ১৭ বিদেশিসহ অন্তত ২২ জন নিহত হয়। ওই ঘটনায় পাঁচ তরুণের ছবি প্রকাশ করে আইএসের বরাত দিয়ে সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ বলে, এই হামলা চালিয়েছে।

আইএসের তরফে দেওয়া তালিকা ধরে অন্তত তিনজনের ফেইসবুকের ছবি দেখে তাদের শনাক্ত করার কথা আসছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে, যাদের পড়াশোনা ঢাকার নামি ইংরেজি মাধ্যমের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে।

এদের একজন রোহান বিন ইমতিয়াজ গত ছয় মাস ধরে নিখোঁজ ছিলেন বলে তার পরিবার পুলিশকে জানিয়েছিল। ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র রোহানের বাবা রোহানের বাবা ইমতিয়াজ খান বাবুল ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক, বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের ডেপুটি সেক্রেটারি জেনারেল এবং বাংলাদেশ সাইক্লিস্ট ফেডারেশনের জেনারেল সেক্রেটারি।

আরেকজন নিব্রাস ইসলাম নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র। তিনি অস্ট্রেলিয়াভিত্তিক মোনাশ ইউনিভার্সিটির মালয়েশিয়া ক্যাম্পাসে ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্ট সার্ভিসেসের কোষাধ্যক্ষ ছিলেন। নিব্রাসের তিন চাচার মধ্যে একজন সরকারের উপ সচিব, একজন পুলিশ কর্মকর্তা, আরেকজন বিজ্ঞানী।

আরেকজন স্কলাসটিকার ছাত্র মীর সামেহ মুবাশ্বের এ লেভেল পরীক্ষার আগে গত মার্চ থেকে নিখোঁজ ছিলেন বলে পরিবারের ভাষ্য। তার বাবা মীর হায়াত কবির অ্যালকাটেল-লুসেন্ট বাংলাদেশের কর্মকর্তা। মা খালেদা পারভীন সরকারি কলেজের শিক্ষক।

গুলশানের এই হামলার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতার ঘাটতিকেও দায়ী করেছেন অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাখাওয়াত।

তিনি বলেন, “একেকটা করে ঘটনা ঘটার পর কোনো সুস্পষ্ট তদন্ত না হওয়া এবং দোষীরা চিহ্নিত না হওয়ায় জঙ্গিরা পারিপার্শ্বিক প্রস্তুতির সুযোগটা পেয়েছে। তারা যে স্পেসটা পেয়েছে তার সর্বোচ্চ সদ্ব্যবহার তারা করেছে।”

অনুষ্ঠানের শুরুতে নিহতদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয় এবং শেষে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করা হয় তাদের সবার ছবি সংবলিত ব্যানারের সামনে।

যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাটও শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য সেখানে পুষ্পস্তবক পাঠান বলে অনুষ্ঠানের সঞ্চালক গুলশান সোসাইটির মহাসচিব জানান।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক