ঢাউস বাঁশের সাঁকো

  • রাজধানীর রামপুরা খালের শেষ প্রান্তের এই সাঁকোটি যুক্ত করেছে দুটি থানাকে; এর এক প্রান্তে খিলগাঁও থানা, অন্য প্রান্তে ডেমরা। এই দুই থানা এলাকার মানুষের যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম এইসাঁকো। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

    রাজধানীর রামপুরা খালের শেষ প্রান্তের এই সাঁকোটি যুক্ত করেছে দুটি থানাকে; এর এক প্রান্তে খিলগাঁও থানা, অন্য প্রান্তে ডেমরা। এই দুই থানা এলাকার মানুষের যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম এইসাঁকো। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

  • ডেমরার নলছড়া ইটাখোলার ৭০ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দারা জানিয়েছেন, ১০ বছর ধরে বাঁশের সাঁকো দিয়ে যাতায়াত করছেন তারা। এর আগে যাতায়াত করতে হতো নৌকায়। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

    ডেমরার নলছড়া ইটাখোলার ৭০ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দারা জানিয়েছেন, ১০ বছর ধরে বাঁশের সাঁকো দিয়ে যাতায়াত করছেন তারা। এর আগে যাতায়াত করতে হতো নৌকায়। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

  • ডেমরার নলছড়া ইটাখোলায় রামপুরা খালের শেষ প্রান্তের এই সাঁকোটি প্রতিবার পারাপার হতে লাগে পাঁচ টাকা। প্রতিবছর বিশালাকৃতির সাঁকো বানাতে খরচ হয় তিন লাখ টাকা। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

    ডেমরার নলছড়া ইটাখোলায় রামপুরা খালের শেষ প্রান্তের এই সাঁকোটি প্রতিবার পারাপার হতে লাগে পাঁচ টাকা। প্রতিবছর বিশালাকৃতির সাঁকো বানাতে খরচ হয় তিন লাখ টাকা। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

  • ডেমরার নলছড়া ইটাখোলায় রামপুরা খালের শেষ প্রান্তের এই সাঁকো দিয়ে প্রতিদিন কয়েক হাজার মানুষ ‍যাতায়াত করে। স্থানীয়রা জানান, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন হয়েও তারা পাচ্ছেন না কোনো সুবিধা। ছবি: মাহমুদ জামান অভি

    ডেমরার নলছড়া ইটাখোলায় রামপুরা খালের শেষ প্রান্তের এই সাঁকো দিয়ে প্রতিদিন কয়েক হাজার মানুষ ‍যাতায়াত করে। স্থানীয়রা জানান, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন হয়েও তারা পাচ্ছেন না কোনো সুবিধা। ছবি: মাহমুদ জামান অভি