গোল করার পর লাল কার্ড দেখলেন ভিতো হকে, বার্সার জয়

আলাভেসকে হারিয়ে লিগ টেবিলে তৃতীয় স্থানে উঠে এলো শাভি এর্নান্দেসের দল।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 Feb 2024, 07:38 PM
Updated : 3 Feb 2024, 07:38 PM

অম্লমধুর অভিজ্ঞতা বুঝি একেই বলে! বদলি নেমে ভিতো হকে খেলতে পারলেন স্রেফ ১৩ মিনিট। এর মধ্যেই উল্লাস-হতাশার বিপরীতমুখি অনুভূতির স্বাদ পেয়ে গেলেন তিনি। গোল করে ব্যবধান বাড়ালেন তরুণ ফরোয়ার্ড, একটু পর তাকে মাঠ ছাড়তে হলো লাল কার্ড দেখে। দলের জন্য অবশ্য খুব একটা বিপদের কারণ হলো না তা। আলাভেসকে হারিয়ে লা লিগার টেবিলে তৃতীয় স্থানে উঠল বার্সেলোনা।

প্রতিপক্ষের মাঠে শনিবার লিগ ম্যাচে ৩-১ গোলে জিতেছে শাভি এর্নান্দেসের দল।

রবের্ত লেভানদোভস্কিকে দিয়ে দলের প্রথম গোল করানো ইলকাই গিনদোয়ান নিজে করেন দ্বিতীয়টি। আলাভেসের হয়ে ব্যবধান কমান সামু ওমোরোদিওন।

তবে হকের গোলে আবার দুই গোলে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। ব্রাজিলিয়ান এই তরুণ পরে লাল কার্ড দেখলেও ম্যাচের ফলে আর কোনো প্রভাব পড়েনি।

আলাভেসের বিপক্ষে লিগে বার্সেলোনা অপরাজিত রইল এই নিয়ে টানা ১৩ ম্যাচে (১১ জয় ও ২ ড্র)।

ম্যাচের শুরুটা আলাভাসের জন্য ছিল আশা জাগানিয়া। প্রথম সাত মিনিটে কয়েক দফা বার্সেলোনার রক্ষণে ভীতি ছড়ায় তারা।

ম্যাচের ১৮ সেকেন্ডেই পাউ কুবারসির চ্যালেঞ্জে বক্সে আলেক্স সোলা পড়ে গেলে পেনাল্টির আবেদন করে স্বাগতিকরা। তবে অফসাইডের বাঁশি বাজান রেফারি। দুই মিনিট পর প্রতিপক্ষের ক্রস ক্লিয়ার করে দলকে বিপদমুক্ত করেন রোনাল্দ আরাউহো।

দশম মিনিটে প্রথম সুযোগ পায় বার্সেলোনা। ফ্রেংকি ডি ইয়ংয়ের ফ্রি কিকে বক্সে প্রতিপক্ষের চ্যালেঞ্জে ঠিকমতো হেড নিতে পারেননি আরাউহো।

২২তম মিনিটে লক্ষ্যে প্রথম শট নিতে পারে কোনো দল আর সেটিতেই এগিয়ে যায় সফরকারীরা। গিনদোয়ানের থ্রু বল বক্সে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে চিপ শটে আগুয়ান গোলরক্ষকের ওপর দিয়ে জালে পাঠান লেভানদোভস্কি।

চলতি মৌসুমে খুব ভালো ফর্মে না থাকা ফরোয়ার্ডের জন্য স্বস্তির পরশ হতে পারে এই গোল।  

গত নভেম্বরে নিজেদের মাঠে আলাভেসের বিপক্ষে দলের ২-১ ব্যবধানের জয়ে দুটি গোলই করেছিলেন এই পোলিশ তারকা।

 ৩৪তম মিনিটে দারুণ একটি সেভ করে ব্যবধান ধরে রাখেন বার্সেলোনার গোলকিপার ইনাকি পেনা। কাছ থেকে গুরিদির হেড ফিরিয়ে দেন তিনি। বিরতির আগে কাছ থেকে ভলি লক্ষ্যে রাখতে পারেননি আলাভেসের ১৯ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড ওমোরোদিওন।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে দুই মিনিটের মধ্যে গোল হয় দুটি। ৪৯তম মিনিটে দারুণ এক আক্রমণ থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করে বার্সেলোনা। বক্সের ভেতর থেকে ক্রস বাড়ান পেদ্রি, ছুটে গিয়ে দূরের পোস্ট থেকে চমৎকার কোণাকুণি ভলিতে গোলটি করেন ৩৩ বছর বয়সী গিনদোয়ান।

সেই রেশ না কাটতেই ব্যবধান কমিয়ে ফেলে আলাভেস। ডান দিক থেকে সোলার ক্রসে হেডে জাল খুঁজে নেন আলাভেসের নাইজেরিয়ার বংশোদ্ভূত ফরোয়ার্ড ওমোরোদিওন।

৫৯তম মিনিটে গিনদোয়ানের বদলি নামেন হকে। ৬৩তম মিনিটে দলের দুই গোলের ব্যবধান পুনরুদ্ধার করেন তিনি। আরেক বদলি খেলোয়াড় এক্তর ফোর্তের কাটব্যাক থেকে বাঁ পায়ের কোণাকুণি শটে গোলটি করেন ১৮ বছর বয়সী ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড।

গত রাউন্ডে ওসাসুনার বিপক্ষে দ্বিতীয়ার্ধে বদলি নামার পরের মিনিটেই গোল করে দলকে জিতিয়েছিলেন হকে। সেটি ছিল কাতালান ক্লাবটির জার্সিতে তার প্রথম গোল। এবার করলেন দ্বিতীয়টি।

হকের সেই আনন্দ হতাশায় রূপ নেয় ৭২তম মিনিটে। রাফা মারিনকে ফাউল করে পাঁচ মিনিটের মধ্যে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন তিনি।

বাকি সময়ে ব্যবধান আরও বাড়ানোর অন্তত দুটি সুযোগ পায় বার্সেলোনা, তবে কাজে লাগাতে পারেনি সেসব।

এই জয়ে চলতি লা লিগায় পয়েন্টের ‘হাফ সেঞ্চুরি’ হলো বার্সেলোনার। ২৩ ম্যাচে ১৫ জয় ও ৫ ড্রয়ে শিরোপাধারীদের ৫০ পয়েন্ট।

২২ ম্যাচে ৫৭ পয়েন্ট নিয়ে রেয়াল মাদ্রিদ শীর্ষে, ৫৫ পয়েন্ট নিয়ে জিরোনা দুইয়ে আছে।

২৩ ম্যাচে ২৬ পয়েন্ট নিয়ে ১২ নম্বরে আলাভেস।

লিগের গুরুত্বপূর্ণ লড়াইয়ে রোববার রেয়াল মাদ্রিদ খেলবে আতলেতিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে।