ভরা মৌসুম ন্যায্য মূল্য পাচ্ছেনা লবণ চাষীরা

  • টেকনাফের উপকূলে পলিথিন পদ্ধতিতে লবণ চাষ করছেন চাষীরা। প্রতি একরে লবণ উৎপাদন হয় ৩০ টন। ছবি: জসিম মাহমুদ

    টেকনাফের উপকূলে পলিথিন পদ্ধতিতে লবণ চাষ করছেন চাষীরা। প্রতি একরে লবণ উৎপাদন হয় ৩০ টন। ছবি: জসিম মাহমুদ

  • টেকনাফে এবার ৩ হাজার ৯৪৫ একর জমিতে চাষ হচ্ছে লবণ; ইতিমধ্যে এই উপকূলীয় এলাকা মিলেছে ৩৪ হাজার টন লবণ। ছবি: জসিম মাহমুদ

    টেকনাফে এবার ৩ হাজার ৯৪৫ একর জমিতে চাষ হচ্ছে লবণ; ইতিমধ্যে এই উপকূলীয় এলাকা মিলেছে ৩৪ হাজার টন লবণ। ছবি: জসিম মাহমুদ

  • সূর্যের তাপে লোনা পানি শুকিয়ে তৈরি করা লবণের আস্তর; পলিথিনের উপর থেকে সেই লবণ সংগ্রহ করছেন চাষীরা। ছবি: জসিম মাহমুদ

    সূর্যের তাপে লোনা পানি শুকিয়ে তৈরি করা লবণের আস্তর; পলিথিনের উপর থেকে সেই লবণ সংগ্রহ করছেন চাষীরা। ছবি: জসিম মাহমুদ

  • টেকনাফে লবণের মাঠে প্রচণ্ড গরম উপেক্ষা করে কাজ করছেন চাষীরা। ছবি: জসিম মাহমুদ

    টেকনাফে লবণের মাঠে প্রচণ্ড গরম উপেক্ষা করে কাজ করছেন চাষীরা। ছবি: জসিম মাহমুদ

  • টেকনাফের উপকূলে হাজার হাজার একর জমিতে পুরোদমে চলছে লবণ চাষ। ছবি: জসিম মাহমুদ

    টেকনাফের উপকূলে হাজার হাজার একর জমিতে পুরোদমে চলছে লবণ চাষ। ছবি: জসিম মাহমুদ

  • কালো পলিথিনে সারি সারি লবণের প্লট বা বেড; তার উপরে দেখা যাচ্ছে লবণ দানা। ছবি: জসিম মাহমুদ

    কালো পলিথিনে সারি সারি লবণের প্লট বা বেড; তার উপরে দেখা যাচ্ছে লবণ দানা। ছবি: জসিম মাহমুদ

  • কড়া রোদের মধ্যে শাহ পরীর দ্বীপের মাঠ থেকে লবণ সংগ্রহ করছেন শ্রমিকেরা। ছবি: জসিম মাহমুদ

    কড়া রোদের মধ্যে শাহ পরীর দ্বীপের মাঠ থেকে লবণ সংগ্রহ করছেন শ্রমিকেরা। ছবি: জসিম মাহমুদ

  • শাহ পরীর দ্বীপের মাঠের লবণ স্তুপ করে রাখছেন শ্রমিকেরা। ছবি: জসিম মাহমুদ

    শাহ পরীর দ্বীপের মাঠের লবণ স্তুপ করে রাখছেন শ্রমিকেরা। ছবি: জসিম মাহমুদ

  • শাহ পরীর দ্বীপের মাঠের লবণ স্তুপ করে রাখছেন শ্রমিকেরা। ছবি: জসিম মাহমুদ

    শাহ পরীর দ্বীপের মাঠের লবণ স্তুপ করে রাখছেন শ্রমিকেরা। ছবি: জসিম মাহমুদ

  • টেকনাফের উপকূলীয় শাহ পরীর দ্বীপে মাঠজুড়ে লবণের স্তুপ। ছবি: জসিম মাহমুদ

    টেকনাফের উপকূলীয় শাহ পরীর দ্বীপে মাঠজুড়ে লবণের স্তুপ। ছবি: জসিম মাহমুদ