শেরপুরে হয়ে গেল শিশু সাংবাদিকদের ২ দিনের কর্মশালা

জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী ২০ জন শিশু এতে অংশ নেয়।

শেরপুর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 Nov 2022, 04:06 PM
Updated : 18 Nov 2022, 04:06 PM

শেরপুরে শিশু সাংবাদিকদের দুই দিনের কর্মশালা শুক্রবার সন্ধ্যায় শেষ হয়েছে।

ইউনিসেফ ও বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম-এর সহযোগিতায় এ কর্মশালার আয়োজন করে শিশু সাংবাদিকতায় বিশ্বের প্রথম বাংলা ওয়েবসাইট হ্যালো ডট বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। 

শেষ দিনে প্রধান অতিথি হিসেবে শেরপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মো. আব্দুর রশীদ এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে জেলা তথ্য কর্মকর্তা তাহমিনা আক্তার বক্তব্য দেন।

পরে প্রশিক্ষণে অংশ নেওয়া শিশু সাংবাদিকদের মাঝে সনদপত্র বিতরণ করা হয়।

কর্মশালায় জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী ২০ জন শিশু অংশ নেয়।

দুই দিনব্যাপী এ কর্মশালায় হ্যালো ডট বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম-এর নির্বাহী সম্পাদক সুলাইমান নিলয় প্রশিক্ষণ দেন।

কর্মশালায় অংশ নেওয়া শিশু সাংবাদিকদের মৌলিক সাংবাদিকতার ধারণা, সংবাদ ও ফিচার লিখন, শিশু সাংবাদিক হিসেবে কাজ করার সমস্যা ও সমাধান, মোবাইল ফোনে সংবাদ ও ভিডিও প্রতিবেদন তৈরিসহ বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

প্রধান অতিথি অধ্যাপক আব্দুর রশীদ শিশু সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, নিজেদের সুন্দর ও সু-নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। তাহলে সমাজের মানুষ তোমাদের শ্রদ্ধা ও সমীহ করবে। সমাজের যত অসংগতি, অন্যায় এবং যত রকমের নেতিবাচক দিক আছে সেগুলো তুলে ধরে মানুষকে সচেতন করতে হবে। 

“তোমার লেখার ভাষাটা যেন শুদ্ধ হয়, সে জন্যে পড়াশোনা করতে হবে।”

তিনি আরও বলেন, সাংবাদিকতায় ভালো করতে হলে তোমার দেশ, আন্তর্জাতিক বিশ্ব, ইতিহাস, ঐতিহ্য, ভাষা-সংস্কৃতিসহ সব বিষয় জানতে হবে।”

প্রশিক্ষক সুলাইমান নিলয় বলেন, “আমরা এ পর্যন্ত বাংলাদেশে সাড়ে ৮ হাজার শিশুকে সাংবাদিকতায় প্রশিক্ষণ দিয়েছি। এ প্রশিক্ষণটাকে আমরা খুবই প্রফেশনাল ওয়েতে ডিজাইন করেছি। এটা কিভাবে শিশুদের উপযোগী হবে, কতটুকু নিতে পারবে এসব বিবেচনা করে আমরা এই প্রশিক্ষণের ডিজাইন করেছি। এই শিশু সাংবাদিকতাকে আমরা বলি, আনন্দ সাংবাদিকতা।”

প্রশিক্ষণার্থী ফারাবি জাবিন সায়েরি তার অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে বলে, “কর্মশালাটা আমাদের খুবই ভালো লেগেছে। শেরপুরে ২০ জন শিশু সাংবাদিকের একজন হতে পেরে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করছি। আমরা অনেক কিছু জেনেছি।

“শিশুদের অধিকার সম্পর্কে এবং অন্যদের অধিকার কিভাবে রক্ষা করতে পারবো সে বিষয়ে জেনেছি।”

শিশু সাংবাদিক আফনান রশিদ নিশাতের ভাষ্য, আমাদের শেরপুর জেলায় সাড়ে ৬ লাখ শিশু আছে। তাদের মধ্যে ২০ জনকে বাছাই করা হয়েছে। এর মধ্যে আমি থাকতে পেরে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করছি। শিশুদের জন্য এমন একটি কর্মশালা হবে এটা আমার কল্পনার বাইরে ছিল।

প্রশিক্ষণ নেওয়া প্রত্যুষ ইসলাম জানায়, সে এই কর্মশালা থেকে নিউজ, আর্টিক্যাল, ফিচার রাইটিং সম্পর্কে জানতে পেরেছে।

কর্মশালায় অংশ নিতে পেরে ভালো লাগার কথা জানায় আয়শা সিদ্দিকা নামের এক খুদে সাংবাদিক।

গত ১৭ নভেম্বর বৃহস্পতিবার শেরপুর পৌর নিউমার্কেটের পালকি চাইনিজ রেস্টুরেন্ট অ্যান্ড পার্টি সেন্টার মিলনায়তনে এই কর্মশালার উদ্বোধন করেন শেরপুরের পুলিশ সুপার মো. কামরুজ্জামান। 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন শেরপুর জেলা সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১ এর সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা ফকির আখতারুজ্জামান ও জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা আসলাম খান।

উদ্বোধনী ও সমাপনী অনুষ্ঠানে সাংবাদিক মো. আব্দুর রহিম বাদল, সাংবাদিক ও কবি রফিক মজিদ, সাংবাদিক আদিল মাহমুদ উজ্জ্বল ও সাংবাদিক তারিকুল ইসলাম ছিলেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক