অ্যাকটিভিশনের অ্যাপ স্টোর তৈরি ঠেকিয়েছিল গুগলের ঘুষ?

টেনসেন্টের সঙ্গে জোট বেঁধে এপিক গেইমস কেনার সম্ভাব্যতাও গুগলের বিবেচনায় ছিল। এক্ষেত্রে গুগলের মূল উদ্দেশ্যই ছিল এপিককে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রাখা।

হাসান বিপুলবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 20 Nov 2022, 01:02 PM
Updated : 20 Nov 2022, 01:02 PM

অ্যাকটিভিশন ব্লিজার্ডের নিজস্ব অ্যাপ স্টোর নির্মাণ ঠেকাতে গুগল গেইম নির্মাতা কোম্পানিটিকে তিন বছরে ৩৬ কোটি ডলার দিয়েছিল বলে অভিযোগ তুলেছে আরেক গেইম নির্মাতা এপিক গেইমস।

অ্যাকটিভিশনের অ্যাপ স্টোর যেন গুগলের নিজস্ব অ্যাপ স্টোরের প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে না দাঁড়ায়, তা নিশ্চিত করতেই গুগল এমনটা করেছে বলে অভিযোগ এপিকের।

২০২০ সালে গুগলের বিরুদ্ধে করা এক মামলায় অনৈতিক আর্থিক লেনদেনের এ অভিযোগ তুলেছিল এপিক। সম্প্রতি জনসমক্ষে এসেছে ওই মামলার নথিপত্র। মোবাইল গেইমিং খাতে গুগল প্রতিযোগিতাবিমুখ আচরণ করেছে বলে এপিকের অভিযোগ ছিল ওই মামলায়।

অ্যাকটিভিশন ছাড়াও, নিনটেন্ডো, রায়ট গেইমস এবং ইউবিসফটের মতো একাধিক গেইমিং কোম্পানি গুগলের কাছ থেকে আর্থিক সুবিধা নিয়েছিল বলে অভিযোগ এপিক গেইমসের।

অ্যাকটিভিশন ব্লিজার্ডের নির্বাহী ভাইস প্রেসিডেন্ট লুলু চেন মেসার্ভি টুইট করে দাবি করেছেন, এপিকের অভিযোগগুলো ‘ভুয়া’। এপিকের অভিযোগকে ভুয়া প্রমাণ করে এমন নথিপত্র ইতোমধ্যেই আদালতে জমা দেওয়ার কথা বলেছেন তিনি।

রয়টার্স জানিয়েছে, এপিক তাদের অভিযোগের সবগুলো বিভ্রান্তিকরভাবে উপস্থাপন করেছে বলে দাবি গুগলের। মামলায় যে ২৪টি কোম্পানির সঙ্গে আর্থিক লেনদেনের তথ্য দেওয়া হয়েছে, তার সবগুলোই নির্মাতাদের খুশি রাখার জন্য খরচের দাবি অ্যান্ড্রয়েড নির্মাতার।

মামলায় এপিক গেইমস আরও অভিযোগ করেছে, টেনসেন্টের সঙ্গে জোট বেঁধে এপিক গেইমস কেনার সম্ভাব্যতা গুগলের বিবেচনায় ছিল। এক্ষেত্রে গুগলের মূল উদ্দেশ্যই ছিল এপিককে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রাখা।

এপিকের জনপ্রিয় গেইম ফোর্টনাইট গুগলের প্লে-স্টোরের বাইরে বাজারজাত করার সিদ্ধান্তকে গুগল হুমকি হিসেবে নিয়েছিল বলে অভিযোগ নির্মাতার।

২০১৯ সালেই গুগল জানিয়েছিল, গুগলের ডিভাইসের জন্য বিকল্প কোনো অ্যাপ স্টোর দাঁড়িয়ে গেলে তাতে শত কোটি ডলার আর্থিক ক্ষতি হবে কোম্পানির। তাই, গেইম নির্মাতারাদের তাদের নির্মিত গেইম গুগলের নিজস্ব অ্যাপ স্টোরে রাখতে রাজি করাতে ব্যাপক হারে আর্থিক সুবিধা দিয়েছে কোম্পানিটি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক